ধর্মান্তরকরণের অভিযোগে বান্দরবানে এনজিও কমপেশন-এর কার্যক্রম বন্ধ


conversion

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:
ধর্মান্তরিতকরণের অভিযোগে পার্বত্য চট্টগ্রামের বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এনজিও) কমপেশন-এর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ের তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পর এনজিও বুরোর নির্দেশক্রমে স্থানীয় প্রশাসন এনজিওটির কর্মকান্ড বন্ধ করে দিয়েছে। এনজিওটির বিরুদ্ধে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের খ্রিষ্টান ধর্মে ধর্মান্তরিতকরণের অভিযোগ ছিল।

এনজিওটি বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটিতে শিক্ষা স্বাস্থ্য ও সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধির উপর কাজ করছিল। বান্দরবানের সদর রুমা রোয়াংছড়ি লামা এলাকায় বিভিন্ন পাহাড়ী পাড়ায় ছেলে মেয়েদের নানা প্রকার সুবিধা, শিক্ষা উপকরণ বিলি, টিফিন, পুষ্টিকর খাদ্য সরবরাহসহ চিকিৎসা সুবিধা দিয়ে আসছিল এনজিওটি।

বান্দরবানে তারা সিডিসি নামের অপর একটি সংস্থার সাথে সমন্বয় করে কাজ করছিল। তবে স্থানীয়রা এনজিওটির বিরুদ্ধে স্থানীয় পাহাড়িদের খ্রিষ্টান ধর্মে ধর্মান্তরিতকরণের অভিযোগ তোলে।
এ বিষয়ে সংস্থাটির বান্দরবানের এরিয়া ম্যানেজার লালচুং নাকো জানান, পার্বত্য মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ যাওয়ার পর গত নভেম্বরে তদন্ত করা হয়। পরে এনজিও বুরো কমপেশনের কার্যক্রম বন্ধের জন্য নির্দেশ দিলে প্রশাসন এনজিওটি বন্ধ করে দেয়।

তবে লাল চুং ধর্মন্তরিতকরণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এনজিওটি পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড়ীদের শিক্ষা স্বাস্থ্য ও সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির উপর কাজ করছে।

উল্লেখ্য, পার্বত্য চট্টগ্রামের আরো বেশ কয়েকটি এনজিওর বিরুদ্ধে ধর্মান্তরিতকরণের অভিযোগ রয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় এনজিও বুারো ও স্থানীয় প্রশাসন অভিযোগগুলো তদন্ত করছে। এরমধ্যে ওয়ার্ল্ড ভিশন, করিতাস, তৈমু, একেএসসহ বিভিন্ন এনজিও’র বিরুদ্ধে তদন্ত করে খ্রিস্টানকরণের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে। সূত্র জানিয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রামে সেবার আড়ালে ধর্মান্তরকরণের দায়ে অভিযুক্ত সকল এনজিও’র বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ সরকারের বিবেচনাধীন রযেছে।

নিউজটি জাতীয় বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *