স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার হলফনামায় যা তুলে ধরলেন


নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি:

রাঙামাটির ২৯৯নং আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার পুনরায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে একাদশ সংসদ জাতীয় নির্বাচন করবেন।

ঊষাতন পাহাড়ের অনিবন্ধিত আঞ্চলিক দল জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু  লারমা) নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

এবারে আসন্ন একাদশ সংসদীয় নির্বাচনে হলফনামায় তিনি তার সম্পদের পরিমাণ তুলে ধরেছেন।

জেলা নির্বাচন অফিসে জমা দেওয়া হলফনামা মূলে জানা যায়, রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার বিএ অনার্স পাস দেখিয়েছেন। তবে তিনি কোন বিষয়ে অনার্স পাস করেছেন তা হলফনামায় উল্লেখ ছিলো না।

বর্তমান এ সংসদ সদস্যর নামে কোনো ফৌজদারি মামলা না থাকলেও তার নামে অতীতে  রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় ২০০৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা ছিলো। মামলা নং ০৪।  মামলার ধারা ছিলো- ৩২৬, ৩০৭ এবং ৩৪দণ্ডবিধি। রাঙামাটি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে মামলাটি থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন।

আয় হিসেবে যা দেখিয়েছেন:  কৃষিখাতে বাৎসরিক আয় ৩লাখ টাকা, ব্যবসা ক্ষেত্রে ৬ লাখ টাকা, নির্ভরশীলদের আয় ৩লাখ টাকা, সংসদ সদস্য হিসেবে পারিতোষিক ও ভাতা ২৬লাখ ২৯হাজার ২০টাকা

অস্থাবর সম্পত্তি যা দেখিয়েছেন: নগদ নিজের নামে ৩লাখ টাকা, স্ত্রীর নামে ১লাখ টাকা, নির্ভরশীলদের নামে ৫০হাজার টাকা, ব্যাংকে নিজের নামে জমাকৃত ৭১৫৭টাকা, স্ত্রীর নামে জমাকৃত ৫৭৪৪টাকা, সঞ্চয়পত্রে নিজের নামে ৩০হাজার টাকা, স্ত্রীর নামে ১১লাখ ৯৯হাজার ৮২টাকা, ইলেকট্রনিক্স সামগ্রীর মূল্য- ৩লাখ  টাকা এবং নিজ ঘরের আসবাবপত্রের মূল্য ৩লাখ টাকা।

স্থাবর সম্পত্তি যা দেখিয়েছেন: নিজের নামে ১০.০একর, যা আনুমানিক মূল্য ১লাখ টাকা, স্ত্রীর নামে ০৯.০ একর, যা আনুমানিক মূল্য ৩লাখ টাকা, যৌথ মালিকানায় ১২ শতক এর মধ্যে ভাগে পাওয়া ৪শতক যা আনুমানিক মূল্য ৫লাখ টাকা। তার নামে রাঙাপানি মোটর্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান আছে।  যা আনুমানিক মূল্য ৮লাখ টাকা।

সংসদ সদস্য হিসেবে প্রতিশ্রুতি সমূহ হলো: পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন, কাপ্তাই বাঁধের পানি নিয়ন্ত্রণ, আত্মকর্মসংস্থান ও স্বাস্থ্য সেবা এবং গণমূখী ও পরিবেশমূখী উন্নয়ন।

অর্জন সমূহগুলো হলো: চুক্তিবাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সরকার জোড়ালো উদ্যোগ নিয়েছে। জলে ভাসার জমি চাষযোগ্য করার ক্ষেত্রে ৮০ভাগ পানি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। আত্মকর্মসংস্থান উদ্যোগসহ অত্রাঞ্চলে ৮০ভাগ স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। অত্র এলাকায় গণমূখী এবং পরিবেশমূখী উন্নয়নের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *