খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ(প্রসীত)কে হস্তান্তরকালে ৩৭ লাখ টাকা উদ্ধার, আটক ৫


খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপের কাছে হস্তান্তরের সময় চাঁদার ৩৭ লাখ টাকা উদ্ধার, ৫ জন আটক, প্রাইভেটকার জব্দ,  ৫ জনকে আসামি করে মামলা।

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগাড়াছড়ি:

খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্রুপের কাছে হস্তান্তরের প্রাক্কালে চাঁদার ৩৭ লাখ টাকাসহ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জাকির এন্টারপ্রাইজের সহকারী ঠিকাদার জসিম উদ্দিনসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় একটি প্রাইভেট কারও জব্দ করা হয়।

সোমবার (২৮ মে) রাত ১১টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের বিজিতলা এলাকা থেকে এ বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদত হোসেন টিটু জানান, ইউপিডিএফ’র(প্রসীত) গ্রুপকে চাঁদা দিতে যাচ্ছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার রাত ১১টার দিকে বিজিতলা চেক পোষ্টে পুলিশ একটি প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো গ-৩৪-১০৪০) আটক করে। পরে প্রাইভেট কারটি তল্লাসী করে একটি বস্তার ভিতর থেকে ৩৭ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ঠিদাকারী প্রতিষ্ঠান জাকির এন্টারপ্রাইজের সহকারী ঠিকাদার জমিস উদ্দিন, তার সহকারী শফিক, মাঈন উদ্দিন, আল-আমীন ও প্রাইভেট কার চালক মো. আলমগীরকে আটক করা হয়। সেইসঙ্গে এই ৫ জনকে আসামী করে মামলা হয়েছে। মামলা নং ২০, তারিখ ২৯-০৫-২০১৮ইং। আসামিদের ৭ দিন করে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জাকির এন্টারপ্রাইজের সত্বাধিকারী জাকির হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি মুঠোফোনে বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, এগুলো লেবারদের দেওয়ার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। এত রাতে আবার প্রাইভেটকারে কেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে জাকির হোসেন বলেন, তার খাগড়াছড়িতে ১শ ৪০ কোটি টাকার ৩২টি ব্রিজের কাজ চলছে। ইউপিডিএফসহ কয়েকটি আঞ্চলিক সংগঠন দীর্ঘ দিন চাঁদা দাবী করে আসছিল। দেব-দিচ্ছি করে সময় পার করছি।

বিভিন্ন সূত্র জানায়, সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধিনে জেলার বিভিন্ন সড়কে জাকির এন্টারপ্রাইজের এ জেলায় ৩২টি পাকা ব্রীজের কাজ চলমান রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে জাকির এন্টারপ্রাজের সত্ত্বাধিকারী জাকির হোসেনকে ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপসহ পাহাড়ের বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠন ১ কোটি ৪৪ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছিল। এর মধ্যে দাবীর বিপরীতে এ পর্যন্ত ৭৪ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *