খাগড়াছড়িতে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত 


নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

“পুলিশেই জনতা, জনতাই পুলিশ” স্লোগানে খাগড়াছড়িতে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত হয়েছে। শনিবার বিকেল ৫টায় খাগড়াছড়ি সদর থানার আয়োজনে পৌর টাউন হল প্রাঙ্গণে শান্তির পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে পুলিশিং ডে’র আনুষ্ঠানিকতা শুরু করা হয়। সদর থানার আওতাধীন কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সদস্য, বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরে প্রধান সড়ক ঘুরে টাউন হল প্রাঙ্গণে দেশ ও জাতির শান্তি কামলায় মোমবাতি প্রজ্জলন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষ্যে সন্ধ্যায় টাউন হল মিলনায়তনে পুলিশ সুপার আলী আহমদ খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী।

এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি রিজিয়নের স্টাফ অফিসার মেজর মুজাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ড. গোফরান ফারুকী, এপিবিএন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হ্লাচিংপ্রু চৌধুরী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মো. রইছ উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএম শফি প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কংজরী চৌধুরী বলেন, পুলিশের একার পক্ষে সামাজিক অপরাধ ও বিশৃঙ্খলতা প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। তাই সামাজিক অপরাধ প্রতিরোধে ও শৃঙ্খলতা বজায় রাখতে জনতাকে পুলিশের সাথে সম্পৃক্ত করার প্রসংশনীয় একটি উদ্যোগ কমিউনিটি পুলিশিং। কমিউনিটি পুলিশের কার্যক্রমকে গতিশীল করতে থানা পর্যায়ে ওপেন হাউজ ডে কর্মসূচি পুনরায় চালুর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, এতে করে জনগণের সাথে পুলিশের সর্ম্পক আরও সুদৃঢ় হবে।

কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমে বিশেষ অবদানের জন্য নারী নেত্রী শেফালিকা ত্রিপুরা ও জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সুদর্শন দত্তকে পুলিশ সুপার সম্মাননা এবং সদর থানার উপ পরিদর্শক(এসআই) আব্দুল্লাহ আল মাসুদ ও মো. সাদেকুর রহমানকে পুলিশ মহাপরিদর্শক(আইজিপি) সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়া সদর থানায় কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমের বিশেষ অবদানের জন্য খাগড়াছড়ি রিজিয়নের অধিনায়ক ব্রিগেডিয়ার  জেনারেল মীর মুশফিকুর রহমানের পক্ষ থেকে অফিসার ইনচার্জ(ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নানকে শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করেন স্টাফ অফিসার মেজর মুজাহিদুল ইসলাম।

বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শেষে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষ্যে প্রদীপ প্রজ্বলন করা হয়। আলোচনা সভা শেষে স্থানীয় শিল্পীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *