রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মাসিক সভা


রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এর মাসিক সভা সোমবার (১৮ডিসেম্বর) সকালে অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সভা কক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। পরিষদের জনসংযোগ কর্মকর্তা অরুনেন্দু ত্রিপুরার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য এবং হস্তান্তরিত বিভাগের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, কর্মকর্তারা যদি দাপ্তরিক কাজে দক্ষ হয় তাহলে জেলা তথা দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয় এবং সরকারের সুনামও বৃদ্ধি পায়। তিনি বলেন, সরকার আমাদের নিয়োগ দিয়েছেন জনগণের কল্যাণের স্বার্থে। পরিষদের হস্তান্তরিত বিভাগের সকল কর্মকর্তাদের সততার সাথে জনকল্যাণে স্ব স্ব দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন তিনি। জনগণের উন্নয়নের স্বার্থে পরিষদের সকল কার্যক্রমে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন চেয়ারম্যান।

সভায় সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদার বলেন, সরকারের আন্তরিকতায় ২০২২ সালের মধ্যে জেলার ৯টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোকে ১০শয্যা থেকে ৫০বেডে উন্নীত করা হবে। ইতোমধ্যে কাউখালী, কাপ্তাই, বিলাইছড়ি ও রাজস্থলীতে কার্যক্রম শুরু হয়ে গেছে। বাকী উপজেলা গুলোর কার্যক্রমও শুরু হবে।

তিনি সভাকে অবহিত করেন, চলতি বছরে জেলায় ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত কোন রোগী মারা যায়নি। এটি সম্ভব হয়েছে মাঠকর্মী ও চিকিৎসকদের আন্তরিকতার কারণে। তিনি বলেন, আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে জেলার ৭৭ হাজার ৮৩০জন শিশুকে ক্যাপসুল খাওয়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, জেনারেল হাসপাতাল ও বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জায়গা দখলের বিষয়ে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের অবগত করা হয়েছে।

সভায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী অসিউর রহমান জানান, পানি সাপ্লাই ও লিকেজের মেরামতের কাজ নিয়মিতভাবে চলছে।

কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক পবন কুমার চাকমা জানান, আমন মৌসুমের ফসল কর্তনের কাজ প্রায় শেষ এবং টার্গেট অনুযায়ী অগ্রগতি হয়েছে। বর্তমানে চাষীরা বোরো মৌসুম বীজ সংগ্রহ এবং বোরো ধান রোপনের কাজ শুরু করেছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রওশন আলী বলেন, বিদ্যালয়গুলোতে বিতরণের লক্ষ্যে ২০১৮ সালের বই ইতোমধ্যে জেলায় পৌঁছে গেছে। বছরের প্রথম দিনে তা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হবে। তিনি বলেন, জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষকের শুন্যপদ পূরণের লক্ষে প্রার্থীদের কাছ থেকে নিয়োগপত্র গ্রহণের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

জেলা প্রাণীসম্পদ বিভাগের ভেটেরিনারি সার্জন দেবরাজ চাকমা বলেন, চলতি মাসের ১১ তারিখ প্রাণীসম্পদ বিভাগের মাসিক সভা শেষে সবকটি উপজেলায় ৩৫টি স্প্রে মেশিন প্রাণীসম্পদ বিভাগের ও পরিষদের সদস্য মি. রেমলিয়ানা পাংখোয়া কর্তৃক বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া চিকিৎসা ও উৎপাদন কার্যক্রম যথারীতি চলছে।

বিসিক-কুটির শিল্প উন্নয়ন কর্মসূচির সহকারী মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার ত্রিপুরা জানান, কুটিরশিল্প উন্নয়ন কর্মসূচির মধ্যে বস্ত্র বুনন, পোশাক সেলাই, বাঁশ বেতের পণ্য তৈরি, বাটিক, বুটিক, কম্পিউটার, প্লাষ্টিক ব্যাগ তৈরি সহ বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ চলছে।

জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা জানান, জেলার বরকল উপজেলায় গত ২০ ডিসেম্বর ব্যাটমিন্টন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়া জুরাছড়িতে মাসব্যাপী হ্যান্ডবল ও সদর উপজেলায় সাঁতার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

হর্টিকালচার সেন্টার বালুখালী, বনরুপা, লংগদু, নানিয়ারচর, আসামবস্তী ও কাপ্তাইয়ের উদ্দ্যানতত্ববিদরা জানান, বর্তমানে নার্সারিতে টার্গেট অনুযায়ী চারাকলম উৎপাদন ও বিক্রয় কার্যক্রম চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *