প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালন করেন: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে বর্তমান সরকারের গৃহীত নানা উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাধীন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার লালন করেন বলেই মুক্তিযোদ্ধারা আজ দেশের সুর্য্য সন্তান হিসেবে স্বীকৃত, সম্মানিত। বতর্মান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আগামী জাতীয় নির্বাচনে শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় আনতে বীরমুক্তিযোদ্ধাসহ নেতাকর্মীদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান তিনি।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (১৭ আগস্ট) বিকালের দিকে মাটিরাঙ্গার আমতলীতে মাটিরাঙ্গা উপজেলা ও পৌর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ড আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খাগড়াছড়ি জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মো. রইচ উদ্দিন‘র সভাপতিত্বে শোক সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের জৈষ্ঠ্য সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা, সহ-সভাপতি কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম মোর্শেদ খান।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. তাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় শোকসভায় মাটিরাঙ্গা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মো. মনছুর আলী, বড়নাল ইউনিয়ন প মাটিরাঙ্গা পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. আবুল হাসেম, খাগড়াছড়ি জেলা সন্তান কমান্ডের সভাপতি মো. হারুন মিয়া, আমতলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. জমির আলী ভুইয়া, আমতলী ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি সঞ্জীব শর্মা, উপজেলা যুবলীগের সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াছ ও আমতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো. নুর নবী ডালিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক চন্দন কুমার দে, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাস চাকমা, যুগ্ম-সম্পাদক ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি এমএম জাহাঙ্গীর আলম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম খোন্দকার, তবলছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবদুল কাদের, আমতলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবদুল গনি, তাইন্দং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবীর, গোমতি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন লিটন ও গোমতি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: মনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুরের পর থেকেই বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানসহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল সহকাওে শোকসভা মঞ্চে আসতে শুরু করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *