লামায় বাল্য বিয়ে ঠেকাতে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা


lama

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বান্দরবানের লামায় ৭ম শ্রেণির মাদ্রাসার ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। শনিবার বিকালে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ইয়াছমিন আক্তার আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন লামা থানার পরিদর্শক জাহেদ নুর।

সূত্র জানায়, লামার গজালিয়া ইউনিয়নের সাপমারা ঝিরি এলাকায় ১৩ বছরের মাদ্রাসার ছাত্রী ইয়াছমিন আক্তার বাল্য বিবাহ ঠেকাতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

মাদ্রাসার ছাত্রীর মা শফিকা বেগম(৩৯) জানিয়েছেন, তিন ভাই বোনের মধ্যে ইয়াছমিন একমাত্র কন্যা সস্তান। ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা হতে সপ্তম শ্রেণীর বার্ষিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। শুক্রবার সকালে পাশ্ববর্তী এক যুবকের সাথে বিয়ের প্রস্তাব আনে। এনিয়ে মা-মেয়ের ঝগড়া হয়। পরে বিয়ের প্রস্তাবে ক্ষুদ্ধ হয়ে এবং এর প্রতিবাধ জানিয়ে শনিবার বিকেলে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এসময় মা বাড়ী ছিলেন না বলে জানান।

পুলিশ সাংবাদিকদের জানান, আত্মহত্যার বিষয় ছাড়া অন্য কিছু না পেয়ে লাশ পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *