পেকুয়া থেকে চাল ব্যবসায়ী অপহরণ, আটক-১


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার হারুনর রশিদ (২৬) নামের এক চাল ব্যবসায়ীকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। পরিবারের দাবি, বৃহস্পতিবার রাতে তাকে অপহরণ করার পর অজ্ঞাতস্থানে আটকে রেখে অপহরণকারী চক্র গতকাল শুক্রবার সকালের দিকে ভিকটিমের (অপহৃতের) মোবাইল থেকে দুইলাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করেছে। অপহরণের শিকার ব্যবসায়ী হারুনর রশিদ পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা মোস্তাক আহমদের ছেলে।

অপহৃতের ছোটভাই মোহাম্মদ তারেক শুক্রবার( ২৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় চকরিয়া থানায় বলেন, আগেরদিন রাতে তার ভাইকে পেকুয়া থেকে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে গিয়ে আটকে রেখেছে। গতকাল শুক্রবার(২৯ ডিসেম্বর) সকালে অপহরণকারীরা ভাইয়ের (অপহৃতের) মোবাইল ফোন থেকে তাকে অপহরণ করার কথা জানিয়ে মুক্তিপন চাইলে আমরা (পরিবার সদস্যরা) জানতে পারি।

তিনি বলেন, কথা মতো গতকাল শুক্রবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত অপহরণকারীদের দেয়া একাধিক বিকাশ নাম্বারে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা আমরা (পরিবার) দিয়েছি, কিন্তু উল্টো দাবিকৃত মুক্তিপন বাবত আরো ৭০ হাজার টাকা পাঠানোর জন্য হুমকি দিচ্ছে অপহরণকারীরা এমন অভিযোগ করেছেন অপহৃতের ছোটভাই মোহাম্মদ তারেক।

এ অবস্থায় আমরা বিকাশের মাধ্যমে আবারও টাকা পাঠাতে নাম্বার সন্ধান করি। তারা (অপহরণকারী) চকরিয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বহদ্দারকাটা স্টেশনের একটি বিকাশ এজেন্টের নাম্বার দেন। অন্য এলাকা থেকে ওই নাম্বারে টাকা দিয়ে বিষয়টি আমরা চকরিয়া ও পেকুয়া থানার ওসিকে অবহিত করি। পরে চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর সহায়তায় বহদ্দাকাটাস্থ মাতামুহুরী পুলিশের নেতৃত্বে বিকাশ এজেন্টের দোকানের সামনে অবস্থান করে পাঠানো টাকা উত্তোলনকালে মোহাম্মদ সেলিম নামের অপহরণকারী চক্রের এক সদস্যকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বিকাশে পাঠানো টাকা উত্তোলনকালে আটক সেলিম নামের অপহরণকারী চক্রের ওই সদস্যকে মাতামুহুরী পুলিশ ফাঁড়ি থেকে থানায় আনা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে পুলিশের একটিদল ঘটনার সাথে জড়িত অপহরণকারীদের গ্রেফতার ও অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধারে অভিযানে নেমেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *