সরকার পার্বত্য চুক্তি অনুযায়ী প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে মাতৃভাষায় পাঠদানের পদক্ষেপ নিয়েছে: কংজরী চৌধুরী


নিজস্ব প্রতিবেদক,খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেন, সরকার পার্বত্য চুক্তি অনুযায়ী বিগত শিক্ষা বছর থেকে প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে মাতৃভাষায় পাঠদানের পদক্ষেপ নিয়েছে। আসন্ন শিক্ষাবর্ষে প্রশিক্ষিত শিক্ষকও নিশ্চিত করা হবে। কিন্তু শিক্ষকরা-বিভাগীয় কর্মকর্তারা যদি আন্তরিক হোন, তাহলে পাহাড়ের শিশুরা মাতৃভাষায় দক্ষ হয়ে উঠবে।

তিনি মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) খাগড়াছড়িতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিভাষিক শিশুতোষ বইসহ পাঠ্যক্রমিক হিসেবে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে শহরের পর্যটন হল রুমে অনুষ্ঠিত পরামর্শ  সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

জাবারাং-এর নির্বাহী পরিচালক মথুরা বিকাশ ত্রিপুরার সভাপতিত্বে পরামর্শ সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন, সেভ দ্যা চিলড্রেন’র প্রকল্প উপ-পরিচালক আকিদুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সভাপতি জীতেন বড়ুয়া।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন “বাংলাদেশ চিলড্রেন বুক ইনিসিয়েটিভ” প্রকল্পভুক্ত লক্ষীছড়ি, মানিকছড়ি, রামগড় ও মহালছড়ি উপজেলার উপজেলা শিক্ষা অফিসারবৃন্দ, উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টরবৃন্দ, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারবৃন্দ, বিশিষ্ট সাংবাদিকগণ, প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকগণ, বিদ্যালয় ব্যবস্থা কমিটির প্রতিনিধিবৃন্দ এবং বিশিষ্ট ভাষা কমিটির সদস্যবৃন্দ।

সভায় সেভ দ্য চিলড্রেন এর প্রকল্প ব্যবস্থাপক দেবপ্রিয় চাকমা বলেন, দ্বিভাষিক শিশুতোষ বইয়ের প্রয়োজনীয়তা এবং সংগ্রহের উপায় বিষয়ে আলোচনা করেন। উন্নয়নকর্মী ডালিম কুমার ত্রিপুরা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দয়ানন্দ ত্রিপুরা।

সভায় মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, মানিকছড়ি সুভাশীষ বড়ুয়া, চাকমা ভাষা কমিটির সদস্য আনন্দ মোহন চাকমা, উন্নয়নকর্মী মো মো সে, মানিকছড়ির সহকারী শিক্ষা অফিসার জবরুত খান, রামগড় উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মিলিচিং মারমা,  মানিকছড়ির এসএমসি সভাপতি জুলফিকার আলী, প্রধান শিক্ষক সন্দীপন চাকমা, সংবাদকর্মী প্রদীপ চৌধুরী এবং সমাজকর্মী জগদীশ ত্রিপুরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *