পাহাড়ী ভাতা ৩০ শতাংশ করার দাবিতে বান্দরবানে মানববন্ধন

Bandarban pic-12.1

স্টাফ রিপোর্টার:

পাহাড়ী ভাতা ৩০ শতাংশ করার দাবিতে বান্দরবানে সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে বান্দরবান প্রেসক্লাবের সামনে কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্বারকলিপি দিয়েছেন কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

জেলা কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি আবদুল মোতালেবের সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন, চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী পরিষদের সভাপতি আবু জাফর, সিনিয়র সাধারণ সম্পাদক এমরান হোসেনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

সমন্বয় পরিষদের সভাপতি আবদুল মোতালেব বলেন, সরকারি কর্মচারীদের বেতন ভাতা বাড়িয়েছে সরকার। কিন্তু পার্বত্যাঞ্চলে কর্মরত সরকারি-স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মচারীদের পাহাড়ী ভাতা ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২০ শতাংশ করা হয়েছে। ২০ শতাংশ হারে নিম্ন বেতনভুক্ত কর্মচারীরা কখনো ৫ হাজার টাকাও পাবেন না। আগে পাহাড়ী ভাতা জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সমান ভাবে পেত। বর্তমানে পাহাড়ী ভাতা জেলার কর্মচারীদের তুলনায় উপজেলা কর্মচারীদের বেশি দেয়া হচ্ছে। বৈষম্য দুরিকরণে পাহাড়ী ভাতা ৩০ শতাংশ হারে সর্বনিম্ন ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা প্রদানের দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে মানববন্ধন কর্মসূচির পর কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দরা মিছিল সহকারে গিয়ে জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাহাড়ী ভাতার দাবির স্মারকলিপি দিয়েছেন।