অঘোষিত ফাইনালে আফগানিস্তানকে ২৮০ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ


14516436_628992293937398_2670551251691890951_n

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

অঘোষিত ফাইনালে আফগানিস্তানকে ২৮০ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৭৯ রান করে মাশরাফি বাহিনী।প্রথমবারের মতো দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে আসা সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে আফগানদের সাথে ১-১ সমতা করে টাইগাররা।জিতলে সিরিজ এমন সমিকরণকে সামনে রেখে টস জিতে ব্যাট করার সিন্ধান্ত নিয়েছে টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা।

টস জিতে শুরুটা দুর্দান্ত করছে দুই টাইগার ওপেনার তামিম ও সৌম্য। তবে রানের সেই গতি বেশিক্ষন ঠিক রাখতে পারেনি সৌম্য। ১১ বলে মাত্র ১১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরেন সৌম্য।টাইগারদের ওপেনিনং জুটিতে প্রথম আঘাত হানেন আফগান পেসার মিরওয়াইস আশরাফ। তার বলে সৌম্যের ক্যাচটি তালুবন্দি করেন উইকেট কিপার মোহাম্মদ শাহজাদ।
তবে সৌম্যের বিদায়টা দলকে টের পেতে দেননি সাব্বির। তামিমের সাথে জুটি বদ্ধ হয়ে বড় সংগ্রহের দিকে দলকে নিয়ে যাচ্ছেন। দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসছে একের পর এক চার-ছক্কা। সে সাথে ১১২ বলে ১০০ রানের জুটিও গড়ে এই দুই ব্যাটসম্যান।ব্যাটে ঝড় তোলা সাব্বির ৩ ছয় ও ৬ চারে ৬৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন।রহমত শাহর বলে ৭৯ বল খেলে নওরোজ মঙ্গলের তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফিরের এই হার্ডহিট্যার।

অপরদিকে অনেক দিন পর শতকের দেখা ফেল টাইগারদের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। এটি তার ক্যারিয়ারের ৭ তম শতক। চলমান এই সিরিজের প্রথম ম্যাচে খুব কাছে গিয়ে পেলেন না শতকের দেখা। তবে আজ সেই ভুল করেননি এই ব্যাটসম্যান। ১১০ বলে তুলে নেন নিজের ৭ তম শতক।শতক করার পর আফগান বোলারদের উপর চড়াও হন তামিম। শেষ পর্যন্ত ১১৮ বলে ১৮৮ রান করে নাবীর বলে ফিরেন তামিম।

এদিকে শুধু সিরিজ নয় নিজেদের শততম একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে জয় পেতে মরিয়া হয়েই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। তবে সুযোগ হাতছাড়া করতে রাজি নয় সফরকারীরা।এর আগে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৭ রানে দুর্দান্ত জয় পায় টাইগাররা। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে ২ উইকেটের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের।

একদিনের ক্রিকেট র‍্যাংকিং বর্তমানে সাত নাম্বারে অবস্থন করছে বাংলাদেশ অন্যদিকে আফগানিস্তান এর অবস্থান ১০। এর এই দুই দল এখন পর্যন্ত চারবার মুখোমুখি হয়েছে। ২০১৪ সালের এশিয়া কাপে প্রথম দেখা হয় ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে। সে ম্যাচে বাংলাদেশকে ৩২ রানে হারিয়েছিলো আফগানরা। এরপর ২০১৫ বিশ্বকাপে সেই হারের প্রতিশোধ নেয় টাইগাররা। অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরায় অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে আফগানদের বিরুদ্ধে ১০৫ রানের বড় জয় পায় বাংলাদেশ।

টাইগার একাদশ:
মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাব্বির রহমান, মোশারফ হোসেন রুবেল, শফিউল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ।

আফগান একাদশ:
আসঘার স্টানিকজাই (অধিনায়ক), মোহাম্মদ শাহজাদ, নওরোজ মঙ্গল, রহমত শাহ, হাশমতউল্লাহ শাইদি, মোহাম্মদ নবী, নাজিবুল্লাহ জাদরান, রশীদ খান, মিরওয়াইস আশরাফ, দৌলৎ জাদরান, ও করিম জানাত।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *