লক্ষ্মীছড়িতে জেলা পরিষদ বৃত্তি পরীক্ষায় ২টিস্কুলের শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারেনি


nMo9[o[Õ[oÕলক্ষ্মীছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় জেলা পরিষদ বৃত্তি পরীক্ষায় মংহলা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং জারুলছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ২০জন গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিতে পারে নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জারুলছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক পরশ মাহমুদ শিমুল সাংবাদিকের কাছে অভিযোগ করেন, তালিকা দেয়ার ঠিক একদিন আগে খবর পেয়ে দ্রুত কাগজ পত্র প্রস্তুত করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিয়েছি। কিন্তু আজকের শুরু হতে যাওয়া বৃত্তি পরীক্ষার তালিকায় রোল নাম্বার না আসায় ছেলে-মেয়েরা হতাশ হয়েছে।

এদিকে মংহলা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রীফ মারমা জানান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে কোনো চিঠি পত্র পাইনি। পরে খবর নিয়ে তালিকা দিলেও সেটি বাতিল হয়ে গেছে মর্মে জানানো হয়। এ বিষয়ে কথা হয় পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক ইউএনডিপি প্রজেক্টের স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তা সুশান্ত চাকমার সাথে তিনি বলেন, বিষয়টি আমাদের আগে জানানো হলে হয়ত ভাল কোনো সমাধানের পথ বের হতো। আর এখন তো যথারীতি পরীক্ষা শুরু হয়ে গেছে। তাদের অংশ গ্রহণ করার আর কোনো সুযোগ নেই বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সারওয়ার ইউসুফ জামাল জানান, প্রতিটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তালিকা চেয়ে পত্র দেয়া হয়েছে, কিন্তু যথা সময়ে তালিকা না আসায় ওই স্কুল দু’টির শিক্ষর্থীরা এই বৃত্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়া থেকে বঞ্চিত হলেন। তাহলে গাফিলতি কার এমন প্রশ্নের জবাবে, আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করেছি প্রতিটি স্কুলের তালিকা দেয়ার জন্য।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতি বছরের মত এবারো পার্বত্য জেলা পরিষদ গরীব ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তি দেয়ার লক্ষ্যে নিজস্ব পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিয়ে থাকে। অংশ গ্রহণ পরীক্ষার্থীদের মধ্য হতে মেধা যাচাইয়ের বিত্তিতে শতকরা ৩০ভাগ শিক্ষার্থীদেরকে লেখা-পড়ার খরচ হিসেবে উপবৃত্তির আওতায় আনা হয়। শনিবার বেলা ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত ৫টি বিষয়ে ১০০ নম্বরের ৩ঘন্টার পরীক্ষা চলে। ।

১৯টি বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ১’শ ৯৮ জন ছেলে-মেয়ে পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা থাকলেও অনুপস্থিত ছিল ১১জন। এদিকে ৭ম শ্রেণীর ৯২জন অংশ নেয়ার কথা থাকলেও উপস্থিত ছিলেন ৭২ জন। পর্যাপ্ত পুলিশী পাহাড়ায় লক্ষ্মীছড়ি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মডেল হাইস্কুলে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *