নাফ নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে ৫ দিন ধরে নিখোঁজ উলুবনিয়ার ফরিদ


টেকনাফ প্রতিনিধি:

নাফ নদীতে মাছ শিকার করতে গিয়ে ৫ দিনেও বাড়ি ফিরেনি উলুবনিয়ার ফরিদুল আলম (৪৫) নামক এক জেলে। তিনি কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উলুবনিয়া গ্রামের মৃত দলিলুর রহমানের বড় ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২৭ আগস্ট (সোমবার) সকালে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে নাফ নদীতে গিয়ে তিনি আর ফিরে আসেন নি। নাফ নদীর উলুবনিয়া সীমান্তে মোস্তফা সিকদারের চিংড়ি ঘের সংলগ্ন প্যারাবনের পাশে জাল ফেলে মাছ ধরা অবস্থায় আচমকা মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) কয়েকজন সশস্ত্র সদস্য স্টিমারে করে এসে তাঁকে তুলে নিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়।

ঘটনার সময় ওই চিংড়ি ঘেরে অবস্থান করা কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান যে, বেলা ১১ টার দিকে প্যারাবনের পাশে স্টিমারের আওয়াজ ও চিৎকার শুনে  তারা বাসা থেকে বের হয়ে দেখেন বিজিপি স্টিমারে করে ফরিদুল আলমকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে এবং সাথে তার মাছ ধরার নৌকাটিও স্টিমারের পেছনে বেঁধে নিয়ে যায় তারা।

ওই দিন তিনি বাড়ি ফিরতে দেরি করায় তার ছোট ছেলে বাবার খোঁজ নিতে নদীর দিকে গেলে জানতে পারে তার বাবা বিজিপির হাতে অপহৃত হয়েছেন। বিষয়টি পরিবারের পক্ষ থেকে বিজিবিকে জানানো হলে তারা অপহৃতকে উদ্ধারে সর্বাত্মক সহয়তার আশ্বাস দেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়।

তাছাড়া পরিবারের পক্ষ থেকে সব জায়গায় খোঁজ নিয়েও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি বলে জানান তার স্ত্রী। এই বিষয়ে টেকনাফ থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়। ৫ দিন ধরে তার কোন সন্ধান না পেয়ে তার পরিবারে চলছে শোকের মাতম এবং এলাকায় নেমে এসেছে বিষাদের ছায়া। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে তার পরিবার এখন দিশেহারা। তাকে জীবিত উদ্ধারের জন্য বিজিবি, সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরের  সহয়তা চেয়েছেন তার পরিবার।

নিউজটি টেকনাফ বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *