রাঙ্গামাটির কাউখালীতে অজ্ঞাত তরুণীর ক্ষত বিক্ষত লাশ উদ্ধার

মৃত্যু নিশ্চিত করতে কেটে দেয়া হয়েছে স্তন ও হাত পায়ের রগ

লাশ উদ্ধার

কাউখালী প্রতিনিধি:

রাঙামাটির কাউখালী থেকে অজ্ঞাত তরুণীর ক্ষত বিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ৪ জানুয়ারী বিকাল পাঁচটায় উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নের তারাবনিয়া এলাকা থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত তরুণীর পরনে সেলোয়ার কামিজ ও বোরকা পড়া ছিল। কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল করিম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। এব্যাপারে কাউখালী থানায় হত্যা মালা দায়ের করেছে পুলিশ।

কলমপতি ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার অংখ্যাচিং মারমা জানান, সোমবার বিকাল ৫টার সময় তারাবনিয়া এলাকার জনৈক কৃষক রাস্তার পাশে জঙ্গলে গরু খুঁজতে যায়। এসময় রাস্তা থেকে অন্তত বিশ ফুট গভীরে ছড়ার মধ্যে বোরকা পরা নারীর লাশ দেখতে পায়। এসময় ঐ কৃষক এলাকাবাসীকে খবর দেয়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি পুলিশকে জানায়।

খবর পেয়ে কাউখালী থানার এস.আই যোযৎসু যজ চাকমার নেতৃত্বে পুলিশ কাউখালী সদর থেকে প্রায় ৯ কিলোমিটার দূরত্বে তারাবনিয়ার পাহাড়ের পাশের ছড়া থেকে নিহত তরুণীর লাশ উদ্ধার করে কাউখালী থানায় নিয়ে আসে।

কলমপতি ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার দেলোয়ার হোসেন জানান, অজ্ঞাত ঐ তরুণীকে অত্যান্ত নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের পর মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার জন্য হাত ও পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়েছে। কেটে ফেলা হয়েছে স্তন ও মুখের মাংস। লাশ ফুলে ও পঁচন ধরার দরুন সনাক্ত করা খুবই কষ্টসাধ্য হয়েপড়েছে। এছাড়াও লাশ যাতে সনাক্ত করা না যায় তার জন্য মুখমন্ডলের মাংশ কেটে নেয়া হয়েছে।

কাউখালী থানার এস.আই যোযৎসু যজ চাকমা জানান, অত্যান্ত পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে এবং এ হত্যাকান্ড দু’থেকে তিনদিন পূর্বে হয়ে থাকতে পারে। নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কেটে নেয়া হয়েছে নিহতের স্তন। এছাড়াও মৃত্যু নিশ্চিত করতে হাত ও পায়ের রগও কেটে দেয়া হয়েছে। লাশ যাতে সনাক্ত করা না যায় তার জন্য মুখমন্ডলের মাংশ কেটে ফেলে দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে লাশ ফুলে গিয়ে পঁচন ধরেছে। চেহারাও তেমন একটা চেনা যাচ্ছেনা।

স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, নিহত তরুণী স্থানীয় কেউ না। পুলিশের ধারণা ঐ তরুণীকে কাউখালীর বাইরে থেকে প্রতিহিংসা বা বেড়ানোর কথা বলে নির্জন স্থানে এনে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। কাউখালী থানার ওসি আব্দুল করিম জানান, থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য রাঙ্গামাটি প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ১৮ মে একই স্থানে সুনিল কান্তি দে নামের ৬০ বছরের এক সিএনজি ড্রাইভারকে জবাই করেতার সিএনজি ছিনতাই করা হয়েছিল।

বান্দরবানে মারমা স্বাস্থ্য কর্মীর লাশ উদ্ধার, আটক-১

Bandarban las pic-7.6

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বান্দরবানের রোয়াংছড়ির এলাকার ব্যাঙছড়ি সড়ক থেকে উপ্রু মারমা (২৩) বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ব্রাকে স্বাস্থ্য কর্মীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ধর্ষণের পর তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশের ধারণা।

এ ঘটনায় সন্দেহজনক দেবং (বিজয়) তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক যুবকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন পুলিশ সুপার দেবদাশ ভট্টাচার্য্য।

স্থানীয় ও পুলিশ জানায়, শুক্রবার রোয়াংছড়ি বাজার থেকে অঞ্জয় পাড়া বাড়ী ফেরার মাঝ পথে কতিপয় দুস্কৃত তাকে ধর্ষণ শেষে পাহাড় থেকে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। রাতে বাড়ী না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোঁজাখুজি করে শনিবার সকালে ব্যাঙছড়ি সড়কের নারেসাতং পাহাড়ের পাদদেশে থেকে ঐ যুবতির লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে লাশ উদ্ধার করা হয়।

রোয়াংছড়ি থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গতকাল শুক্রবার ঐ যুবতী বাড়ী না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোঁজাখুজির নারেসাতং পাহাড়ের পাদদেশে লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে বলে তিনি জানান।

উপ্রু মারমা বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ব্রাকে স্বাস্থ্য কর্মীর পাশাপাশি অঞ্জয় পাড়া বেসরকারী আনন্দ স্কুলের শিক্ষকতা করতেন বলে পরিবার সূত্রে জানা যায়।

বান্দরবানে মারমা স্বাস্থ্যকর্মীর লাশ উদ্ধার, আটক-১

2412121356338274Untitled-2

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানের রোয়াংছড়ির এলাকার ব্যাঙছড়ি সড়ক থেকে উপ্রু মারমা (২৩) বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ব্রাকে স্বাস্থ্য কর্মীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের ধারণা ধর্ষণ শেষে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

 

 

এ ঘটনায় সন্দেহজনক বিজয় তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক যুবকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার রোয়াংছড়ি বাজার থেকে অঞ্জয় পাড়া বাড়ী ফেরার মাঝ পথে ধর্ষন শেষে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ভবে পুলিশ সন্দেহ করছেন। আজ শনিবার সকালে ব্যাঙছড়ি সড়কের নারেসাতং পাহাড়ের পাদদেশে থেকে ঐ যুবতির লাশ উদ্ধার করা হয়।

রোয়াংছড়ি থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দু সাত্তার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গতকাল শুক্রবার ঐ যুবতী বাড়ী না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোজাখুজির নারেসাতং পাহাড়ের পাদদেশে লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে বলে তিনি জানান।

উপ্রু মারমা বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ব্রাকে স্বাস্থ্য কর্মীর পাশাপাশি অঞ্জয় পাড়া আনন্দ স্কুলের শিক্ষকতা করতেন বলে পরিবার সূত্রে জানাযায়।

পানছড়ির চেংগী নদী থেকে কাঠুরিয়ার লাশ উদ্ধার

 

31.5

পানছড়ি সংবাদদাতা :

খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার চেংগী নদী হতে একটি ভাসমান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার সকাল নয়টার দিকে এলাকাবাসী পানছড়ি বাজারের পশ্চিম পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া চেংগী নদীতে একটি ভাসমান লাশ দেখতে পায়।

 

খবর পেয়ে পানছড়ি থানা পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় ভেসে থাকা লাশটি উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া লাশটি ৩নং পানছড়ি সদর ইউপির প্রদীপ পাড়ার জীবেন্দ্র লাল চাকমার ছেলে জগদীশ চন্দ্র চাকমা (৪৫) বলে জানা যায়। মৃত জগদীশ চন্দ্র চাকমার ছেলে জ্যোতি বিকাশ চাকমা জানান, প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবারও তার বাবা কাঠ কাটার জন্য কানুনগো পাড়া এলাকায় আসে। বেলা তিনটার দিকে দুপুরের খাবার খেতে চেংগী নদী পার হয়ে বাড়ী যাওয়ার সময় শ্রোতে তলিয়ে যায়। অনেক খোজাখুজির পরও পাওয়া যায়নি বলে জানায় জ্যোতিপ্রিয়।

শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে এসে তার পিতার লাশ সনাক্ত করে। মৃত জগদীশ চন্দ্র চাকমার স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পানছড়ি থানায় নিয়ে আসে বলে পানছড়ি থানা সূত্রে জানা যায়।

দীঘিনালায় মোটরসাইকেল চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার : আটক- ২

Untitled-1দীঘিনালায় মোটরসাইকেল চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার: আটক- ২ (বাঙালী, লাশ, উদ্ধার, আটক)

 

দীঘিনালা প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালার ভৈরফা পাড়া এলাকায় দীঘিনালা-খাগড়াছড়ি সড়কের পাশ থেকে এক বাঙালি মোটরসাইকেল চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। চালকের নাম শাহ আলম (২৭)। সে রাঙ্গুনিয়ার সরফভাটা এলাকার মৃত রাজা মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে। নিহতের বাড়ি দীঘিনালার কবাখালী ইউনিয়নে বলে জানা গেছে। লাশের সাথে তার মোটরসাইকেল এবং দুইটি ছুরি পাওয়া গেছে।

এই ঘটনার পরপরই এলাকাবাসীর মধ্যে ভীত সন্ত্রস্ত ভাব লক্ষ্য করা গেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সেনাবাহিনী গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে লাশ দেখতে ভিড় করেছেন অনেকে। তবে বিকৃত লাশ ও জমাট বাঁধা রক্ত দেখে কেউ দ্বিতীয়বার তাকাতে সাহস কররেনি।

এই ঘটনার পর পর পালিয়ে যাবার সময় নূরনবী (১৯) ও রিমন (১৮) নামের দুই যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে নয়মাইল এলাকার স্থানীয়রা।

দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদাৎ হোসেন টিটো ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।   

আরও খবর

লক্ষ্মীছড়িতে ঘটনাবহুল এপ্রিল মাস: ২ খুন ৬ মামলা

দীঘিনালায় মোটরসাইকেল চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

দীঘিনালাতে সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হলো সমঝোতা বৈঠক : পাহাড়ীদের সড়ক অবরোধের কর্মসূচী ঘোষণা

প্রথম পৃষ্ঠা

রামগড়ে অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

IMG_20140105_212843

উপজেলা প্রতিনিধি, রামগড় : খাগড়াছড়ির রামগড় পৌরসভার কাশীবাড়ি এলাকার ১নং ওয়ার্ডের বাংলাদেশ-ভারত ফেনী নদী সীমান্তে ৫ জানুয়ারি অজ্ঞাত পরিচয়ের একব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে রামগড় থানা পুলিশ।

জানা গেছে, এলাকার কয়েক কিশোর  শুকনো কাঠ সংগ্রহ করতে গেলে একটি ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পার্শ্ববর্তী কাশীবাড়ি বিজিবি ক্যাম্পে খবর দেয়।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ জোবায়েরুল হক এ প্রতিনিধিকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ঝুলন্ত লাশটি উদ্ধার করে। এব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।  তবে এ  প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিহত ব্যক্তির নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।