পেকুয়ায় পাহাড় কাটার দায়ে জাপা নেতার স্কেভেটার জব্দ, আটক-১


pic
পেকুয়া প্রতিনিধি :
পেকুয়ার সংরক্ষিত পাহাড় কেটে মাটি বিক্রয় করার অভিযোগে একটি স্কেভেটার জব্দ করছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জব্দকৃত স্কেভেটারটি পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সহ সভাপতি শহিদুর রহমান ওয়ারেজীর মালিকানাধীন বলে জানা গেছে।

৫ অক্টোবর বুধবার পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রষ্ট মো. মারুফুর রশিদ খাঁনের নেতৃত্বে উপজেলা বারবাকিয়া ইউনিয়নের পাহাড়িয়াখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে পাহাড় কাটার সময় এ স্কেভেটার জব্দ করেন। দুপুর ১২ টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন তিনি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, জাপা নেতা শহিদুর রহমান দীর্ঘ দিন ধরে বারবাকিয়া ইউনিয়নের পাহাড়িয়াখালীসহ বিভিন্ন এলাকার বন বিভাগের সংরক্ষিত পাহাড় ও ব্যক্তির মালিকানাধীন পাহাড় জোরপূর্বক স্কেভেটার দিয়ে কেটে মাটি বিক্রয় করে আসছেন। রহস্যজনক কারণে বনবিভাগের বারবাকিয়া রেঞ্জের কর্মকর্তারা এভাবে পাহাড় কেটে সাবাড় করার ব্যাপারে কোন ধরনের ব্যবস্থা নেননি। ওই জাপা নেতা পাহাড় কেটে মাটি বিক্রয় করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

পরে ইউএনও সঙ্গী ফোর্স নিয়ে টইটং ইউনিয়নের বিভিন্ন পাহাড়ী ছড়া থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে স্তুব করাও জব্দ করেন। এসময় পাহাড়ের মাটি ও বালু পরিবহনের দায়ে কয়েকটি ডাম্পার ট্রাকের চাবি জব্দ করছে ভ্রাম্যবান আদালত। এ ছাড়াও পেকুয়া সদর ইউনিয়নের বাঘগুজারা রাবার ড্যামের পাদদেশ থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে শহিদুল ইসলাম (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। সে একই ইউনিয়নের পূর্ব মেহেরনামা এলাকার খলিলুর রহমানের পুত্র। ওই দিন বিকালে ইউ এনওর কার্যালয়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে আটককৃত ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে মুছলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে জব্দকৃত গাড়ীর চাবি গুলো এখনো ফেরত দেওয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মারুফুর রশিদ খাঁন জানান, পাহাড় কাটা ও পাহাড়ী ছড়া থেকে বালু উত্তোলন বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। পরিবেশের ক্ষতি করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *