কক্সবাজার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার হুমকি


কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজার শহরের বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রায় ১০ কোটি টাকা মূল্যে সরকারি জমিতে নির্মিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে গেলেই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়েছে দখলকারীরা। পরে অবৈধ স্থাপনা আংশিক উচ্ছেদ করে বেশ কয়েকটি দোকান সিলগালা করে দেয়া হয়। সরকারি কাজে বাধা ও হুমকির অভিযোগে প্রাথমিকভাবে তিনজনকে আটক করা হয়। পরে তাদের মুচলেকা নিয়েই ছেড়ে দেয়া হয়েছে। রোববার(৭জানুয়ারি) বিকালে কক্সবাজার সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিম উদ্দীন উচ্ছেদ অভিযানে গেলেই এই ঘটনা ঘটে।

ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে-কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের ১নং খাস খতিয়ানের ৭০০১ দাগের প্রায় ১০ কোটি টাকা মূল্যের জমি দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ করেন হাসপাতাল সড়ক এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে সরওয়ার কামাল রুমি নামে একব্যক্তি। দীর্ঘদিন ধরে তিনি সরকারি খাস জমি দখল করে অবৈধভাবে দু’তলা বিল্ডিংয়ে কয়েকটি দোকানসহ ইটের ভবনও নির্মাণ করেছে। বর্তমানে সেখানে স্থাপনা নির্মাণের কাজও চলছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিম উদ্দীন বলেন-সরওয়ার কামাল রুমি নামে একব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে সরকারি খাস জমি দখল করে রেখেছে। এমনকি আদালতে ভুল তথ্য দিয়েই জমি দখলে নিতে একাধিক কাগজপত্রও তৈরি করেন তিনি। এই অভিযোগে রোববার বিকালে আনসার ব্যাটালিয়ান ও পুলিশের সহযোগিতায় সেখানে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। অভিযানের এক পর্যায়ে দখলকারীরা বাধা তৈরি করে। এমনকি প্রকাশ্যে আমাকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেন দখলকারীরা। প্রকাশ্যে হুমকি দেয়ার পরপরই নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করেই তিনজনকে আটক করা হয়। এবং উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, হুমকি প্রদর্শনকারী সরওয়ার কামাল রুমি পরে মুচলেকা দেন। মুচলেকায় তিনি উল্লেখ করেন- সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে সরকারি খাস খতিয়ানের জায়গা থেকে অবৈধ স্থাপনা খালি করে দিবো। যদি সেটা করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে যথাযথ কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করলে আমার কোনো আপত্তি থাকবে না। এছাড়া দখলকারী সরওয়ার কামাল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে হত্যার হুমকি এবং ভুল তথ্য প্রমাণ দিয়ে আদালত অবমানমার মামলায় হুমকি দেয়ায় ক্ষমা প্রার্থী হন।

ম্যাজিস্ট্রেট নাজিম উদ্দীন বলেন, মুচলেকা দেয়ায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। মুচলেকা অনুযায়ী যদি তারা ব্যর্থ হয় তাহলে আইনিভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া সোমবার সেখানে অভিযান চালিয়ে বাকি অবৈধ স্থাপনা গুলো উচ্ছেদ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *