খাগড়াছড়িতে যৌতুকের জন্য গৃহবধুর উপর অমানসিক নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী আটক


 

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়িতে যৌতুকের জন্য এতিম এক গৃহবধুর উপর স্বামীর অমানসিক নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনার জেরে স্বামী মাসুদকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার(২এপ্রিল) দুপুরে খাগড়াছড়ি শহরের মেহেদিবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্বামী এ ঘটনাকে পারিবারিক বলে দাবি করলেও স্ত্রী রোকেয়া বেগম ও এলাকাবাসী বলছে, নির্যাতন নিত্যদিনের ঘটনা।

রোকেয়া বেগমের উপর নির্যাতনের এ ভিডিও চিত্র দেখলে যে কোন বিবেকবান মানুষের হৃদয় কেপে উঠার কথা। কিন্তু নির্যাতন সইতে না পেরে স্ত্রীর এমন করুন আত্মনাত পাষণ্ড স্বামী মাসুদের মন একটুও গলেনি। বরং কারণে-অকারণে প্রতিদিন এভাবে নির্মম-নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। মাসুদ এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ এগিয়ে আসে না।

রোকেয়া বেগম জানায়, নোয়াখালীর জামালপুর গ্রামে তার বাবার বাড়ি। বাবার নাম সালামত উল্লাহ। মাত্র ১৫ বছর বয়সে তার বিয়ে দেয় পরিবার। আজ থেকে পাঁচ বছর আগে খাগড়াছড়ি শহরের মেহেদীবাগের ফয়েস আহমেদের ছেলে মাসুদের সাথে  তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য রোকেয়ার উপর নির্যাতন চলতো।  পিতা মারা যাওয়ার পর সে আরও অসহায় হয়ে পড়ে। পাঁচ বছরের সংসারে রোকেয়া দুই সন্তানের জননী হলেও নির্যাতনের মাত্রা একটুও কমেনি। কিন্তু যাওয়ার জায়গা না থাকায় দুই সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে সব নির্যাতন সহ্য করে যাচ্ছে।

প্রতিবেশীরা জানায়, রোকেয়ার উপর প্রতিদিন নির্যাতন হয়। কিন্তু মাসুদ এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করে না। তবে স্বামী মাসুদ বলছে, স্ত্রীর উপর নির্যাতনের অভিযোগ সত্য নয়।

এদিকে বুধবার সকালে মাসুদ ফের স্ত্রী রোকেয়া বেগমকে ঘরের উঠানে ফেলে অমানসিক নির্যাতন চালায়। জনৈক যুবক সে ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিলে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে জানালে পুলিশ আটক করে মাসুদকে।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদত হোসেন টিটু জানায়, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *