রোহিঙ্গা সংকটের দায় নিতে হবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে: পুতিনকে সৌদি বাদশাহ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সৌদি আরবের বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ বলেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিয়ে যা হচ্ছে, তার দায় নিতে হবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে। বৃহস্পতিবার রাশিয়ায় সফররত বাদশা সালমান রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের সময় এ কথা বলেন।

মিয়ানমার দেশটির সেনাবাহিনীর অভিযান ও উগ্র বৌদ্ধদের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলানদের জাতিগত নিধন, নির্বিচারে নির্যাতন ও তাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার ফলে ৫ লাখের বেশি রোহিঙ্গার বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ার পর সোচ্চার হতে দেখা যায়নি সৌদি আরবকে। রাশিয়াও রোহিঙ্গা ইস্যুটি মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলেছে। তবে প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাদশা সালমানের আলোচনা বিশেষ গুরুত্ব বহন করে।

এদিকে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে সৌদি বাদশাহ আলাপকালে সিরিয়ায় সন্ত্রাস দমনের বিষয়টি অগ্রাধিকার দিয়েছেন। বাদশাহ ইরাক থেকে কুর্দিস্তানের স্বাধীন হওয়ার বিষয়ে বলেন, অবশ্যই ইরাকের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে হবে। তার বক্তব্য রাশিয়ার টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। এ সময় তিনি সিরিয়ার অখ-তার কথাও বলেন। সিরিয়া যেন খ- বিখ- না হয়, সে জন্য রাশিয়ার সহযোগিতা চান বাদশা।

একই সঙ্গে সৌদি বাদশাহ রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনার ব্যাপারে রাজি হয়েছেন বলে তুরস্কের মিডিয়া ইয়েনিসাফাক বলছে। সৌদি আরব তার সামরিক শিল্প উন্নয়নে রাশিয়ার সঙ্গে একটি সমঝোতা স্বাক্ষর করেছে। দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ছাড়াও করনেট-ইএম সিস্টেম, টিওএস-ওয়ান এ ও কালাসনিকভ একে-১০৩ রাইফেল সহ বিভিন্ন রুশ অস্ত্রশস্ত্র কিনবে সৌদি আরব।

রুশ মিডিয়া স্পুটনিক বলছে, সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবায়ের বলেন, মস্কো ও রিয়াদ সিরিয়ার অখ-তা বজায় রাখার ব্যাপারে একসাথে কাজ করবে। এছাড়া প্রেসিডেন্ট পুতিন সৌদি আরব সফরের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন বলে আদেল জানান। তিনি আরো জানান, তেলের বাজার স্থিতিশীল রাখতে দু’টি দেশ অব্যাহতভাবে কাজ করে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *