থানচিতে সোনালী ব্যাংক থেকে বয়স্কভাতাভোগীদের কার্ড ফেরত দেয়া হয়নি


 

থানচি প্রতিনিধি:

থানচিতে সোনালী ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক ও কর্মচারীদের নানা অনিয়ম দুর্নীতি, ক্ষমতা অপব্যবহারের অভিযোগ। অফিসে চেয়ারে পা তুলে ধুমপান করা, বিভিন্ন পেশা গ্রাহকদের হয়রানি অস্রাব্য ভাষা ব্যবহার বয়স্কভাতা ভোগীরা টাকা গ্রহণের পর ভাতাকার্ড ফেরত না দেয়া। ব্যাংকের জমা রাখা ও প্রত্যক ভাতা ভোগীদের নমিনি সঠিক নয় অজুহাতে কমিশন নেয়া ও এনজিও স্কুল ও রক্স স্কুলের শিক্ষকদের নিকট কমিশন রাখাসহ নানা দুর্নীতি অনিয়মের কারণে বিভিন্ন শ্রেণির পেশাজীবী গ্রাহক সীমাহীণ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

জানা যায়, ২০১৭ সালে জানুয়ারি হতে জুন, ৬ মাস যাবৎ থানচি উপজেলা ৯১২জনকে ৫ শত টাকা করে ৩ হাজার টাকা ভাতাভোগীদের নিজস্ব একাউন্ট হতে খোলা চেক মাধ্যমে উক্তোলন করার নিয়ম রয়েছে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে সোনালী ব্যাংক থানচি থেকে ভাতাভোগীদের একাউন্ট হতে উত্তোলনের সময় সোনালী ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক গিয়াস উদ্দিন অফিসে চেয়ারে পা তুলে ধুমপান করে। নমিনিদের  স্বাক্ষর, ছবি সঠিক নেই বলে বিভিন্ন অজুহাতে নির্ধারিত ভাতা হতে ৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা কমিশন বলে কেটে রেখে দেয়। সাথে বয়স্কভাতা কার্ড ফেরত দেয়া হয় না। কয়েকজন ভাতাভোগী কার্ড ফেরত না দেয়ার কারণ জানতে চাইলে এমপি সাহেবের অডার রয়েছে কার্ড ব্যাংকে জমা রাখা জন্য।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বড় মদকের কয়েকজন ভাতাভোগী জানান, আমাদের নিকট থেকে ১০০ টাকা কেটে রেখে কার্ড ফেরত দিলনা আমরা আগামীবারে কিভাবে টাকা উত্তোলন করব, সরকার কি আমাদের ভাতা দেবে না। জানিনা আমাদের কপালে কি আছে।

জানতে চাইলে সোনালী ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক গিয়াস উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, আপনারা এসে দেখেন এখানে হাসপাতালের ডাক্তার মংটিংঞো রয়েছে,তাকে মুঠো ফোন ধরিয়ে দিলেন শাখা ব্যবস্থাপক। মংটিঞো সাথে কথা বলার পর গিয়াস উদ্দিন জানালেন, মৌখিক ভাবে আমাকে আদেশ দিয়েছে সমাজ সেবা অফিসার তাই অফিসারের নির্দেশক্রমে কাজ করছি ভাতাভোগী কার্ড এবং টাকার কথা স্বীকার করে বলেন, ব্যাংকে রাখার নিয়ম নেই তবে আমরা নিয়ে থাকি সাংবাদিকরা কি করবেন করেন।

জানতে চাইলে উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার অজিত রায় জানান , ভাতাভোগীদের কার্ড জমা নেয়ার কথা সোনালী ব্যাংক শাখা ব্যবস্থাপককে মৌখিক বা লিখিত বলা হয়নি। ঘটনা সত্য হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া জরুরী।

নিউজটি থানছি বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *