কাপ্তাইয়ে এখনো মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে পাহাড়ের ওপর বসবাস


কাপ্তাই প্রতিনিধি:

কাপ্তাইয়ে এখনো মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে মানুষ বসবাস করছে পাহাড়ের ঢালে। ইতিমধ্যে ঘূর্ণিঝড় মোরা’র কারণে এবং ভয়াবহ প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধ্বসে বিভিন্ন ক্ষতিসহ কাপ্তাইয়ে ১৮জনের মৃত্যু হয়। এছাড়াও প্রায় পঞ্চাশ জন আহত হয়। নিহত ও আহতদের পরিবারের মধ্যে এখনও চলছে কান্নার রোল।

কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধ্বসে ইতিমধ্যে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার পর প্রশাসনের পক্ষ থেকে বারংবার মাইকিং করে পাহাড়ের ঢালু হতে নিরাপদ স্থানে সরে আসার কথা বলা হলেও, মাত্র কিছু লোক সরে আসে। তবে অনেকেই বাসা-বাড়ির মায়া ছেড়ে আসতে পারছেনা। মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে ওই সুউচ্চ পাহাড়ে বসবাস করছে। কাপ্তাই নতুনবাজার ঢাকাইয়া কলোনী নামক এলাকায় সুউচ্চ পাহাড়ের উপরে মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে কয়েকশ’ পরিবার বসবাস করছে।

এলাকার অভিজ্ঞ মহলের ধারণা পাহাড়ের উপর বসবাসরত প্রতিটি ঘরই অতি ঝুঁকিপূর্ণ। একটি ঘর কোন রকমে ভেঙ্গে নিচের ঘরের উপর পরলে নিশ্চিত মৃত্যু। ইতিমধ্যে পাহাড় ধ্বসে ওই পাহাড়ের ঢালের নিচে ঘর ভেঙ্গে অন্য একটি ঘরের মধ্যে পড়ে রমজান নামের পাঁচ বছরের একটি শিশু মারা যায় এবং আবুল হোসেন নামের আরো এক ব্যক্তি নিহত হয়।

অনেক পরিবার কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে আসলেও অনেক পরিবার আবার মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়েও বসবাস করছে। তাই সকলের একটি দাবি-কাপ্তাই নতুনবাজার, লগগেইট, ঢাকাইয়াকলোনীসহ বিভিন্ন এলাকার লোকদের সরকারের পক্ষ থেকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হউক না হয় কাপ্তাইয়ে দ্রত মৌজা বাস্তবায়ন করা হোক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *