লামায় পারিবারিক ঘটনার সংঘর্ষে পুলিশ ও ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯জন আহত


লামা প্রতিনিধি:

লামায় একটি পারিবারিক বিবাদকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে পুলিশ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সহ-সভাপতি সহ ৯জন আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় মো. শাহারাজ উদ্দিন ড্রাইভারকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

জানা গেছে, পৌর সদরের চেয়ারম্যান পাড়ার শাহারাজ ড্রাইভারের ছেলে মো. শাহেদ (২৭) এর সাথে তার স্ত্রীর বনিবনা হচ্ছিল না। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে চেয়ারম্যান পাড়ায় হামলা ও পাল্টা হামলা হয়। লামা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেন এর নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স ও স্থানীয় জনসাধারণের হস্তক্ষেপে সংঘর্ষ থেমে যায়। এ ঘটনায় ৫জন আহত হয়। আহতরা হলো- মো. নাহিদ(১৯), মো. রাসেদ (১৮), মো. মাহফুজ (১৮), মো. সাহেদ (২৭), দিলারা বেগম (৪০)। গুরুতর আহত মো. নাহিদকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

লামা পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর জোছনা বেগম জানিয়েছেন, সংঘর্ষে আহত লোকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদানে শাহেদের স্ত্রী পক্ষের লোকজন বাধা দিলে পুলিশ দুই বাধা প্রদানকারীকে দাঁড় করিয়ে রাখে। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন, পুলিশের সাথে কিছু লোক কথা কাটাকাটি করতে থাকলে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ লোকটিকে চলে যেতে বলে। এতে পুলিশ উত্তেজিত হয়ে তাকে বেদম মারধর করে। আমি ছাড়াতে চাইলে আমাকেও মারধর করে। আহত সভাপতি ও সহ-সভাপতিকে লামা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

লামা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, হাসপাতালে আহত রোগীকে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদানে বাধা প্রদান করায় পুলিশ হস্তক্ষেপে চিকিৎসা করানো হয়। এ সময় পুলিশের উপরও হামলা হয়েছে। আহত দুই কন্সটেবল ফয়েজ আহমদ (২৫) ও মোজ্জাম্মেল হককে জরুরি বিভাগ থেকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *