বান্দরবানে নতুন বছরে বই উৎসব


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

নতুন বছরের প্রথম দিনেই সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ন্যায় বান্দরবানেও পালন করা হয়েছে পাঠ্য পুস্তক উৎসব। শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দিয়ে এ উৎসব পালন করা হয়।

সোমবার(১জানুয়ারি) শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। সকালে বান্দরবান অরুণ সারকি টাউন হলে বই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা। এবারও সরকারিভাবে মারমা, চাকমা ও ত্রিপুরা ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ছাত্রছাত্রীদের মাতৃভাষায় পাঠ্যবই দেওয়া হয়েছে।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা জানান, শিক্ষার মান বৃদ্ধি করতে বীর বাহাদুর এমপির প্রচেষ্টা ও শিক্ষকদের সাথে ঘনঘন মত বিনিময় সভা করাই এবার জেলাভিত্তিক তালিকায় ৩১ নাম্বারে স্থান পেয়েছে। এতদিন বান্দরবান পার্বত্য জেলার শিক্ষার মান ৬৪ জেলার সর্বনিম্ন স্থানে ছিল। এবারে বিভাগ পর্যায়ে ৭ম স্থান এবং তিন পার্বত্য জেলায় শ্রেষ্ঠ স্থান অধিকার করেছে।

এসময় জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বনিক এর সভাপতিত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলী হোসেন, পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নুরুল আবছার, জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাস, ফিলিপ ত্রিপুরা, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রিটন কুমার বড়ুয়া, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সোমা রানী বড়ুয়া, প্রাথমিক-মাধ্যমিক স্কুলের কর্মকর্তা এবং ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

বান্দরবান জেলায় ১১৪৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ লাখ ৮৯ হাজার ২’শত ২৯ সেট পাঠ্যবই বিতরণ করা হবে। মারমা, চাকমা ও ত্রিপুরা ভাষায় প্রাক-প্রাথমিকে ২৩৮৮টি এবং প্রথম শ্রেণিতে ২৪২৩ ছাত্রছাত্রীদের পাঠ্যবই বিতরণ করা হবে। অন্যদিকে জেলার ৬৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৬লক্ষ ৯হাজার ২৫টি বই বিতরণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *