বিজিবির অভিযানে নাইক্ষ্যংছড়িতে চোরাই কাঠসহ চাদেঁর গাড়ি আটক

kjyttr

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড ৩১ ব্যাটালিয়ানের অভিযানে বিপুল পরিমাণ চোরাই কাঠসহ চাদেঁর গাড়ি আটক করেছে।

সোমবার ৬জুন দুপুরে নাইক্ষ্যংছড়ি সদরের বিছামারা এলাকা থেকে এসব কাঠ আটক করা হয়। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি বিজিবি।

জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৩১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের একটি বিশেষ টহল দল হাবিঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদ এর নেতৃত্বে ব্যাটালিয়ন সদর হতে বিছামারা নামক স্থান হতে পরিত্যক্ত অবস্থায় বিভিন্ন প্রকার ৫১.২২ সিএফটি অবৈধ কাঠ যার আনুমানিক মূল্য ১,৫৩,৬৬0/- টাকা এবং ১ টি চাঁন্দের গাড়ি আটক করতে সক্ষম হয় যার আনুমানিক মূল্য ১৪,০০,০০০/- টাকা। উদ্ধারকৃত কাঠ এবং গাড়ির আনুমানিক মূল্য ১৫,৫৩,৬৬০/- টাকা।

অভিযানের সময় বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি টের পেয়ে কাঠ পাচারকারী দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে বিজিবি কতৃ্ক জব্দকৃত কাঠ ও গাড়ি  নাইক্ষ্যংছড়ি রেঞ্জ,লামা বনবিভাগ অফিসে জমা করা হয়েছে।

 

নাইক্ষ্যংছড়িতে বিজিবি’র শীতবস্ত্র বিতরণ

31-bjb-31-1-16

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে পাহাড়ী-বাঙ্গালী জনসাধারণের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী ৩১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ান। রোববার উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের লেম্বুছড়ি বিওপির নিকটস্থ এলাকায় শীতার্ত, দরিদ্র জনসাধারণের মাঝে এই শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

৩১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ান (বিজিবি) এর ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান ৬৯ পদাতিক ডিভিশনের ব্রিগ্রেড কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. ফখরুল আহসান, পিএসসি।

এ সময় শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে ৩১ বিজিবি জোনের জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল মো. হাসান মোরশেদ, পিএসসি, জি+, ইউপি চেয়ারম্যান রশিদ আহামদ, ইউপি সদস্য, হেডম্যান, কারবারী ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এতে পাহাড়ী-বাঙ্গালী কয়েক শতাধিক মানুষের মাঝে কম্বল ও শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

প্রধান অতিথি বলেন, পাহাড়ের দূর্গম এলাকার মানুষের মাঝে এ শীতবস্ত্র বিতরণ ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এ ধরণের সহযোগিতামূলক কর্মসূচী এলাকায় জনসাধারণের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নাইক্ষ্যংছড়িতে অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ৫০ বিজিবি’র অর্থ সহায়তা প্রদান

5

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

পার্বত্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার মিয়ানমার সীমান্তবর্তী ঘুনধুম ইউনিয়নের রেজু গর্জনবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ৫০ বিজিবির পক্ষ থেকে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে এক সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়।

প্রধান শিক্ষক ছৈয়দ হামজার পরিচালনায় ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি উপেন্দ্র লাল কারবারী সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঘুনধুমস্থ ৫০বিজিবির কোম্পানি কমাণ্ডার সুবেদার ওয়াজকুরুনী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ক্যাম্প কমাণ্ডার নায়েক সুবেদার মো. তৈয়ব, উপজেলা মহিলা সদস্য শ্রীমতি ছিংমে, ইউপি সদস্য বাবুল কান্তি চাকমা, সহকারী শিক্ষক উখচাইন চাকমা প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কোম্পানি কমাণ্ডার সুবেদার ওয়াজকুরুনী বলেন, বিজিবির সীমান্ত রক্ষার পাশা পাশি এলাকার অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাওয়ার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ।

তিনি আরো বলেন, ৫০বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল শফিউল আজমের নির্দেশে এসব অর্থ প্রদান করা হয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধান শিক্ষক ছৈয়দ হামজা বলেন, সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিবি ইতিপূর্বে উক্ত প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতার পাশাপাশি এলাকাবাসীও বিদ্যালয়ের জন্য বিশুদ্ধ জলের ব্যবস্থা করেছেন। তিনি বিজিবির সার্বিক সহযোগিতার জন্য বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

নাইক্ষ্যংছড়িতে বিজিবির অভিযানে চোরাই কাঠ আটক

Bgb Kat atok-22-01-16 (1)

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি ৩১ বিজিবির অভিযানে চোরাই কাঠ আটক করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার সীমান্তবর্তী দোছড়ি ইউনিয়নের লম্বাফাড়ি ছড়ারমুখ নামক এলাকা থেকে এসব কাঠ আটক করা হয়। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

বিজিবি জানিয়েছে, নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ব্যাটালিয়ন সদরের নায়েক সুবেদার মো. মাসুদুর রহমানের নেতৃত্বে বিজিবি সীমান্তের লম্বাফাড়ি ছড়ারমুখ এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় পাচারকারীরা বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। পরে বিজিবি সদস্যরা পরিত্যাক্ত অবস্থায় ১৪৫ ঘনফুট অবৈধ কাঠ আটক করে। যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা।

আটকৃত কাঠ তুলাতলী বন বিটে হস্তান্তর করা হবে বলে বজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বিজিবি’র সাথে সম্পর্ক ছিন্নের হুমকি দিল মায়ানমারের সীমান্ত রক্ষীবাহিনী

Bandarban-Bjb-Bjp boitok 21.5

স্টাফ রিপোর্টার, বান্দরবান:

বিজিবি’র সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দিলেন মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপি। মিয়ানমারের সন্ত্রাসীরা যদি বাংলাদেশের সীমান্ত ব্যবহারের সুযোগ পায় তাহলে বিজিপি বিজিবি’র সাথে সকল সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দেয়।

সন্ত্রাসী তৎপরতা দমন নিয়ে গতকাল  বুধবার বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির লেম্বুছড়ি সীমান্তে বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষা বাহিনী বিজিবি ও মায়ানমারের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর বিজিপির (বর্ডার গার্ড পুলিশ) মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে অনুষ্ঠিত এই পতাকা বৈঠকটি গতকাল দুপুর ১২টায় শুরু হয়ে আড়াইটায় শেষ হয়।

লেম্বুছড়ি সীমান্তের ৫০নং পিলারের কাছে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বাহির মাঠ এলাকায় এই বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন কক্সবাজারের বিজিবির সেক্টর কমান্ডার কর্নেল খন্দকার ফরিদ হোসেন। মায়ানমারের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিপির পক্ষে নেতৃত্ব দেন মংডু সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল টিং কোকো। বৈঠকে নাইক্ষ্যংছড়ি কক্সবাজার ও টেকনাফের ব্যাটালিয়ন কমান্ডারগণসহ বিজিবি ও বিজিপির স্থানীয় উর্ধতন কর্মকর্তারা উপন্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী বাহিনীর তৎপরতা ও মায়ানমারের সীমান্ত রক্ষীবাহিনীর সাথে সংঘর্ষের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সীমান্তে সন্ত্রাসী তৎপরতা দমনে মায়ানমারের বিজিপি ও বাংলাদেশের বিজিবি উভয়ই একে অপরের সহযোগিতা চেয়েছে। এছাড়া সীমান্তে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ মাদক পাচার নিয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে।

তবে মায়ানমারের বিজিপির পক্ষ হতে বৈঠকে জানানো হয়, সন্ত্রাসীরা বাংলাদেশের ভূখন্ড ব্যবহার করে তাদের উপর হামলা করছে। সন্ত্রাসীদের কোনভাবেই যাতে সীমান্ত এলাকা ব্যবহারের প্রশ্রয় দেয়া না হয় তার জন্য বিজিবির কর্মকর্তাদের সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করে মায়ানমারের বিজিপির কর্মকর্তা। তারা জানায়, এর পর থেকে কোন ঘটনা ঘটলে তারা বিজিবি’র সাথে সম্পর্ক রাখবে না।

উল্লেখ্য, এ সপ্তাহের শুরুতে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের আশারতলি ও বাশিফাঁড়ি এলাকায় জিরো পয়েন্টের কাছে একদল সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে মায়ানমারর বিজিপির সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনার পর উভয় দেশই সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়িয়েছে।