চকরিয়ায় এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার


ধর্ষণ

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ৬ষ্ট শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষিতা ছাত্রীকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শুক্রবার কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসিতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বড় বোন বাদি হয়ে দু‘জনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

গত বুধবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের মধ্যম কোনাখালী এলাকায় একটি মৎস্য প্রকল্পে নিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয় বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। ধর্ষিতা চকরিয়া পৌরশহরের ফুলতলা এলাকার একটি বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

অভিযোগে জানা গেছে, কোনাখালী ইউনিয়নের শ্যামঘোনাস্থ বড় বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায় ওই ছাত্রী। এদিন রাত নয়টার দিকে ভাগ্নিকে নিয়ে সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় চেপে অপর এক নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে মধ্যম কোনাখালী এলাকার একটি মৎস্য প্রকল্পের কাছে পৌঁছলে অটোরিক্সার গতিরোধ করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় ভাগ্নিকে অটোরিক্সায় আটকে রেখে এবং ছাত্রীকে মৎস্য প্রকল্পে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

ধর্ষিতার বড় বোন ও মামলার অভিযোগে বলেন, ‘মধ্যম কোনাখালীর চরপাড়ার আকতার আহমদের ছেলে মুজিবুল হক (২৪) নামের এক লম্পট ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে এবং ফরহাদ নামের অপর দুর্বৃত্ত ধর্ষণে সহায়তা দেয়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে’।

চকরিয়া থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম খান জানান, স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া হয়েছে। ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষা করানোর জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসিতে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *