নাইক্ষ্যংছড়িতে ইভটিজিং এর দায়ে এক যুবককে ৬ মাসের কারাদন্ড


 014

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

বান্দরবান পার্বত্য জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সাফায়াৎ মুহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম তার আদালতে মোবাইল কোর্ট আইনে অজিত নামের এক যুবককে ৬  মাসের কারাদন্ড দিয়েছে ।

 মঙ্গলবার দুপুর ২.০০ টায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সাফায়াৎ মুহাম্মদ শাহেদুল ইসলামের আমলী আদালতে মোবাইল কোর্ট আইনের ৫০৯ ধারায় ইভটিজিং এর অপরাধে অনিলের হবিগঞ্জ এর বোনাই নগরের অনিলের পুত্র অজিত (২৫)কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে ।

জানা যায়,নাইক্ষ্যংছড়ি স্কুল পাড়ার আবু সিদ্দিক ঠিকাদারের কলোনীতে শিক্ষিকা নিলিদাশের বাসায় তার ভাইঝি চট্রগ্রামের বোয়ালখালীর ধলহাটের স্বপন দাশের মেয়ে টুম্পা দাশ (২২) বেড়াতে আসে । গতকাল সকাল ৯টায় প্রতিদিনের মত বাসার টয়লেটে গোসল সারছিল টুম্পা । ওই সময় তার পার্শ্বের বাসায় ভাড়াটে অনিলের পুত্র অজিত কুমতলবে টুম্পার টয়লেটের জানালা দিয়ে উকিঁ দেয় এবং তাকে ধর্ষণের জন্য উত্যক্ত করে । এ সময় টুম্পা চিৎকার করলে তার ফুফু ও পার্শ্ববর্তী বাসার লোকজন এগিয়ে এসে টুম্পাকে উদ্ধার করে । অজিত নাইক্ষ্যংছড়ি বাজার এলাকায় জুতা সেলাইয়ের কাজ করত ।

এরপর টুম্পা দাশ থানায় অভিযোগ দায়ের করলে থানার ডিউটি অফিসার ফরিদ হোসেন জিডি দায়ের পূর্বক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সাফায়াৎ মুহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম কাছে পাঠালে তিনি টুম্পার দায়ের করা ৪১৩ জিডি নং এর অভিযোগের ভিত্তিতে বাদী-বিবাদী ও স্বাক্ষীগণের বক্তব্য শোনার পর মোবাইল কোর্ট আইনের ৫০৯ ধারায় অজিতকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডের রায় প্রদান করেন ।

এসময় টুম্পার ফুফু নিলিদাশ উপস্থিত ছিলেন । তিনি রায় শুনে খুশি হয়ে বিচারকে ধন্যবাদ জানান । এ ব্যাপারে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সাফায়াৎ মুহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম বলেন, অজিত যে ঘটনা ঘটিয়েছে তা খুবই জঘন্য কাজ । ভবিষতে এমন অপরাধে কেউ যাতে না জড়ায় এবং ইভটিজিং করলে যে কাউকে এমন বা তার চেয়ে কঠিন শাস্তি দেয়া হবে বলে তিনি জানান ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *