কাপ্তাই উপজেলায় কুকুরের কামড়ে আহত-৩০


কাপ্তাই প্রতিনিধি:

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হাতে হাতে লাঠি কাপ্তাই উপজেলায় সর্বত্র বেওয়ারিশ কুকুর আতঙ্ক। কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছে ৩০জনেরও বেশী। প্রশাসনের পক্ষ হতে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান।

কাপ্তাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এ মাসে ত্রিশজনেরও বেশী বেওয়ারিশ কুকুরের কামড়ে আহত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। এদিকে কুকুর থেকে বাঁচার জন্য স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, বিভিন্ন শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের হাতে লাঠি নিয়ে চলাফেরা করতে হচ্ছে। এ সপ্তাহে কাপ্তাই কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায় কুকুরের উপদ্রপ ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় ঘর হতে বাহির হতে পারছে না। ছোট ছোট স্কুল, মাদরাসা শিক্ষার্থীদের হাতে লাঠি নিয়ে বাহির হচ্ছে কঠোর সাবধানতার মাধ্যমে।

বিউবো প্রজেক্ট এলাকায় বাংলা কলোনী, সি ব্লক, পুরাতন বাজার, ফুলবাগান এলাকায় একই দিনে ১২জনকে কামড় দিয়ে আহত করেছে। এরা হল স্কুল শিক্ষার্থী সুমাইয়া আলম(১৩), আবিদ হোসেন(১৪), চাইন্দাওয়াং মারমা(৫), মো. নাঈম(১১), এরা ছাড়া আকছেদ আলী(৬০), মো. রাসেল(২৪), মিসেস হামিদ(৩৫), বানু আক্তার((৩২), দিলারা বেগম মুক্তা(৩৮), জেটিঘাট এলাকায় মংথুইপ্রু মারামা(৭০), ইউপি এলাকায় শওকত(২৭), মাহামিন(৩৪)। এছাড়া চৌধুরীছড়ায় ২জন, শিল্প এলাকায় সিফাত(১১), শিলছড়ি, চিৎমরমে ৭জনসহ বিভিন্ন এলাকায় আরও কয়েকজনকে আহত করার খবর পাওয়া যায়।

কাপ্তাই বিউবো এলাকার মিজানুর রহমান জীবন, কবিরুল ইসলাম কবির, ওসমান গনি টনু ও আলমগীর চৌধুরী বলেন, সর্বত্র পাগলা কুকুর আতঙ্কে ভুগছি। ঘর হতে বাহির হতে পারছি না। হঠাৎ করে কুকুরগুলো এসে কামড় দিয়ে চলে যায়। কাপ্তাই প্রজেক্ট এলাকা ও জেটিঘাট এলাকায় লোকজন দু’টি কুকুরকে পিটিয়ে মেরেছে বলে উল্লেখ করেন।

জাকির হোসেন ও মোহছেন বলেন, অফিসে আসার পথেও কুকুর আতঙ্কে লাঠি নিয়ে আসতে হচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষ হতে এ বেওয়ারিশ কুকুর নিধন করে তাদের ও শিক্ষার্থীদের চলাচল আতঙ্ক মুক্ত করার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *