কাপ্তই মুখবিটে বনদস্যুদের উৎপাত বৃদ্ধি, দিশেহারা বন বিভাগ


 

কাপ্তাই প্রতিনিধি:

পার্বত্য চট্রগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের আওতাধীন কাপ্তাই কর্ণফুলী রেঞ্জের  মুখবিট বনদস্যুতের উৎপাতে দিশেহারা বন বিভাগের লোকজন।

ওই খালের মুখবিটটি প্রায় ২২শত একর জায়গা নিয়ে বনাঞ্চল গঠিত হয়েছে। সরকারি অনেক বনজসম্পদ এখানে রক্ষিত রয়েছে। ওই বিটের রক্ষণা-বেক্ষণের জন্য বিট কর্মকর্তাসহ প্রায় ২২/৩০জনের মত লোক সম্প্রতি কর্মরত ছিল। কালক্রমে তা কমিয়ে এনে বর্তমানে ৬/৭জন দিয়ে পাহাড়া দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

এত বড় এরিয়া পাহাড়া দিতে কর্তব্যরত লোকজনের প্রতিনিয়ত হিমশিম পোহাতে হয়। বনজসম্পদ পাহাড়া দিতে গিয়ে প্রায় সময় স্টাফরা ম্যালেরিয়া, টাইফয়েডে অসুস্থ হয়ে থাকে।  রাতে-কিংবা দিনে পাহাড়া দিতে গিয়ে পাহাড় পিছলিয়ে অনেক স্টাফ  হাত-পা ভেঙে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়তে হয়। এর মধ্যে বর্ষা কালিন সময় বনদস্যুদের উৎপাত বেশি। বর্ষা পড়লে গাছ কাটার কোন শব্দ পাওয়া যায়না।

বনদস্যুরা বিভিন্ন সময ফোনে প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে থাকে। ওই বিটে পাহাড়া জোড়দার করায় বনদস্যুরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। বড় কোন গাছ কাটতে না পাড়ায় রাগেরবসত ছোট, ছোট গাছ কেটে হয়রানি করে থাকে।

এ ব্যাপারে ওই মুখবিট কর্মকর্তা জয়ন্ত বিকাশ ত্রিপুরার নিকট জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে  বলেন, সব চেয়ে বড় কথা লোকবল সংকট চরমে। এতবড় বনজসম্পদ পাহাড়া দিতে প্রায় ২২/৩০জনের মত লোকবল প্রয়োজন সেখানে আমিসহ আছি মাত্র আটজন। এর মধ্যে অনেক স্টাফ প্রায় অসুস্থ থাকে। পাহাড়া জোড়দার করায় বনদস্যুরা বেপরোয়া হয়ে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেয়।

কর্মকর্তা ওই বিটে জনবল বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য বিভাগীয় কর্মকর্তার নিকট জোর দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *