পানছড়িতে প্রতিপক্ষের হামলায় শ্রমিকলীগ ও যুবলীগের দুই নেতা গুরুতর আহত


পানছড়িতে প্রতিপক্ষের হামলায় শ্রমিকলীগ ও যুবলীগের দুই নেতা গুরুতর আহত, প্রতিবাদে বিক্ষোভ, থমথমে পরিস্থিতিতে দোকানপাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ির পানছড়িতে প্রতিপক্ষের হামলায় শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হেলাল(৩২) ও যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শফিকুর রহমান(৩০) গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে একজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়।

প্রতিবাদে এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা গ্রুপের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছে। বিক্ষোভ থেকে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। থমথমে পরিস্থিতিতে পানছড়ি সকল দোকানপাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বুধবার বিকাল ৩টার দিকে নুরুল হক মাস্টারের নামাজে জানাজা শেষে ফেরার পথে সিএনজি স্টেশন এলাকায় প্রকাশ্যে ৬/৭ সন্ত্রাসী পানছড়ি উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হেলাল(৩২) ও যুবলীগের শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শফিকুর আলম (৩০) হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা দু’জনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।

আহতদের পানছড়ি হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে খাগড়াছড়ি হাসপাতালে প্রেরণ করলে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডাক্তার শফিকুর রহমান শ্রমিকলীগ নেতা হেলালকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করে।

পানছড়ি থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, ঘটনার প্রতিবাদে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির অনুসারী পানছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাহার মিয়ার ও সাধারণ সম্পাদক জয়নাব দেব’র নেতৃত্বে মিছিল বের করে।

মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক ঘুরে মুক্তিযোদ্ধা স্কয়ারে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পানছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জয়নাব দেব, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজির হোসেন ও ছাত্রলীগের সভাপতি শ্রীকান্ত দেব মানিক।

সমাবেশে বক্তারা এ হামলার জন্য সংগঠন থেকে বহিস্কৃত আবু তাহের গ্রুপকে দায়ী করে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের আল্টিমেটাম দেয়। তবে এ হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে আবু তাহের।

এ ঘটনার পর পরই পানছড়ি বাজারের সকল দোকানপাট ও রাস্তায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বতর্মানে পানছড়ি থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পুলিশের পাশাপাশি নিরাপত্তাবাহিনী ও বিজিবি সদস্যরা টহল দিচ্ছে।

পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *