লংগদুতে মৎস্যজীবীদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা


লংগদু প্রতিনিধি:

কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরা বন্ধের সময় দুঃস্থ ও প্রকৃত জেলে পরিবারের মাঝে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর কর্তৃক মৎস্য ভিজিএফ এর ৪০ কেজি চালের বিপরীতে ১০ কেজি চাল বরাদ্দের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে লংগদু উপজেলার মৎস্য জীবীরা।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশের অন্যান্য এলাকায় মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধের সময় জেলেদের জন্য মাসে ৪০ কেজি হারে ভিজিএফ চাল প্রদান করা হয়। একই মন্ত্রণালয়ের অধীন হওয়া সত্ত্বেও কাপ্তাই হ্রদের মৎস্যজীবীদের জন্য কেন মাসে ১০ কেজি করে চাল বরাদ্দ করা হয়েছে।

গত ২০১৬ সালে এই জেলেদের জন্য মাসে ২০ কেজি চাল বরাদ্দ করেছিলো। ২০১৭ সালে দূর্যোগের কারণে কোন বরাদ্দই দেয়া হয়নি। ফলে তিন মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধের সময় জেলে পরিবারগুলোকে নিদারুণ দুঃখ কষ্ট করে চলতে হয়েছে। কেন একই দেশে জেলেদের জন্য দুই ধরনের নিয়ম করা হবে।

কাপ্তাই হ্রদের জেলে পরিবারদের কষ্ট লাঘবের জন্য ১০ কেজির পরিবর্তে মাসে অন্তত ৩০ কেজি ভিজিএফ চাল বরাদ্দের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেলে পরিবারের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার (২১ জুন) লংগদু উপজেলা পরিষদের সামনে উপজেলা মৎস্যজীবী পরিবারবর্গের উদ্যোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করা হয়। লংগদু একতা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি মো. ইমাম হোসেন এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন, জেলা যুবলীগের সদস্য মো. নজরুল ইসলাম, একতা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. কামাল হোসেন।

এক ঘন্টার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে মৎস্যজীবী নেতৃবৃন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহ্দী ইমাম স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন।

নিউজটি লংগদু বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *