‘এ চারাগুলোই এক সময় বিশাল সম্পদে পরিণত হবে’


কাপ্তাই প্রতিনিধি:

পার্বত্য চট্রগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের আয়োজনে কাপ্তাই-কর্ণফুলী রেঞ্জের ২’শ ৫০ হেক্টর জাতীয় উদ্যানের পরিত্যক্ত খোলা জায়গায় এক লাখ ১৬ হাজার (এএনআর) চারা ও পশুখাদ্য বাগানের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

ইউএনডিপির অর্থায়নে এবং বন বিভাগের বাস্তবায়নে ২০১৭-১৮ মৌসুমে বাগানে প্রায় ২৫/৩০ প্রজাতির চারা রোপণ করা হয়েছে। এর মধ্যে কাপ্তাই বন রেঞ্জের ১২৫ হেক্টর জায়গায় বিভিন্ন প্রাজাতির পঞ্চাশ হাজার চারা রোপন করা হয় এবং জাতীয় উদ্যানের কর্ণফুলী রেঞ্জের ১২৫ হেক্টর পরিত্যক্ত খোলা জায়গায় ৫০ হাজার বাঁশ, গর্জন, জামরুল, চাপালিশ, তেতুঁল, জাম, দুধক্রাজ, কদম, ডাকিজাম, সিধুর, তৈলসুর, লটকন, বেলসহ বিভিন্ন চারা রোপন করা হয়।

এছাড়া দশ হেক্টর খোলা জায়গায় পশুখাদ্যর জন্য আরও ১৬ হাজার চারা রোপনের কাজ ইতিমধ্যে শতভাগ শেষ হয়েছে।

রোববার (২২ জুলাই) কর্নফুলী রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল মালেক শেখ বলেন, আমরা ন্যাশনাল পার্কের পরিত্যক্ত খোলা জায়গায় ইতিমধ্যে শতভাগ চারা রোপনের কাজ শেষ করেছি এবং রোপিত এ চারাগুলোই এক সময় দেশের বিশাল সম্পদে পরিণত হবে।

দেড় লক্ষ চারা রোপণের জন্য বন বিভাগে বিদ্যমান জনবল ও কিছু অস্থায়ী জনবল নিয়োগ দিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। রোপিত এ চারাগুলো দেখভালের জন্য আরও জনবলের প্রয়োজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *