‘২১ তারিখে যারা হরতাল আহ্বান করেছে তাদের সাথে বাঙালী ছাত্র পরিষদের দুরতম সম্পর্কও নেই’- কেন্দ্রীয় কমিটি


পিবিসিপি

নিজস্ব প্রতিনিধি:

‘পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের নামে ইতিমধ্যে যে বা যারা আগামী ২১ তারিখে হরতারলের আহ্বান করেছে, মহাসমাবেশ নাই বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং মহাসমাবেশকে বানচালের চেষ্টা করছে তাদের সাথে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের দূরতম কোন সম্পর্কও নেই। তারা উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের দালাল, তারা চাঁদাবাজ, খুনি, সন্ত্রাসীদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে’- বলে দাবী করেছে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি।

‘এহেন ঘৃন্য কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার’ জানিয়ে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি ও মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মজিদ কর্তৃক গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রামে উপজাতীয় সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইউপিডিএফ, জে.এস.এস সংস্কার গ্রুপের অব্যাহত চাঁদাবাজি, হত্যা, খুন, গুম, ধর্ষন, অপহরণসহ বিভিন্ন অপকর্ম বন্ধের দাবীতে, নিরীহ বাঙ্গালী মটরসাইকেল চালক সাদেকুল হত্যার প্রতিবাদে এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে নিয়ে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে খাগড়াছড়ি মুক্ত মঞ্চে (শাপলা চত্ত¡র) আগামী ২১ মে ২০১৭ইং তারিখে এক বিশাল মহাসমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।

উক্ত মহা সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন- ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মজিদ, আহ্বায়ক, মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন কমিটি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সংগ্রামী চেয়ারম্যান ইঞ্জি: আলকাছ আল মামুন ভুঁইয়া।

উক্ত মহাসমাবেশে প্রধান বক্তা থাকবেন, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পষিদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি এডভোকেট এয়াকুব আলী চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল হামিদ রানা, ছাত্র পরিষদের উপদেষ্টা শেখ আহম্মদ রাজু, আবু তাহের, পার্বত্য নাগরিক পরিষদের রাঙ্গামাটি জেলার সভানেত্রী বেগম নুর জাহান, ছাত্র নেতা ইব্রাহীম মনির, সাহাদাৎ ফরাজি শাকিব, ছাদেকুর রহমান, লোকমান হোসাইন, শাহাদাত হোসাইন, তাহেরুল ইসলাম সোহাগ, ইউসুফ পাটোয়ারী, আসাদ উল্যাহ, শাহাদাত হোসেন কায়েস, নজরুল ইসলাম মাসুদ, আলমগীর হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মহানগর, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা মহানগর, ঢাকা মহানগর এবং সকল উপজেলার বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের নেতৃবৃন্দ উক্ত সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন।

নামধারী একটি মহল পার্বত্য অঞ্চলকে অশান্ত করার জন্য চেষ্টা করছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম কতিপয় সন্ত্রাসীদের হাতে আপমর জনসাধারণ জিম্মি হয়ে আছে। তিন পার্বত্য জেলার সাধারণ নাগরিকগণ নিজ দেশে পরবাসী হিসেবে জীবন যাপন করে যাচ্ছে। সাধারণ জনগণ সশস্ত্র উপজাতীয় সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ কর্তৃক হত্যা, খুন, গুম, ধর্ষন, মুক্তিপন, চাঁদাবাজিসহ নানাবিধ নির্যাতনের স্বীকার হয়ে আজ দিশেহারা।

গত ১২/০৪/২০১৭ইং তারিখে নানিয়াচর নিরীহ বাঙ্গালী মটরসাইকেল চালক সাদেকুল‘কে উপজাতীয় সন্ত্রাসীরা নির্মমভাবে হত্যা করে। তাছাড়া পার্বত্য চট্টগ্রামে অসংখ্য নিরীহ বাঙ্গালী উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের হাতে হত্যার স্বীকার হয়। এ সকল খুন ও হত্যার কোন সঠিক বিচার আজ পর্যন্ত হয়নি। আজ নির্যাতিত পার্বত্যবাসী এ সকল হত্যার বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।

আজ পার্বত্য চট্টগ্রামে যেভাবে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বৃদ্ধি পাচ্ছে এ সকল সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে এলাকার সাধার জনগণ নিরাপত্তার জন্য সকল আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সকল স্থরের জনগোষ্ঠীর প্রতি দৃষ্টি আকর্শন করছি। আজ আমরা সমবেত হয়েছি সকল অন্যায়, অত্যাচার, অবিচার, খুন, গুম, হত্যা, ধর্ষণ ও চাঁদাবাজিসহ উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের সকল কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে। এ সকল অন্যায় কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে পার্বত্য এলাকায় নির্যাতিত নিপীড়িত পার্বত্যবাসীর পক্ষে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ উক্ত মহাসমাবেশ’।

 

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *