ভাঙ্গনের কবলে রাইখালী পাহাড়ি কৃষি গবেষণাকেন্দ্র


কাপ্তাই প্রতিনিধি:

কাপ্তাই উপজেলায় অবস্থিত রাইখালী পাহাড়ি গবেষণাকেন্দ্র ব্যাপক ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কাপ্তাই পাহাড়ি গবেষণাকেন্দ্রটি রাইখালীতে ১৯৫৬ সালে স্থাপিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৭৬ সালে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কেন্দ্র  হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হয়। ৯৬ একর জায়গা জুড়ে পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রটি অবস্থিত।  পাহাড়ি গবেষণা কেন্দ্রটি রাইখালী নামক এলাকায় মনোরম পরিবেশে অবস্থিত।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ কেন্দ্রটি ৮টি ফলের জাত এবং ৯টি সবজির জাত উদ্ভাবন করে পার্বত্য এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগায়।

বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মহিদুল ইসলাম বলেন, গবেষণা কেন্দ্রটির পাশে নারানগিরি ছড়া অবস্থিত হওয়ার কারণে বিগত তিন/চার বছর যাবত ঐ ছড়া দিয়ে পাহাড়ি বর্ষার পানি প্রবাহিত হওয়ার ফলে গবেষণার বিভিন্ন দূর্লভ প্রজাতির ফসল ভাঙ্গানের মুখে বিলিন হয়ে গেছে। ব্যাপক ভাঙ্গনের ফলে ওই নারানগিড়ি ছড়াটি খাল তথা নদীর মত প্রসারিত হচ্ছে।

পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আলতাফ হোসেন বলেন, দেশের বৃহত্তম এ পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রটি ভাঙ্গনের কবল হতে বাঁচিয়ে রাখতে কৃষি মন্ত্রণালয়, পানি উন্নয়ন বোর্ড এর পক্ষ থেকে  দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। তা না হলে বিভিন্ন প্রজাতীর উদ্ভাবিত বিভিন্ন জাতের ফল ও সবজি হারিয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *