রবি মোবাইল কোম্পানীর চার প্রকৌশলী অপহৃত, সেবা বঞ্চিত রাঙামাটির বিস্তীর্ণ এলাকা


নিজস্ব প্রতিনিধি, রাঙামাটি:

পাহাড়ী সন্ত্রাসী কর্তৃক মোবাইল অপারেটর রবি কোম্পানীর চার প্রকৌশলীকে অপহরণ করে কয়েক কোটি টাকা চাঁদা দাবির প্রেক্ষাপটে রাঙামাটি জেলার একটি বিস্তীর্ণ এলাকায় বন্ধ হয়ে গেছে রবির মোবাইল সেবা।

এ চার প্রকৌশলীকে আরো এক সপ্তাহ আগেই অপহরণ করা হলেও ওই কোম্পানীর কর্মকর্তারা বিষয়টি কঠোরভাবে গোপন রাখায় অপহরণের বিষয়টি কেউ জানতে পারেনি।

গত মঙ্গলবার (২৭ মার্চ) খাগড়াছড়ি সদর থেকে রবি’র ওই চার প্রকৌশলী অপহৃত হন। তারা নেটওয়ার্কের বিষয় তদারকির জন্য বরকল যাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, পাহাড়ের আঞ্চলিক একটি সন্ত্রাসী সংগঠন রবি কোম্পানীর ওই চার প্রকৌশলীকে অপহরণের পর কয়েক কোটি টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে।

বরকল উপজেলার স্থানীয়রা জানান, অপহরণের আগে উপজেলায় গত ২৩মার্চ থেকে রবির নেট ছিলো না। অপহৃত ঘটনার পর থেকে গত ২৮মার্চ উপজেলার আইমাছড়া, ভূষণছড়া এবং বড় হরিণা ইউনিয়নে রবি নেট ছিলো না বলে জানান তারা।

এদিকে প্রকৌশলী অপহরণের পর রাঙামাটির বরকল উপজেলার বড় হরিণা, আইমাছড়া এবং ভূষণছড়া ইউনিয়নে গত ২৮মার্চ সকাল ১০টা থেকে রবির নেটওয়ার্ক বন্ধ হয়ে যায়।

নেটওয়ার্ক বন্ধ হওয়ায় কয়েকদিনেও নেটওয়ার্ক পুণস্থাপিত না হওয়ার পেক্ষাপটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে ব্যাপক হইচই হচ্ছিল। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে গিয়ে গোয়েন্দারা এই চার প্রকৌশলী অপহরণের বিষয়টি জানতে পারে।

সরকারি একটি দায়িত্বশীল সূত্র থেকে বিষয়টি আন অফিসিয়ালি স্বীকার করা হলেও রবি কোম্পনীর দায়িত্বশীল সূত্রগুলো এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানাতে অস্বীকার করেছে।

এদিকে বরকল উপজেলার বড় হরিণা ও ভূষণছড়া ইউনিয়নে ছয়দিন ধরে রবি’র নেটওয়ার্ক না থাকায় ওই এলাকার প্রায় ২০হাজার মানুষ যোগাযোগের সেবা থেকে বিছিন্ন হয়ে পড়েছে।

ব্যবসায়ী মহল থেকে শুরু করে স্থানীয়দের মধ্যে এ নিয়ে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। ওই এলাকায় মোবাইল অপারেটর রবি ছাড়া কোন কোম্পানীর নেটওয়ার্ক নেই।

ভূষণছড়া এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী হাসান জানান, আমাদের এলাকায় ছয়দিন ধরে নেটওয়ার্ক নেই। ব্যবসায়িক, ব্যক্তিগত কোন যোগাযোগ করতে পারছি না। জেলার সদরে মালামাল কিনতে এসেছি কিন্তু এলাকায় নেটওয়ার্ক না থাকায় পরিবার এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছি না।

একই এলাকার ব্যবসায়ী মেহেদি জানান, আমাদের এলাকায় এমনিতে বিদ্যুৎ নেই। এখন যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম মোবাইল নেটওয়ার্ক নেই। সোমবার রাঙামাটিতে এসেছি এখনও পরিবার এবং আমার এলাকার ব্যবসায়ীদের সাথে যোগাযোগ করতে না পারায় নানা সমস্যার সন্মুখীন হচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে উপজেলার ৪নং ভূষণ ছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ মামুন জানান, আমার এলাকায় ছয়দিন ধরে রবি’র নেটওয়ার্ক নেই। কি কারণে নেটওয়ার্ক নেই তা জানা নেই বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে মোবাইল অপারেটর রবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট (যোগাযোগ) মো. একরাম কবির জানান, আমাদের ফুয়েলের সংকট থাকায় এতদিন ধরে নেটওয়ার্ক ছিলো না। ফুয়েল সংকট দূর হলে সোমবার থেকে নেটওয়ার্ক সেবা চালু করা হবে। প্রকৌশলী গুমের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে রবি’র এ কর্মকর্তা বিষয়টি এড়িয়ে যান।

প্রসঙ্গত: সম্প্রতি এ বছরের মার্চ মাসের শুরুতে রাঙামাটিতে গ্রামীণ ফোনের তিনদিন নেটওয়ার্ক ছিলো না। খোজঁ নিয়ে জানা গেছে, পাহাড়ের আঞ্চলিক একটি সংগঠনকে গ্রামীণ ফোন চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় ওই সংগঠনটির সন্ত্রাসীরা রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় গ্রামীণ ফোনের নেটওয়ার্ক কেবল কেটে দিয়েছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *