বাঙালীদের বয়কটের শর্তে সাজেকের মাচালং বাজার বয়কট তুলে নিলো উপজাতীয় সন্ত্রাসীরা


sajek-bazar

পার্বত্যনিউজ রিপোর্ট:

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা সাজেকের মাচালং বাজারটি বৃহস্পতিবার বয়কটের ডাক দিয়েছিল সাজেকে আধিপত্যে থাকা আঞ্চলীক সশস্ত্র সংগঠনটি আর এর দুদিন পরেই শর্ত সাপেক্ষে মাচালং বাজার বয়কট শিথিল করা হয়েছে বলেও খবর পাওয়া গেছে।

স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, মাচালং বাজারের অধিকাংশ ব্যবসায়ী উপজাতি হওয়ায় বয়কট করার দুদিন পরেই উপজাতী জনগণের কাছে শর্ত জুড়ে দিয়ে শিথিল করা হয় বাজার বয়কট। শর্তগুলো হলো: মাচালং বাজারে কোন বাঙ্গালী ব্যবসায়ীর দোকান থেকে কোন উপজাতি ক্রেতা কিছু ক্রয় করতে পারবে না, বাঙ্গালীর মোটর সাইকেল, সিএনজি এবং বাঘাইহাট জীপ সমিতির গাড়ীতে কোন উপজাতি চলাচল করতে পারবে না এমন শর্তে বয়কট তুলে নেওয়া হয় বলেও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

এমন শর্তে উপজাতীয় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে মালামাল ক্রয় করতে পারলেও যাতায়াতে বাড়তি ভাড়ায় চরম দূর্ভোগে পরে সাজেকের উপজাতীয় জনগণ। আর এর ফলে ৫০টাকার ভাড়া গুনতে হচ্ছে ১৫০টাকায় তার পরেও মিলছেনা পর্যাপ্ত যানবাহন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাজেকের শিজকমুখ এলাকার উপজাতি একজন জুম চাষীর সাথে কথা বললে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, আমরা সাধারণ মানুষ। আমাদের দিয়ে রাজনীতি করছে বহিরাগত কিছু সন্ত্রাসী। আমরা সাজেকের জনগণ পাহাড়ী বাঙ্গালী কিছু বুঝিনা আমরা সবাই শান্তিতে বসবাস করতে চায়, সরকার কি সন্ত্রাসীদের দমন করতে পারে না।

সরকার ইচ্ছা করলে সাজেকে একদিনেই সন্ত্রাস মুক্ত করতে পারে। সন্ত্রাসীদের জন্য জীপ গাড়ীতে চড়তে না পারায় আজকে আমাকে ৫০টাকার ভাড়া মোটর সাইকেলে করে ১৫০টাকা দিয়ে যেতে হয়েছে মাচালং বাজারে, এ ভাবে আর কিছুদিন চললে আমাদের না খেয়ে মরতে হবে।

এবিষয়ে বাঘাইহাট জীপ সমিতির লাইন কন্ট্রোলার রহিম বলেন, আমাদের সমিতির গাড়ীগুলো প্রতিদিনের মত বৃহঃস্পতিবার ও শুক্রবার মাচালং বাজারে হাটের দিন থাকায় সাজেক পর্যন্ত আমাদের লাইনের গাড়ি ছিল। কিন্তু দুইদিন ধরে আমাদের সমিতির গাড়ীতে কোন উপজাতি যাত্রী চলাচল করছে না, যার ফলে গাড়ীতে তেল খরচও উঠছেনা আর এজন্যই আমরা শুক্রবার বিকাল থেকে সমিতির লাইন বন্ধ রাখি যদি যাত্রী চলাচল করতে চায় আমরা গাড়ী চালাব।

এবিষয়ে নিরাপত্তাবাহিনী সূত্রে জানায়, এলাকায় কোন দুষ্কৃতকারী ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠী কোন রকম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তাদেরকে কঠোর হাতে দমন করা হবে এবং এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে নিরাপত্তাবাহিনী বিশেষ ভাবে প্রস্তুত আছে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *