পার্বত্যাঞ্চলে আনসার ও ভিডিপিকে আলাদা মূল্যায়ন করার দাবি


লংগদু প্রতিনিধি:

বর্তমান ডিজিটাল তথ্যপ্রযুক্তির যুগে আনসার ভিডিপি’র সদস্যদের সুযোগ সুবিধার আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে আনসার ভিডিপি’র সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশের তিন পার্বত্যাঞ্চলে আনসার ও ভিডিপিকে আলাদাভাবে মূল্যায়ন করা প্রয়োজন। কারণ তারা নিয়মিত সকল বাহিনীর সাথে এলাকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাসহ সকল কাজে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। আনসার ভিডিপি সদস্যরা এলাকার মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস, চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধেও কাজ করছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুন), লংগদু উপজেলা আনসার ও ভিডিপি’র কার্যালয়ের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা এ দাবি জানান।

লংগদু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহ্দী ইমাম এর সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হোসেন।

উপজেলা আনসার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি জেলা আনসার ও ভিডিপির সার্কেল এ্যডজুট্যান্ট মো. মিজানুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরজাহান বেগম, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা সুকুমার বড়ুয়া, লংগদু থানার এস আই দুলাল হোসেন পিপিএম। এছাড়া উপজেলা আনসার ভিডিপির ইউনিয়ন পিসি এমাদুল হক, আটারকছড়া ইউনিয়ন ভিডিপি মহিলা দলনেত্রী কহিনুর বেগম প্রমুখ।

সমাবেশে প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হোসেন বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তির ফলে তিন পার্বত্য জেলায় আনসার ও ভিডিপিদের অস্ত্র প্রত্যাহার করা হয়েছে। কিন্ত শান্তি বাহিনীরা প্রকৃত আসল অস্ত্র জমা দেয়নি। সন্তু বাহিনীর সদস্যরা অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত। সে সব অস্ত্র দিয়ে তারা প্রতিনিয়ত পার্বত্য চট্টগ্রামে গুম, খুন, চাঁদাবাজি আর সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করে যাচ্ছে। আমি সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি গ্রাম প্রতিরক্ষার জন্য আবারও আনসার ও ভিডিপিদের অস্ত্র ফিরিয়ে দেওয়া হোক এবং কমপক্ষে পনের হাজার টাকা তাদের বেতন ভাতা হোক।

শেষে  অতিথি বৃন্দের নিকট থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন, পিসি আমিরুল ইসলাম ও আটারকছড়া ভিডিপি মহিলা দলনেত্রী কোহিনুর বেগম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *