এজেন্টের সঙ্গে যাদের সম্পর্ক ভালো তারাই নিয়মিত কাজ করছে


আমাদের দেশে এই সময়ে সিনিয়র শিল্পীদের যোগ্য সম্মান দেওয়া হয় না। দায়সারা চরিত্রগুলোর জন্যই তাদের রাখা হয়। বিশ্বের সব দেশে শোবিজ এক নিয়েমে চলে। আর আমাদের এখানে চলে তার উল্টো। একজন শিল্পী যখন অভিনয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করেন তখনই তার কাজ কমে যায় আমাদের এখানে- দেশের শোবিজে সিনিয়র শিল্পীদের বর্তমান অবস্থা নিয়ে এ কথাগুলো বললেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী অরুনা বিশ্বাস।

তিনি আরো বলেন, সত্যি বলতে, এখন আমি কাজ করতে আগ্রহী না। ক্যারিয়ারে অনেক কাজ করেছি। এই সময়ে যেমন-তেমন কাজ না করে পরিবারকে সময় দেওয়া উত্তম বলে আমি মনে করি।

সিনিয়র শিল্পীদের নিয়ে নির্মাতাদের কাজ করার আগ্রহ না থাকার কারণ কি?

এই প্রশ্নের উত্তরে অরুনা বিশ্বাস বলেন, নির্মাতাদের এখানে আমি দোষ দেবো না। আমাদের এখানে নাটক-ফিল্ম এখন এজেন্ট দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। এখন শুধু এজেন্টের সঙ্গে যাদের সম্পর্ক ভালো তারাই নিয়মিত কাজ করছে। ব্যবসা আর শিল্পচর্চা এক নয়। যতদিন অন্যের হাতে এই মাধ্যমটি পরিচালিত হবে শিল্পীরাও অবহেলিত হবে।

এদিকে গতকাল থেকে এই অভিনেত্রী ও মাই ডালিং শিরোনামের একটি ছবির শুটিং শুরু করেছেন। এটি নির্মাণ করছেন আবুল কালাম আজাদ। এই ছবিতে তিনি মায়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন বলে জানান। তবে মজার সংবাদ হলো এটিতে অরুনার শ্বশুরের চরিত্রে অভিনয় করছেন আলী রাজ। এক সময় তারা দুজন জুটি হয়ে অনেক ব্যবসা সফল ছবি উপহার দিয়েছেন। কিন্তু এবার তার ব্যতিক্রম।

অরুনা বলেন, এক সময় দর্শকের কাছে আমাদের জুটির বেশ চাহিদা ছিল। প্রথমবারের মত তার সঙ্গে এমন চরিত্রে অভিনয় করছি। আমি আগেই বলেছি এই সময়ে আমার কাজ করার তেমন আগ্রহ নেই। মজার কোনো চরিত্র পেলে তবে অভিনয় করতে রাজি হচ্ছি। এই চরিত্রটি একটু মজার বলেই কাজ করছি। অন্যদিকে তিনি শেষ করেছেন সাদাকালো প্রেম শিরোনামের আরো একটি ছবির শুটিং। তবে এখনো এটির ডাবিং বাকি আছে বলে জানান। নায়করাজ রাজ্জাকের চাপাডাঙ্গার বউ দিয়ে অরুনা বিশ্বাসের চলচ্চিত্রে অভিষেক। এই ছবি দিয়েই চলচ্চিত্রের দর্শকের মনে ঠাঁই করে নেন তিনি।

পরবর্তিতে দুর্নাম, দংশন, বন্ধু বেঈমান, অকৃতজ্ঞসহ আরও বেশিকিছু চলচ্চিত্রে অভিনয করে ব্যাপকভাবে দর্শকপ্রিয়তা পান। চলচ্চিত্রের বাইরে ছোট পর্দায়ও অল্প-স্বল্প কাজ করছেন তিনি। আসছে ঈদে মোহন খানের নাম চূড়ান্ত না হওয়া ছয় পর্বের একটি ধারাবাহিকে তাকে দেখা যাবে। ঈদের কাজ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ধারাবাহিকের গল্পটি খুব চমৎকার।

এছাড়া মোহন খান বরাবরই ভালো একজন নির্মাতা। তার নির্মিত নাটকে অনেকগুলো বিষয় থাকে। এটি একটি পারিবারিক গল্পের নাটক। তবে উপস্থাপনায় ভিন্নতা রয়েছে। আমাকে যারা পছন্দ করেন তারা এই নাটকটি দেখবেন আশা করছি। চলচ্চিত্র এবং টিভি দুমাধ্যমেই এখন বেশ অস্থির সময় যাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন। এ সম্পর্কে অরুনার ভাষ্য কি?

তিনি বলেন, এই সময়ের অনেকেই শুধু নামের সঙ্গে নায়ক-নায়িকা যোগ করার জন্য অভিনয়ে আসেন। তারা তারকাখ্যাতির পিছনে ছোটেন। আমাদের এখন ভালোবেসে কাজ করার মতো শিল্পীর অভাব রয়েছে। সবাই যদি আমাদের শোবিজ অঙ্গনটিকে ভালোবাসি তাহলে সুন্দর কিছু উপহার দেওয়া সম্ভব। একজন শিল্পীর প্রথম লক্ষ থাকতে হবে তার কাজকে ভালোবাসা। নিজের কাজকে যে ভালোবাসে না সে কখনো আলোর মুখ দেখে না। শোবিজের প্রতি সাধারণ মানুষের গভীর আগ্রহ। সুতরাং এই অঙ্গনের মানুষদের হিসেব নিকেষ করেও পা ফেলতে হয়। 

নিউজটি বিনোদন বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *