দীঘিনালায় প্রশাসনের সহযোগীতায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুলছাত্রী


দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালায় প্রশাসনের সহযোগীতায় বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেয়েছে আকলিমা আক্তার নামে এক সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। সে উপজেলার ছোট মেরুং উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী এবং তার পিতার নাম আলী আকবর। তার বাড়ি মেরুং ইউনিয়নের ছোট হাজাছড়া গ্রামে।

রবিবার কবাখালী ইউনিয়নের মুসলিমপাড়া গ্রামে মামার বাড়িতে এনে বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে, খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন বাধা দেয়। পরে তার পিতা মো. আলী আকবর আবারো বিদ্যালয়ে পড়াবেন মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান।

জানাযায়, উপজেলার কবাখালী মুসলিমপাড়া গ্রামে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ে হচ্ছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং সহকারী কমিশনার (ভুমি) পুলিশ নিয়ে সকাল ১১ টায় ওই স্কুলছাত্রীর মামার বাড়িতে হাজির হন। পরে স্কুলছাত্রী আকলিমা আক্তারকে ডেকে জিজ্ঞাসা করা হলে জানায়, সে উপজেলার ছোট মেরুং উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণির ছ্রাত্রী। পরে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শেখ শহিদুল ইসলাম জানান, স্কুলছাত্রীর বাবা মো. আলী আকবর মেয়েকে ১৮ বছর পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত পড়াশুনা চালিয়ে যাবেন এবং আগামী সাত দিনের মধ্যে আবারো স্কুলে ভর্তি করে আমাকে অবহিত করবেন, এই মর্মে অঙ্গীকার করেছেন বলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *