২০১৬ সাল ছিলো নানা ঘটনা অঘটনার বান্দরবান


মংপ্রু মারমা
মো. জমির উদ্দীন:

২০১৬ সাল ছিল বান্দরবান জেলার রাজনৈতিক আকাশে নানা ঘটনাপ্রবাহে মোড়ানো। নানা চড়াই ওতরাই পেরিয়েছে এই জেলাটি। এরমধ্যে ৩ জানুয়ারি বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়নের শিয়া পাড়া বৌদ্ধ জাদি বিহারে একদল নবাগত খ্রিস্টানরা হামলা চালিয়ে একটি বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুর করার ঘটনায় অংচাই চাক (১৫) এবং চক্রাঅং চাক (১৬) আটক করে পুলিশ।

পরে ১৭ জানুয়ারী সংবাদ সম্মেলনে পার্বত্য ভিক্ষু পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ পাইঞঞাা নাইন্দা মহাথের বলেন, পার্বত্য জেলার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে স্বার্থাণ্বেষী একটি মহল ওঠে পড়ে লেগেছে। খ্রীষ্টান ধর্মালম্বীদের মিথ্যা দোষারোপ করতে বিহারের বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুর করেছে বলে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে সাম্প্রাদায়িক সংঘাতের পাঁয়তারায় মেতে উঠেছে কুচক্রী মহল। পার্বত্য জেলার সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি যাতে অটুট থাকে সে লক্ষ্যে সবাইকে এক যোগে কাজ করতে এবং আটক দু-যুবকের মুক্তি দেয়ার আহবান জানান তিনি।

দূর্গা পূজার সময় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা তোফাইল বান্দরবন ও কক্সবাজারে দুটি পূজা মন্ডপে বড় ধরনের নাশকতা চালাতে চেয়েছিল। এবং মিয়ানমারের ২টি বিচ্ছিন্নতাবাদি সংগঠনের মদদ দেয়ার অভিযোগ থাকায় তাকে ১১ জানুয়ারী রাজধানীর সুন্দরবন হোটেল তাকে আটক করা পুলিশ। পরে তিনি জামিনে মুক্ত হন।

%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%bf

২৮ জানুয়ারী জেলা প্রশাসন সম্মেলনকক্ষে বান্দরবানে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে নবাগত জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ২৮ জানুয়ারী বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ির বাইশারী-ঈদগড় সড়কে রাবার ভর্তি কাভার্ড ভ্যান থামিয়ে ছিনতাইকালে দুই পুলিশ সদস্যকে স্থানীয় জনতা গণধোলাই পুলিশে সোপর্দ করে।

১৪ ফেব্রুয়ারী বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে দুর্গম আলীক্ষ্যং পাড়ার খাল থেকে ভাসমান অবস্থায় মা ও শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। নিহতরা হলেন রেহানা বেগম (২২) ও তার মেয়ে তানজিনা আক্তার (১৫ মাস)।

বান্দরবানের বেসরকারী ভাবে গড়ে উঠা পর্যটন স্পট ও বৌদ্ধধর্মালম্বীদের তীর্থস্থান নামে খ্যাত স্বর্ণ মন্দিরে (বৌদ্ধ ধাতু জাদি) পর্যটকদের ভ্রমণে মন্দিরের পবিত্রতা নষ্ট, ভান্তেদের মারধরের চেষ্টা, স্থাপন করা মূর্তিদের স্পর্শ ও পূজার দ্রব্যাদি ফেলে দেওয়ার মতো ঘটনার অজুহাতে অনির্দিষ্টকালের ১৫ ফেব্রুয়ারী থেকে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে মন্দির কর্তৃপক্ষ।

বান্দরবানের লামা-চকরিয়া সড়কের ইয়াংছা বদুরঝিরি এলাকায় এলাকায় ২০ ফেব্রুয়ারী সেনাবাহিনীর চেক পোস্টের বাঁশ ভেঙ্গে পাচার কালে কাঠ বোঝাই ৭টি মিনিট্রাক আটক করা হয়েছে। চেকপোস্টের বাঁশ ভাঙ্গার অভিযোগে মো. সোহরাব হোসেন (৪০) নাম এক ড্রাইভারকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

২৯ ফেব্রুয়রী ক্রয়কৃত ভূমির কাগজপত্র দেয়ার কথা বলে বান্দরবানের বাগান বাড়ীতে তিন সন্তানের জননী রাণী নাথকে (৩০) ধর্ষনের অভিযোগ করে সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করা হয় অভিযুক্ত ভূমি দুশ্য ও ভূমি দালাল হিসেবে পরিচিত সুনিশ কান্তি দাশ ওরফে সোনাইয়া’র বিরুদ্ধে।

১১ মার্চ রাঙামাটি’র রাজস্থলী থেকে অপহরণের ২৪ ঘন্টার মধ্য স্কুল ছাত্র বিজয় মারমা উদ্ধার করে যৌথ বাহিনী। এঘটনা মো. রাসেল, মো. সালাউদ্দিন ও মনোয়ার হোসেনকে আটক করা হয়।

বান্দরবানের ১৩ মার্চ পাহাড়ী নারীদের পাচারের অভিযোগে রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার মিতিঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ মন্দির থেকে বৌদ্ধ ভিক্ষু উসিরি মার্মাকে আটক করে ১২ মার্চ কারাগারে প্রেরণ করে আদালত।

গত জানুয়ারী মাসে রোয়াংছড়ির বিভিন্ন এলাকা থেকে ১১ মারমা যুবতীকে বিনা পয়সায় পড়ালেখার প্রলোভন দেখিয়ে মায়ানমারে পাচার করে বৌদ্ধ ভিক্ষু উসিরি মার্মা। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মিয়ানমারের মংডু এলাকার নেছাদং থেকে তাদের উদ্ধার করে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। অপর দুই শিশুকে এখনো উদ্ধার করা যায়নি। এদিকে ২৩ মার্চ উদ্ধার হওয়া ১১ শিশুর ডাক্তারী পরিক্ষা, পুলিশের হয়রানী এবং শিক্ষার নামে বিদেশে নারী পাচার বন্ধ করার দাবীতে প্রেসক্লাব চত্ত্বরে পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন করে দু-পক্ষ।
মিয়ানমার থেকে উদ্ধার হওয়া ১১ শিশু কিশোরীর পুলিশ হেফাজতে ডাক্তারী পরীক্ষা নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে বানববন্ধন ও সমাবেশ পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ। অন্যদিকে বান্দরবান সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী ও পাচার হওয়া অভিবাবকরা শিক্ষার নামে বিদেশে নারী পাচার বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন করে।

২১ মার্চ বান্দরবানের রুমার গ্যালেঙ্গা ইউনিয়নের জেএসএস সমর্থীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শান্তি ত্রিপুরাকে (৪২) গুলি করে হত্যা করেছেন দুর্বৃত্তরা। নিহত শান্তি ত্রিপুরা পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) ইউনিয়ন প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন।

৩ এপ্রিল বান্দরবানের রুমায় প্রকৃতিক বগালেকে ডুকে মেডিকেল শিক্ষার্থী মো. ফাতাউর ইমতিয়াজ (২৬) মিত্যু হয়েছে। বন্ধুদের সাথে লেকে গোসল করতে নেমে সে তালিয়ে যায়।

৫ এপ্রিল চাঁদাবাজীর অভিযোগে বান্দরবানের লামা উপজেলার তাউ পাড়ায় যৌথ বাহিনী অভিযান চালিয়ে দেশিয় তৈরী বন্দুকসহ হ্লাচিং অং ম্রো (৪১) কে আটক করে। অভিযোগ রয়েছে অবৈধ অস্ত্র দিয়ে একটি পাহাড়ি সন্ত্রাসী গ্রুপ স্থানীয় গাছ, বাঁশ, পাথর, হলুদ ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়সহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।

এপ্রিল মাসের ৮ তারিখে কাঠ ব্যাবসায়ী ও পার্বত্য নিউজের স্টাফ রিপোটার মো. জমির উদ্দিনের পিতা আলহাজ্ব ইদ্রিস সওদাগড় (৭৬) শুক্রবার সকালে হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাহির রাজিউন)।

১৮ এপ্রিল বান্দরবানের থানছি-আলিকদম সড়কে অপহৃত তিন গরু ব্যাবসায়ীর লাশ ডিম পাহাড়ের ২৮-২৯ কিলোমিটারের মাঝামাঝি এলাকায় তল্লাসী চালিয়ে জঙ্গল থেকে তাদের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করা
হয়। নিহতরা হলেন আবু বক্কর (৪০), নুরুল আবছার (৩৫) ও মো. সাহাব উদ্দিন (৪০)। নিহতরা মোটর সাইকেলযোগে থানছি যাওয়ার পথে দেশে সব্বোর্চ সড়ক থানছি-আলিকদম সড়কের ১৮ কিলোমিটার এলাকায় গতি রোধ করে অস্ত্রের মুখে তিন গরু ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় সন্দেহভাজন চারজন ত্রিপুরাকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় প্রতিবাদে ১৯ এপ্রিল সকাল সন্ধ্যায় হরতাল, মানববন্ধন ও সমাবেশ ডাক দেয় পার্বত্য শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। মঙ্গলবার দুপুরে বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে এ ঘোষণা দেয়।

ইউপি নির্বাচনে পরাজয় হয়ে ২৫ এপ্রিল লামা উপজেলার গজালিয়া বাজারে চাদাঁ দাবির জের ধরে ছাত্রলীগ-জেএসএস এর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। স্থানীয়রা জানান, ইউপি নির্বাচনে জেএসএস প্রার্থী চচিমং মার্মা পরাজয়ের কারণে জেএসএস দিগুণ চাদাঁ দাবি করে গজালিয়া ৬নং ওয়ার্ডের জেএসএস নেতা জ্যোতি ত্রিপুরা ও মংনুচিং মার্মা মোটা অংকের চাদাঁ দাবি করে।

১১ মে বান্দরবানের থানচিতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মায়ানমার সীমান্তবর্তী বুলুপাড়া ক্যাম্প লক্ষ্য করে এবার মর্টার শেল নিক্ষেপ করে মায়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসীরা। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি সদস্যরা পাল্টা মর্টার শেল নিক্ষেপ করে। এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

থানছি-মায়ানমার সীমান্তবর্র্তী বিজিবি ৫৭ ব্যাটেলিয়নের অধীনে বুলুপাড়ায় নির্মাণাধীন বিজিবি ক্যাম্পে লক্ষ্য করে ৩টি মর্টার শেল নিক্ষেপ করে মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসীরা। মর্টার শেলগুলো ক্যাম্প থেকে প্রায় একশ গজ দুরে হেলিপ্যাডে পড়ে। এতে হেলিপ্যাডের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা ২টি মর্টার শেল নিক্ষেপ করে।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়নের উপর চাকপাড়া বৌদ্ধ মন্দিরে বৌদ্ধ ভিক্ষু ক উ মং শৈ (৭৭)কে ১৩ মে রাতে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় সন্দেহজনক পুলিশ বাংলাদেশী একজনসহ তিনজনকে আটক করে। ১৫ মে এঘটনায় বান্দরবান রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারের প্রধান ভিক্ষু উ প ঞা জোত থের নেতৃত্বে বৌদ্ধ ভিক্ষুরা প্রেস ক্লাব চত্বরে মানববন্ধন করে।

২৫ মে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বান্দরবানের থানছির বুলুপাড়া ক্যাম্পের এলাকায় আকাশ সীমা লঙ্গন করে। হেলিকপ্টারটি কয়েক চক্কর দিয়ে আবার মিয়ানমার সীমানায় চলে বলে জানা গেছে। বিজিবি ক্যাম্পে মর্টার শেল নিক্ষেপের পর এবার মিয়ানমার সেনা বাহিনী আকাশ সীমা লঙ্ঘন করলো।

এপ্রিল মাসে বান্দরবানের থানছি উপজেলার দুর্গম পাহাড়ী এলাকাগুলোতে বৈরী আবহাওয়ার কারনে গতবছর জুমের ধান ঘরে তুলতে না পারায় ব্যাপক খাদ্য সংকট দেখা দেয়। সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন রেমাক্রী এবং তীন্দু ইউনিয়নের দুর্গম যোগী চন্দ্র পাড়া, বড় মদকের ভিতর পাড়া, হৈয়োক খুমী পাড়া’সহ আশপাশের পাহাড়ী পল্লীগুলোতে খাদ্য সংকট দেখা দেয় বলে জানান জনপ্রতিনিধিরা।

খাদ্য সংকট তীব্র আকার ধারণ করলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সরকারের উচ্চ মহলে বিষয়টি অবহিত করলে বান্দরবান জেলা প্রশাসন বিষয়টি আমলে নিয়ে জরুরী ভিত্তিতে দুর্গত এলাকায় ১৬ মেঃটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যা চাহিদার তুলনায় অনেক কম মনে করেন জনপ্রতিনিধিরা।ইউনিয়ন দুটির প্রায় আড়াই হাজার মানুষ চরমভাবে খাদ্য সংকটে ভূগছেন বলে জানিয়েছিলেন জনপ্রতিনিধিরা।

সংকট নিরসনে জেলা প্রশাসনের উদ্দ্যেগে দুর্গম অঞ্চলসমূহের খাদ্য সংকটাপন্নবাসীর সংকট মোকাবেলায় প্রথম দফায় ১৬ ও ২য় দফায় ১০০ মেট্রিকটন খাদ্যশস্য বরাদ্দ দেয়। জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক বলেছিলেন, তিন্দু ও রেমাক্রি ইউনিয়নের কয়েকটি এলাকায় খাদ্য সংকট থাকলেও থানচি সদর এলাকার খাদ্য পরিস্থিতি সরকারের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যেকোনো ধরনের সংকট মোকাবিলায় জেলা ও উপজেলা প্রশাসন এবং ত্রাণ বিভাগকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

তিনি জানান, খাদ্য সংকটাপন্ন এলাকাগুলোতে প্রথমে ১৬ মেট্রিকটন এবং পরে আরো দুই কিস্তিতে ৩০ মেট্রিকটন চাল পাঠানো হয়েছে। আপদকালীন সহায়তার জন্য থানচি সরকারি খাদ্য গুদামে ২০০ মেট্রিকটন চাল মজুদ আছে। শনিবার আরো ১০০ টন চালের বরাদ্দ পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। সংকট নিরসনে খাদ্যগুলো সেনা ও নৌবাহিনীর হেলিকপ্টার যোগে প্রেরণ করা হয়।

চেক জালিয়াতি মামলায় আওয়ামীলীগ সমর্থীত বান্দরবান সদর উপজেলা ভাইস চেয়াম্যান জামাল উদ্দিন চৌধুরীকে আদালত ৬ মাসের কারাদন্ড দিয়ে ২৯ মে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। একই সাথে বাদীকে ৩০ লক্ষ টাকা প্রদানেরও রায় দিয়েছেন চট্টগ্রাম যুগ্ম জলা জজ মিজানুর রহমান।

মামলায় বলা হয়, ব্যবসায়িক বিভিন্ন প্রয়োজনে ২০১০ সালে জামাল চৌধুরী খাদ্য ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলীর কাছ থেকে কয়েক দফায় ৬০ লাখ টাকা ধার নেন। বারবার তাগিদ দেওয়ার পর তিনি ৩০ লাখ টাকার একটি ব্যাংক চেক প্রদান করেন। কিন্তু ওই চেক ব্যাংকে জমা দিয়ে বাদী জানতে পারেন, জামাল চৌধুরীর ওই একাউন্টে কোন টাকা নেই। এ অবস্থায় প্রতিকার পাওয়ার জন্য তিনি আদালতের স্মরণাপন্ন হন।

৩১ মে বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সহযোগী সংগঠন যুব সমিতির নেতা সুনীল চাকমাকে অভান্তরীন কোন্দলে (৩৫) শ্বাসরোধ করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের কিবুকপাড়ার জঙ্গল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় একই সংগঠনের সদস্য মেগ্যা মারমা (৩০) নামে এক যুবককে পুলিশ গ্রেফতার করে।

বান্দরবান সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের জামছড়ি থেকে অস্ত্রের মুখে ১৩ জুন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক ও সাবেক ইউপি সদস্য মং প্রু মারমা (৩৯) কে অপহরণ করে জেএসএস। সোমবার গভীর রাতে জামছড়ি মুখ পাড়ার মহিলা ইউপি সদস্য ক্রানু প্রু মারমার বাড়ি থেকে ১০-১৫ জনের শসস্ত্রদল অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

অপহরণের প্রতিবাদে ১৪ জুন বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগ। বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে আয়োজিত সমাবেশ ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপহৃত মং প্রুকে সুস্থ শরীরে মুক্তি দেয়া না হলে বুধবার থেকে বান্দরবান শহরে অনিদিষ্টকালের সড়ক ও নৌপথ অবরোধ কর্মসূচী ঘোষণা করেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ক্যশৈহ্লা।

অপহৃত আওয়ামী লীগ নেতা মং পু মারমাকে ছেড়ে না দেওয়ায় ১৫ জুন থেকে সরকার সমর্থক দলের ডাকে জেলায় অনির্দিষ্টকালের সড়ক ও নৌপথ অবরোধ চলে। পাহাড়ে বিভিন্ন এলাকায় যৌথ বাহিনীর উদ্ধার অভিযানে সন্দেহভাজন ৫জনকে আটক করা হয়েছে। এঘটনায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) জেলা শাখার সভাপতিসহ ৩৮ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করে।

মংপু মার্মাকে জীবত উদ্ধারের দাবীতে এবং পাহাড়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) এর সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অপহরণ, চাঁদাবাজি বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। ২৩ জুন বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে আওয়ামীলীগের দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি বিভিন্ন স্তরের শত শত নারী পুরুষ প্লেকার্ড, ব্যানার এবং ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়। আওয়ামীলীগ মাসব্যাপী হরতাল, অবরোধ, সমাবেশ করে।

রাজধানীর গুলশানে স্প্যানিশ রেঁস্তোরা হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিনের মৃত্যুতে বান্দরবানে বম সম্প্রদায়ের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। রুমা এলাকায় বম সম্প্রদায় থেকে বিয়ে করাই জামাই হিসেবে এলাকায় বেশ পরিচিত ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে রুহের মাগফেরাত কামনা করে ২ জুলাই গির্জায় গির্জায় চলে বিশেষ প্রার্থনা।

৫ জুলাই বান্দরবানে রোয়াংছড়ির তালুকদার পাড়াই চাঁদার টাকা ভাগাভাগি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) দুই গ্রুপের সংঘর্ষে বিমল চাকমা (৩০)সহ আরো দুইজন চাঁদাবাজ আহত হয়। জেএসএসের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আতঙ্কে তারাছা তালুকদার পাড়ার নারী ও শিশুসহ অর্ধশতাধিক লোকজন ঘরবাড়ি ছেড়ে জেলা শহরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলগুলোতে অবস্থান নেয়।
বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের ভয়ে ৭০ পাহাড়ী পরিবার ঘরছাড়া হয়ে মানবেতর জীবনযান করে। সন্ত্রাসীদের আটক ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের দাবীতে রবিবার বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। পরে প্রশাসনের আশ্বাসে এবং অস্থায়ী সেনা ক্যাম্প স্থাপন করা হলে ১১ জুলাই ৭০ পরিবার পাড়ায় ফিরে।

১ আগষ্ট জঙ্গি ও রাষ্ট্রবিরোধী কাজে অর্থায়নে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩ পাহাড়ীর ব্যাংক হিসাব জব্দ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। অভিযুক্তরা হলেন- ডা. রান উইন সো, মং প্রু চিং মারমা, চিংনু মারমা। সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে জানাযায় অভিযুক্তদের হিসাব খোলার ফরম, কেওয়াইসি প্রোফাইল ফরম, হিসাব বিবরণী ও আনুষঙ্গিক কাগজপত্র বাংলাদেশ ব্যাংকের সংলিষ্ট কর্মকর্তার নিকট পাঠাতে নির্দেশ দেয়া হয়।
অভিযুক্তদের মধ্যে ডা. রেনিন উইন সো এবং মং প্রু চিং মারমার চট্টগ্রামের দোভাসি বাজারের ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংকে এবং চিংনু মারমার রাঙ্গামাটি কৃষি ব্যাংকের শাখায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ডা. রেন উইন সো, মং প্রু চিং মারমা, চিংনু মারমার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইন ২০০৯ এর ৬(১)/৭/১০/১৪ ধারা অনুযায়ী ২০১৫ সালের ৮ আগস্ট রাঙ্গামাটি পুলিশ একটি মামলা দায়ের করে। মামলায় বলা হয়, এই তিন ব্যক্তি জঙ্গি ও রাষ্ট্র বিরোধী কাজে অর্থায়নের সাথে জড়িত।

এদের অর্থের উৎসের সন্ধানে রাঙ্গামাটি পুলিশের তরফ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দেওয়া হয়। পুলিশের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট চট্টগ্রামের বিভিন্ন ব্যাংক তালাশ করে অভিযুক্ত ৩ জনের ব্যাংক হিসাব খুঁজে বের করে।

কক্সবাজার শহরের উইমাতারা বৌদ্ধ মন্দিরে উপেদিতা ভিক্ষুর উপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত ভিক্ষু মংয়াইন (৪৫) ১৪ জুলাই বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের দরদরী সুনন্দ বৌদ্ধ বিহার থেকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশের তথ্যানুসারে, বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কক্সবাজার শহরের উইমাতারা বৌদ্ধ মন্দিরের কর্তৃত্ব নিয়ে উপেদিতা ভিক্ষুকে কুপিয়ে জখম করে তার আরেক অনুসারী মংয়াইন।

১৭ জুলাই বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নের লুলাইং পাড়ায় সনাতনী ধর্মাবলম্বী ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগে বিকাশ (যীশু) ত্রিপুরা (২৮) আটক করে পুলিশ। নিহত খোকন নাথ (৩৫) চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার কলাউজান এলাকার সুধাংশু নাথের ছেলে।

২৪ আগষ্ট বান্দরবানের থানচিতে একটি যাত্রীবাহী জীপে তল্লাসী চালিয়ে মায়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গ্রুপ আরাকান আর্মীর (এএ) সক্রিয় সদস্যসহ ৬জনকে আটক করে বিজিবি। অভিযান চালিয়ে কিছু সামরিক ইউনিফরম, বুলেট প্রুপ জ্যাকেট, ক্যামেরা, নতুন মোবাইল সেট, অব্যবহৃত সীম কার্ড এবং বিপুল পরিমাণ ওষুধ ও কাপড় উদ্ধার করে বিজিবি।

১৯ আগষ্ট বান্দরবানে রাম জাদি মন্দিরে পর্যটক ও বান্দরবান সরকারী কলেজের প্রভাষকের উপর হামলা চালিয়েছে বৌদ্ধ ভিক্ষু উচহ্লা ভান্তের শিষ্যরা। বান্দরবান সরকারী কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক বিজয় ভৌমিক তার স্ত্রী সন্তান ও ভাই,বৌদিকে নিয়ে রাম জাদি মন্দিরে পুজা দেয়ার উদ্দেশ্য ১৫ টাকার টিকেট কেটে মন্দির এলাকায় প্রবেশ করে। মূল মন্দিরে পুজার উদ্দেশ্য প্রবেশ কালে বাঁধা দেয় বৌদ্ধ ভিক্ষু উচহ্লা ভান্তের শিষ্য শোভনা প ঞা প্রকাশ কালা ভান্তে। পরে তারা মারধর করে।

১৮ সেপ্টেম্বর বান্দরবান ডিবি পুলিশ নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের বরখাস্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো.তোফায়েল আহমদ ও পার্বত্য নাগরিক পরিষদের আহবায়ক আতিকুর রহমানকে আটক করে। আদালত সূত্র জানায়, আটক মো.তোফায়েল আহমদ ও আতিকুর রহমানের বিরুদ্ধে সন্ত্রস দমন আইনে মামলা করে ডিবি পুলিশ। সোমবার বিকেলে তাঁকে জেলা সদরের সিনিয়র বিচারিক হাকিম তাহমিনা আফরোজের আদালতে হাজির করে জামিনের আবেদন করা হয়। আদালত জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

পর্যটকদের জন্য ১৫ নভেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি ‘বুদ্ধ ধাতু জাদি’ বা স্বর্ণ মন্দির পরিদর্শন শেষে খুলে দেয়া হয়। স্থানীয় প্রশাসন ও মন্দির কর্তৃপক্ষ আলোচনার পর অবশেষে পর্যটকদের জন্য বুধবার থেকে খুলে দেয় হয় মন্দিরটি। মন্দিরের পবিত্রতা রক্ষায় গত ফেব্রুয়ারিতে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল কর্তৃপক্ষ মন্দির কর্তৃপক্ষ। বান্দরবান কেন্দ্রীয় বৌদ্ধবিহারে কঠিন চীবরদান উৎসবে মতবিনিময় সভায় স্বর্ণ মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা জোত মহাথেরো উচহ্লা ভান্তে এ ঘোষণা দেন।

৬ নভেম্বর রাঙ্গামাটি-মায়ানমার সীমান্তে বড়থলি ইউনিয়নে স্থল মাইন বিস্ফোরণে তিনজন পাহাড়ী আহত হন। ইউনিয়নের জারুলছড়ি এলাকায় স্থল মাইন বিস্ফোরণে রিংরাউ ম্রো ও পুইকুয়ে নাং খুমি ও কুলে খুমি আহত হন।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *