মাটিরাঙ্গায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৭ আশ্রয় কেন্দ্র


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে ক্ষতিগ্রহস্তদের আশ্রয়ের জন্য মাটিরাঙ্গা পৌর সদরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে ৭ আশ্রয় কেন্দ্র খুলেছে প্রশাসন। ঝুকিপুর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে আসার আহবান জানিয়ে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে মাইকিং চলছে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে মাটিরাঙ্গার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। অনেকের ঘরবাড়ি পাহাড়ের ধসে পড়া মাটির নীচে চাপা পড়েছে। পাহাড় ধসে মাটিরাঙ্গা-তানাক্কাপাড়া সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সড়কটির অন্তত বিশ জায়গায় পাহাড় ধসে পড়েছে।

মাটিরাঙ্গা সদরের কাছাকাছি তপ্তমাষ্টারপাড়া যাওয়ার রাস্তার সেতু ভেঙে গেছে। পাহাড় ধসে তপ্তমাষ্টারপাড়া-কুলপাড়া ও সাপমারা এলাকার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের কথা নিশ্চিত করেছেন মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা।

তিনি বলেন, পাহাড় ধসে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বেশকিছু পরিবার ধনিরামপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

এছাড়া, সাপমারা বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তায় পার্বত্য জেলা পরিষদ নির্মিত সেতুর দুই পাশ দেবে গেছে বলেও জানান হিরনজয় ত্রিপুরা।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভীষণ কান্তি দাশ বলেন, বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটলেও বড় ধরনের কোন দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সকাল থেকেই আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে রয়েছি। ইতিমধ্যে ঝুকিপূর্ণ এলাকায় বসাবাসকারীদের সরে আসার জন্য বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হয়েছে। সাতটি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আশ্রয়কেন্দ্রগুলো খোলা থাকবে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *