গুইমারায় চলছে ইউপিডিএফ’র ডাকে অবরোধ


গুইমারা  প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির গুইমারায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) ডাকে পার্বত্য খাগড়াছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ চলছে। ইউপিডিএফের সংগঠক মিঠুন চাকমার হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে এ অবরোধের ডাক দেয় সংগঠনটি। অবরোধে গবামারায় সড়কে গাছ কেটে, গুইমারায় টায়ার জ্বালিয়ে, রাতে হাতিমুড়ার মোবারক ধনের ১০-১২টি সেগুন গাছ কেটে  পিকেটিং করার চেষ্টা করেছিল অবরোধ সমর্থনকারীরা কিন্তু নিরাপত্তাবাহীনির বিশেষ তৎপরতার কারণে তাতে তারা ব্যর্থ হয়ে পালিয়ে যায়।

অবরোধের ফলে গুইমারায় শনিবার(৬জানুয়ারি) হাটের দিন হওয়ার সুবাধে ভাড়ায় চালিত স্থানীয় মোটর সাইকেল চললেও দূরপাল্লার যানবাহন নামে মাত্র  দুই একটি চলতে দেখা গেছে। দূরপাল্লার যান চলাচল স্বাভাবিক না থাকায় উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। দূরপাল্লার সাধারণ যাত্রীদের অনেক ভোগান্তিও লক্ষ করা গেছে।  তবে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নৈশকোচের দুই একটি গাড়িতে রামগড়ের যৌথ খামার এলাকায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের সদস্যরা ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে গাড়ির গ্লাস ভাংচুরের মত ঘটনা ঘটিয়েছে বলে নিরাপত্তা সূত্রে জানাযায়।

অবরোধ চলাকালে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে গুইমারা বাজার ছাড়াও  উপজেলার বাইল্যাছড়ি, রামছু বাজার, জালিয়াপাড়া , বুদঙ পাড়া, যৌথ খামার, হাতিমুড়াসহ বিভিন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ  মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ।

পুলিশের পাশাপাশি গুইমারা সাবজোন কমান্ডার মেজর আলতাফ এর নেতৃত্বে জালিয়াপাড়া টু নাকাপা, জালিয়াপাড়া টু সিন্দুক ছড়ি, গুইমারা বাজার টু রামছু বাজারসহ যৌথ খামার এলাকায় চারটি নিরাপত্তা সদস্যদের জোরালো টহলরত অবস্থানও রয়েছে বলে নিরাপত্তা সূত্রে জানা যায়। বড়  ধরনের  কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (প্রসীত বিকাশ খীসা) অংশের অন্যতম সংগঠক মিঠুন চাকমা প্রকাশ জুম্মা বুধবার (৩ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খাগড়াছড়ি আদালতে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা তার তলপেটে ও মাথায় গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এবিষয়ে গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ সাহাদাত হোসেন টিটু বলেন, আমরা পুলিশসহ যৌথ বাহিনীর সদস্যরা অবরোধকে লক্ষ করে গুইমারায় আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে যথেষ্ট সচেতন রয়েছি। পার্বত্য সন্ত্রাসী দুষ্কৃতিকারীদের বিন্দু মাত্র ছাড় দেওয়া হবেনা বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *