মাতামুহুরীর তীরবর্তী জনপদের ভাঙ্গন ঠেকাতে ৪’শ কোটির মেগাপ্রকল্প


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার মাতামুহুরী নদীর ভাঙ্গন ঠেকাতে এবার ৪ শত কোটি টাকা বরাদ্দের মাধ্যমে একটি মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

ইতোমধ্যে প্রকল্পের অনুকূলে অর্থবরাদ্দ নিশ্চিতের মাধ্যমে কাজের অনুমতি দানের জন্য আবেদন জানিয়েছে কক্সবাজার পাউবো। সমীক্ষার মাধ্যমে পাউবো গতমাসে পানি সম্পদ মন্ত্রাণালয়ে এই চাহিদাপত্র প্রেরণ করেছে।

প্রকল্পের আওতায় দুইশত কোটি টাকা অর্থায়নে নদীর ৪০ কিলোমিটার এলাকায় ড্রেজিং এবং আরও দুইশত কোটি টাকা বরাদ্দে নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভাঙ্গন ঠেকাতে পাথরের ব্লকদ্বারা টেকসই প্রকল্প বাস্তবায়নের সুপারিশ করেছে। মন্ত্রাণালয় প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদে (একনেক) পাঠাচ্ছে বলে জানা গেছে।

একনেকে প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে মাতামুহুরী নদীর শাসন-সংরক্ষণের কাজ পুরোদমে শুরু করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সবিবুর রহমান।

মঙ্গলবার (৩ জুলাই) মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টের ভাঙ্গন এলাকা পরির্দশন করেছেন কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সবিবুর রহমান, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম।

ওইসময় উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী, সচিব মাস-উদ-মোর্শেদ, পৌরসভার কাউন্সিলর মকছুদুল হক মধু, কাউন্সিলর রেজাউল করিম, লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা কাইছার ও পাউবো চকরিয়া শাখা কর্মকর্তা তারেক বিন সগীর প্রমূখ।

পাউবো’র চকরিয়া শাখা কর্মকর্তা (এসও) তারেক বিন সগীর জানান, মাতামুহুরী নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধে বর্তমানে পাউবোর অর্থায়নে নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে পাথরের ব্লকদ্বারা টেকসই একাধিক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। তবে পর্যাপ্ত অর্থবরাদ্দ না থাকার কারণে সদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও অনেক এলাকায় কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যে সমীক্ষা চালিয়ে মাতামুহুরী নদী শাসন-সংরক্ষণে একটি মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছেন পাউবো। প্রকল্পের আওতায় অন্তত ৪০ কিলোমিটার এলাকায় ড্রেজিং (খনন কার্যক্রম) ও দুইশত কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষে অধিক ঝুঁকিপুর্ণ এলাকায় জরুরী ভিত্তিতে পাথরের ব্লকদ্বারা টেকসই উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সর্বশেষ গতমাসে মেগাপ্রকল্পটি বাস্তবায়নের অনুকূলে চাহিদা অনুযায়ী অর্থবরাদ্দ নিশ্চিতের আবেদন জানিয়ে কক্সবাজার পাউবো পানি সম্পদ মন্ত্রাণালয়ে চাহিদাপত্র প্রেরণ করেছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মাতামুহুরী নদীর ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন শেষে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম বলেছেন, দেশের অগ্রগতি উন্নয়ন ও জনগণের কল্যাণে সরকারের প্রতিটি মন্ত্রাণালয় কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছে। কিন্তু অনেক সময় কতিপয় নীতিমালার কারণে দুর্যোগ মুহূর্তে এলাকার উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন জরুরী ভিত্তিতে কাজ করতে পারেনা। বিশেষকরে পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রতি মুহূর্তে দুর্যোগের বিপরীতে কাজ করেন। সেখানে কোন একটি জায়গায় জরুরী ভিত্তিতে তাঁরা কাজ করতে সদিচ্ছা দেখালেও তা সম্ভব হচ্ছেনা। ফলে প্রকল্পের অর্থবরাদ্দ ও কাজ করার অনুমোদন নিতে নিতে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাটি আরও বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।

উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, জনগনের জানমাল ও সম্পদের সুরক্ষা নিশ্চিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জরুরী ভিত্তিতে দুর্যোগকালীণ সময়ে কাজ করতে হবে। সেইজন্য বিষয়টির আলোকে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয় ও দপ্তরকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *