বান্দরবানে সাঙ্গু নদীর চরে বাদাম আর বাদামের চাষ

Bandarban Badam pic-2 14.2

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে সাঙ্গু নদীর চরে বাদাম তোলার কাজে ব্যাস্ত সময় পার করছে চাষীরা। বেলে-দো আঁশ মাটিতে কম খরচে অধিক লাভ হওয়ায় চাষীরা ঝুঁকছেন বাদাম চাষে।

কৃষকরা জানান, প্রতি বছর অক্টোবর শেষে অথবা নভেম্বরের শুরুতে বাদামের বীজ লাগানো হয়। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতেই বাদাম তোলা শুরু করে। শুরুতে জমিতে হাল চাষ দিয়ে সামান্য মাটি নরম করে দিতে হয়। আগাছা পরিস্কার করে সারি সারি করে লাগানো হয় বাদামের বীজ। মাটি উর্বর তাই দিতে হয় না অতিরিক্ত সার কিংবা কীটনাশক। তিন মাসের মধ্যেই পুষ্টি বাদাম ফলে তাই অল্প খরচে অধিক লাভে খুশি বাদাম চাষীরা।

কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়, গত বছর জেলায় ৬১১ হেক্টর জমিতে বাদাম চাষ করা হযেছিল। চলতি বছর ৫৭ হেক্টর বেড়ে ৬৬৮ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়েছে। সাঙ্গু নদীর চরে বেলে-দোঁ আশ মাটি থাকায় এই মাটিতে বাদামের বাম্পার ফলন হচ্ছে। তাই তামাকের বদলে বাদামের চাষ দিন দিন বাড়ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আলতাফ হোসেন জানান, বান্দরবানে পাঁচ জাতের বাদাম চাষ করা হয়ে থাকে। তিন দানা, ঝিঙ্গা, বারি-৫, ঢাকা-১, বারি-৫ ও স্থানীয় জাতের। তিন দানা ও ঢাকা-১ বীজে ফলন বেশি হওয়ায় এ জাতের চাষ করে চাষীরা।

তিনি আরো জানান, প্রতি বছর বন্যায় সাংগু নদীতে প্রচুর পলি মাটি জমে। বাদাম চাষের উপযোগী মাটি পাওয়ায় কৃষকেরা অধিক লাভের আশায় বাদাম বীজ বপণ করে। এক বিঘা জমিতে ১৮ কেজি বাদামের বীজ বপণ করলে ৭ থেকে ৮ মণ উৎপাদন হয়। বান্দরবানের আবহাওয়া ও পরিবেশ উপযোগী হওয়ায় কম খরচে অধিক লাভ তাই চাষীরা বাদাম চাষে ঝুঁকছে।

বাদাম চাষী জয়নাল জানান, বাদাম চাষে কম খরচে অধিক লাভ। বর্গা জমিতে চাষ করেও লাভবান হয়েছেন।

বাদাম চাষী ইসমাইল বলেন, বাদাম চাষে আমরা স্বাবলম্বী হয়েছি। নদীর পাড়ে চাষ করে তিন মাসের মধ্যেই বাদাম তুলে বিক্রি করতে পারি। পরিবারের সদস্যরা বীজ বপণ থেকে বাদাম তোলা পর্যন্ত কাজ করে।

বালাঘাটা বিলকিছ বেগম স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী ঝর্ণা বেগম জানান, পরিবারের সাথে সময় দিয়ে প্রায় সময় বাদামের জমিতে আগাছা পরিষ্কার করি। পরিবারের সদস্যদের সাথে গল্প করতে করতে বাদাম তোলার কাজে সাহায্য করি। এছাড়া বাদাম গাছ গরুর খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করি।

একাধিক বাদাম চাষী জানিয়েছেন, বাদাম চাষে সরকারিভাবে বীজ, সার সরবরাহ করা হয়না। কৃষি অফিস থেকে পরামর্শ পাওয়া যায়। বিভিন্ন এনজিও থেকে ঝণ নিয়ে বাদাম চাষ করি। বাদামে লাভ বেশি তাই লোন পরিশোধে তেমন কষ্ট হয়না। এই বাদাম চাষে কৃষকরা সরকারী সুযোগ সুবিধা পেলে এলাকায় বাদামের উৎপাদন আরো বৃদ্ধি পেত।

বান্দরবানে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের মাঝে নতুন শিক্ষাবর্ষের ব্রেইল বই বিতরণ

Bandarban -2,  11.2016

স্টাফ রিপোর্টার:

দেরিতে হলেও বান্দরবানে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের মাঝে নতুন শিক্ষাবর্ষের ব্রেইল বই বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় ব্রেইল বই শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দেন পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য কাঞ্চন জয় তঞ্চঙ্গ্যা।

এ সময় জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মিল্টন মুহুরী, রিসোর্স শিক্ষক সত্যজিৎ মজুমদার ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন।

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ ২ যুবক আটক

Bandarban pic-9.2

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ দু’জনকে আটক করেছ পুলিশ। মঙ্গলবার শহরের মধ্যম পাড়া এালাকা থেকে চুরি করে পালানোর সময় কালাঘাটা কারবারী পাড়া থেকে পুলু মং মারমা (১৯) ও মেহেদী হাসান (১৮) নামে দুই যুবককে আটক করে।

পুলিশ জানায়, আটক ব্যক্তিরা জেলার রাজবিলা ইউনিয়নের এক ব্যবসায়ীর মোটর সাইকেল চুরি করে পালাচ্ছিল। এ সময় পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মোটরসাইকেলসহ তাদের আটক করে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, পুলিশ অভিযান চালিয়ে মোটরসাইকেলসহ দুই যুবককে আটক করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

‘দেশটাকে পরিষ্কার করি’ দিবসে বান্দরবানে পরিষ্কার অভিযান

Bandarban meor pic-6.2

স্টাফ রিপোর্টার:

‘দেশটাকে পরিষ্কার করি’ স্লোাগানে বান্দরবানে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হয়েছে। শনিবার ‘পরিবর্তন চাই’ নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে বান্দরবান পৌরসভার উদ্যোগে পৌর মেয়র মো. ইসলাম বেবীর নেতৃত্বে কর্মসূচী পরিচালিত হয়। শুরুতে বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি’ অভিযানের শপথবাক্য পাঠ করান পৌর মেয়র।

এই অভিযান জেলা শহরের ট্রাফিক মোড় থেকে শুরু হয়ে বাসস্টেশনে শেষ হয়। পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অন্যান্যদের মধ্যে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিক উল্লাহ, পৌরসভার কাউন্সিলর দিলীপ বড়ুয়া, অজিত দাশ, থুইসিং প্রু লুবুসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতুববৃন্দসহ নানান শ্রেণি-পেশার শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক অংশ নেন।

অভিযানে পৌর মেয়র মো. ইসলাম বেবী বলেন, পৌর এলাকা পরিচ্ছন্ন রাখতে নাগরিকদের সহায়তা দরকার। একটি পর্যটন নগরী হিসেবে বান্দরবানকে গড়ে তুলতে হলে দূষণমুক্ত পরিবেশের কোনো বিকল্প নেই। শীঘ্রই বান্দরবান শহরকে দখল, দূষণ ও আবর্জনামুক্ত ঘোষণা করা হবে। বান্দরবানকে পরিকল্পিত পর্যটন শহরে রুপান্তিরিত করতে প্রয়োজনীয় সব ধরণের উদ্যোগ নেয়া হবে।

বান্দরবানে সোনালী ব্যাংকের শীতবস্ত্র বিতরণ

Bandarban Bank Pic

স্টাফ রিপোর্টার:

সোনালী ব্যাংক লিমিটেড বান্দরবান শাখার উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার জেলা শাখা অফিসে গরীব, দু:স্থ ও অসহায়সহ মোট ১০০ জনের মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করা হয়।

সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের সিএসআর এর আওতায় শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষীপদ দাস, আওয়ামী লীগ নেতা রহিম চৌধুরী, সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের বান্দরবান শাখার এজিএম মো. নাজিম উদ্দিন, জেলা শাখা ব্যবস্থাপক মো. নুরুল হক, শ্যামল তঞ্চঙ্গ্যা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় জেলা শাখা ব্যবস্থাপক মো. নুরুল হক বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই এই ধরণের কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে।

চিকিৎসকের উপর হামলার প্রতিবাদে বান্দরবানে ত্রিপুরা সংগঠনের মানববন্ধন

Bandarban pic-1.2

স্টাফ রিপোর্টার:

চট্টগ্রামে ডা. সানাই প্রু ত্রিপুরার উপরে পুলিশি হামলার প্রতিবাদে বান্দরবানে মানববন্ধন করেছে ত্রিপুরা সম্প্রদায়। সোমবার বান্দরবান প্রেসক্লাবের সামনে ত্রিপুরা স্টুডেন্টস কাউন্সিল সংগঠনের ব্যানারে ত্রিপুরা শিক্ষার্থীরা ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ত্রিপুরা স্টুডেন্টস্ কাউন্সিল সংগঠনের সভাপতি সুখেন্দু ত্রিপুরা, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জন ত্রিপুরা, উইলিয়াম ত্রিপুরাসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দায়িত্ব পালনের নামে পুলিশের সদস্যরা একজন চিকিৎসকের উপর নগ্ন হামলা খুবই দুঃখজনক। অবিলম্বে তদন্ত পূর্বক আগামী এক সপ্তাহের ঐ দোষী পুলিশের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর কর্মসুচী দেয়া হবে বলে হুশিয়ারী দেন বক্তারা।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় বান্দরবানে প্রথম দিনে ১৩জন অনুপস্থিত

Bandarban Dc pic-1.2

স্টাফ রিপোর্টার

বান্দরবানে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিনে অনুপস্থিত ১৩ জন পরীক্ষার্থী। সোমবার সকাল ১০টায় শুরু হয়ে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রথম দিনের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সূত্র জানায়, এসএসসি ও সমমানের ভোকেশনাল ও দাখিল পরীক্ষায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এবার বান্দরবানে ৩ হাজার ২শ ২৩জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়ার কথা ছিল। জেলার ৩৩টি বিদ্যালয়, ৪টি ভোকেশনাল ও ৯টি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা ১৭টি কেন্দ্রে অংশ নেয় পরীক্ষার্থীরা।

জেলা শিক্ষা কল্যাণ সূত্রে জানা যায়, ৩ হাজার ২শ ২৩জন শিক্ষার্থীর মধ্য এসএসসি ও সমমানের ১৩জন পরিক্ষার্থী অংশ নেয়নি।

বান্দরবান জেলায় এসএসসি পরিক্ষায় ১৯শ ৮৯ জনের মধ্য ৭জন অনুপস্থিত। বান্দরবান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ২জন, নাইক্ষংছড়িতে একজন, লামায় দুজন ও থানছিতে দুজন অনুপস্থিত।

ভোকেশনাল হতে ২৬৪ জন পরিক্ষার্থীর মধ্য ২৬১ জন পরিক্ষার্থী অংশ নেয়। মাদ্রাসা দাখিল পরীক্ষায় ৩৪৪ জনের মধ্য ৩৪১ জন পরিক্ষার্থী অংশ নেয়।

পাথর উত্তোলন বন্ধের দাবিতে বান্দরবানে মানববন্ধন

Bandarban pic-31.1

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে পাহাড়-ঝিড়ি খোদাই করে পাথর উত্তোলন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে পাহাড়ীরা। রোববার বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে সদর উপজেলার টংকাবর্তী ইউনিয়নের টংকাবতী, হরিণ ঝিড়ি ও টাকের পানছড়ি মৌজার পাহাড়ীরা ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে অংশ নেয়।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্যে টংকাবতী ইউনিয়নের হরিণ ঝিড়ি মৌজার হেডম্যান কাইনওয়াই ম্রো বলেন, পাহাড়ি দুর্গম এলাকায় বসবাসরত মানুষের পানির একমাত্র উৎস ঝিরি-খাল ও নদী। প্রতিনিয়ত সেখান থেকে পাথর উত্তোলনের ফলে পানির উৎস নষ্ট হচ্ছে। অবিলম্বে এসব জায়গা থেকে পাথর উত্তোলন বন্ধ ও জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান তারা।

মেনুং ম্রো কার্বারী অভিযোগ করে বলেন, সদর উপজেলার টংকাবতী ইউনিয়নের ৩টি মৌজায় শতশত বছর ধরে বসবাস করে আসছে ম্রো সম্প্রদায়। কিন্তু কয়েক বছর ধরে ইউনিয়নের টংকাবতী, হরিণ ঝিড়ি ও টাকের পানছড়ি মৌজা থেকে চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার অ্যাডভোকেট মকবুল আহমেদ, কালু মেম্বার ও আবদুর রহিম প্রভাব খাটিয়ে প্রশাসনের অনুমোদন ছাড়াই পাহাড় এবং ঝিড়ি ঝর্ণা খোদাই করে নির্বিচারে পাথর উত্তোলন করে যাচ্ছে। প্রতিদিন নিয়ম-নীতি না মেনে পাথর উত্তোলনের কারণে স্থানীয়দের পানির উৎস স্থল ঝিড়ি-ঝর্নাগুলোর পানি শুকিয়ে যাচ্ছে। পানি শুকিয়ে গেলে ঐ এলাকায় বসবাস করা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে ম্রো সম্প্রদায়ের।

মানববন্ধন কর্মসূচী শেষে পাথর উত্তোলন বন্ধের দাবিতে জেলা প্রশাসক দীলিপ কুমার বণিকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছেন টংকাবতী ইউনিয়নের বাসিন্দাররা।

বান্দরবানে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ ৩ ব্যবসায়ী আটক

Bandarban Tana pic-29.1

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবান পৌর এলাকার কাশেম পাড়ায় পৃথক অভিযান চালিয়ে ১২৫ পিস ইয়াবা টেবল্যাটসহ ২জন ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতরা হলেন, কক্সবাজারের মো. ছৈয়দ আলম, সমীর চন্দ্র দাশ ও মহেশখালীর দেলওয়ার হোসেন।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে শহরের কাসেম পাড়া এলাকায় অভিযান কালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ছৈয়দ আলম ও দেলয়ার নামে দুই যুবক দৌড় দিলে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে আটক করে। তাদের কাছ থেকে ১০৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

অন্যদিকে, ওই রাতেই শহরের বাজারের ১নং গলির কামাল হোটেলের সামনে থেকে ইয়াবা বিক্রি কালে ২০ পিস ইয়াবাসহ সমীর চন্দ্র দাশকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে বান্দরবান সদর থানার ওসি রফিক উল্লাাহ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে কাশেম পাড়া এলাকার রাস্তার মুখ থেকে দুজন এবং বাজার এলাকা থেকে একজনকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বান্দরবানে ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরামের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত

Bandarban mp pic-29.1

স্টাফ রিপোর্টার:

ত্রিপুরা ফোরাম বান্দরবান জেলা শাখার ৫ম কাউন্সিল ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ক্ষুদ্র নৃ-গাষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে সুকেন্দু ত্রিপুরা সভাপতি, শান্তি ত্রিপুরা সাধারণ সম্পাদক ও সমীরণ ত্রিপুরাকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি।

বান্দরবানে ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরামের সভাপতি মাচং উইলিয়াম ত্রিপুরার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা প্রশাসক দীলিপ কুমার বণিক, অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার রেজাউল মাসুদ, জেলা পরিষদ সদস্য সাদুরাম ত্রিপুরা মিল্টন, খুশি রায় ত্রিপুরা, রাফায়েল ত্রিপুরা প্রমূখ। কাউন্সিলে জেলার ৭টি উপজেলার ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের শত শত শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, কাউন্সিলরের মাধ্যমে ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি ছাড়াও উপজেলা কমিটি এবং লামা, নাইক্ষংছড়ি ও বান্দরবান কলেজ শাখা কমিটি গঠন করা হবে।