নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারীতে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার

Capture

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী থেকে এক নারী ও তার পনের মাস বয়সী মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে বাইশারী সদর থেকে অন্তত ১২ কি. মি. দূরে দুর্গম আলীক্ষ্যং গ্রামের খাল থেকে ভাসমান অবস্থায় তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক ভাবে বিষ পান অথবা পানিতে ডুবে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। নিহত দুইজন হলেন রেহেনা বেগম (২২) ও তার ১৫ মাস বয়সী মেয়ে নাজনিন আক্তার।

পুলিশ জানায়, রবিবার সকালে স্থানীয় এক প্রতিবেশী আলীক্ষ্যং খালে গেলে নাছির উদ্দিন এর স্ত্রী রেহেনা বেগম ও তার শিশু মেয়েকে খালের হাটু পরিমাণ পানিতে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পায়। পরে খবর পেয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল খায়ের, বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই আনিসুর রহমান, এসআই জয়নাল ঘটনাস্থল থেকে ওই মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

স্থানীয়রা জানান, গত কয়েক দিন পূর্বে রেহেনা বেগমের দেবর মো. মহারাজ (১৭) এর সাথে পারিবারিক তর্কবিতর্ক হয়। পরে নিহতের স্বামী নাছির উদ্দিন পাহাড়ে ফুলের ঝাড়ু সংগ্রহে যাওয়ার পর রবিবার সকালে তাদের লাশ পাওয়া যায়। ঘটনার পর বাইশারী পুলিশ নিহতের বসতবাড়ি থেকে খোলা একটি বিষের বোতল উদ্ধার করেছে এবং নিহতের দেবর মো. মহারাজ (১৭) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নিয়েছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল খায়ের জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধানে মায়ের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি তবে শিশু মেয়ের ঘাড়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

প্রতিবেশী ও স্বামীর কাছ থেকে জানা গেছে, গত কয়েক দিন পূর্বে নিহতের স্বামী নাছির উদ্দিনের ছোট ভাই মো. মাহারাজের সাথে ঝগড়া হয়। ঘটনার পর নাছির উদ্দিনের বাড়ি থেকে একটি বিষের বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, রেহেনা বেগম ও নাছির উদ্দিনের গত দুই বছর পূর্বে বিবাহ হয়। তাদের পরিবারে একমাত্র মেয়ে ছিল নাজনিন আক্তার।

বাইশারীতে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

IMG_1638 copy

বাইশারী (নাইক্ষ্যংছড়ি) প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৬ উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বাইশারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে এই র‌্যালি বের করা হয়।

প্রধান শিক্ষক কামাল হোছাইনের নেতৃত্বে “মান সম্মত শিক্ষা জাতির প্রতিজ্ঞা, শিক্ষাই শক্তি শিক্ষাই মুক্তি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বাইশারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে শিক্ষার্থী, অভিভাবক, ম্যানেজিং কমিটি ও এলাকার সুশীল সমাজকে নিয়ে র‌্যালিলি বাইশারী বাজার হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এসে শেষ হয়।

র‌্যালি শেষে বেলা ১১টার সময় বিদ্যালয় হলরুমে শিক্ষা সপ্তাহ নিয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমানের পরিচালনায় পরিচালনায় ও কমিটির সভাপতি মো. আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক মো. জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রধান শিক্ষক কামাল হোছাইন, পরিচালনা কমিটির সদস্য হাজী নুরুন্নবী, জলিলুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা মাওলানা আব্দুর রহিম প্রমূখ।

বাইশারীতে বোমা বিষ্ফোরণে পুলিশ সদস্য আহতর ঘটনায় পুলিশ সুপারের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

01 (1)

বাইশারী (নাইক্ষ্যংছড়ি) প্রতিনিধি:

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে পুঁতে রাখা বোমার বিষ্ফোরনে পুলিশ সদস্য আহতর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৩০মিনিটের সময় বান্দরবান জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা জব্দকৃত আলমত গুলো পরীক্ষা করে দেখেন।

এছাড়া সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ তথ্য অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে এখন পর্যন্ত ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে কাউকে আটক করা যায়নি।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক বলেন, বাইশারী বাজার একটি জনগুরুত্ব এলাকা এবং বাইশারী এলাকায় অবস্থিত পাহাড়ী-বাঙ্গালী সকলে সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ। একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে সন্ত্রাসীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারণা করছেন।

অন্যদিকে, আহত পুলিশ সদস্য বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের কনস্টেবল মাকসুদুর রহমান (২৪) বলে জানা গেছে। আহত পুলিশ সদস্যকে বাইশারী বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থার অবনতি ঘটায় রাত ১২টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি আশঙ্কা মুক্ত বলে পুলিশ জানায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এএসআই সোলাইমান ভূঁইয়া জানান, বুধবার রাত আনুমানিক ৮.৪০ মিনিটের সময় তিনি সহ আরো ৩ পুলিশ সদস্য সড়কের পাশের দোকানে রাস্তার উপর লাগানো চেয়ারে বসে চা পান করছিলেন। হঠাৎ বিকট শব্দে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরক্ষণে এক পুলিশ সদস্যকে নিচে পড়ে থাকতে দেখে তাকে মাটি থেকে উদ্ধার করে স্থানীয় ক্নিনিকে নিয়ে যান। তার ডান পায়ের তালুর উপরি ভাগ ক্ষত হয়ে মাংস ছিড়ে যায় বলে জানান।

ফলোআপ

সে সময় বাজারের লোকজন আতংকিত অবস্থায় দিগ্বিদিক ছুটাছুটি করছিল। এরপর পরই স্থানীয় জনতা ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে একখানা বিদ্যুৎতের তার দেখতে পেয়ে অনুসন্ধানে আরো লম্বা ৩০ ফুট তারের সাথে ব্যাটারী সংযোগ স্থাপন করা দুইটি তারের সন্ধান পায়। এতে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করেছেন কোন সন্ত্রাসী গ্রুপ এ ঘটনা ঘটাতে পারে।

উক্ত ঘটনার পরপরই নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ঘটনাস্থল থেকে বোমার আঘাতে ভাংচুর হওয়া চেয়ার, ধংস হওয়া বিস্ফোরকের আলামত জব্দ করেন।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের জানান, পুতে রাখা বস্তুটি বিস্ফোরক দ্রব্য। অবশ্যই তদন্ত করে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টদের খুজে বের করা হবে।

এই রিপোর্ট পাঠানো পর্যন্ত ঘটনাস্থল পুলিশ বিজিবির নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে রয়েছে।

বাইশারীতে ইকরা রাবার বাগানে সন্ত্রাসীদের তাণ্ডব

IMG_1610 copy

বাইশারী (নাইক্ষ্যংছড়ি) প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে ইকরা রাবার বাগানে সন্ত্রাসীরা তাণ্ডব চালিয়ে বাগানে রক্ষিত মালামালসহ সাইনবোর্ড ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার বিকাল ৫ টায় বাইশারীস্থ ইকরা রাবার বাগানের ৮নং সিটে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী বাগান পাহারাদার আবু তাহের জানান, স্থানীয় একজন অর্ধডজন মামলার আসামি, চিহ্নিত সন্ত্রাসীসহ ৪জন অপরিচিত লোক হঠাৎ বাগানে প্রবেশ করে কিছু বুঝে উঠার আগেই নিজেদের প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে লাঠি-সোটা দিয়ে বাগানের সাইনবোর্ড, বাটি, সীমানা পিলার ভাংচুর করে। এক পর্যায়ে তারা বাগানের ম্যানেজারকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে এবং মালিককে হুমকি প্রদান করে। সন্ত্রাসীরা আগামী ১৪ দিনের মধ্যে বাগান ছেড়ে চলে যাওয়ারও আল্টিমেটাম দেয়। অন্যথায় দলবল দিয়ে ২ সপ্তাহের মধ্যে বাগান দখল নিতে বাধ্য হবে বলে উল্লেখ করে।

বাগান ব্যবস্থাপক জাফর আলম বলেন, গত কিছুদিন আগেও এক ব্যক্তি তাকে মিডিয়ার লোক পরিচয়ে মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়ে বাগান ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য বলে। বিষয়টি প্রাশাসনকে জানিয়ে তিনি নিরাপত্তা চেয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রে সাধারণ ডাইরী করেছেন। গতকাল মঙ্গলবারও তিনি বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আরো একটি সাধারণ ডায়েরী করেন বলে এই প্রতিবেদককে জানান তিনি। যার ডায়েরী নং-১১২।

জানা যায়, সূত্র লীজ মামলা নং- ২৩/১৯৮৬/৮৭ইং তে ড. রাগিব মঞ্জুর এর নামে ৪০ বছর পর্যন্ত শর্ত সাপেক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে রাবার বাগান সৃজন করে প্রতি বছর সরকারী রাজস্ব প্রদান করে অদ্যবধি রাবার বাগান ভোগ দখলে আছে। হঠাৎ এধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে আশপাশের বাগান মালিকেরাও আতঙ্কিত বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আনিছুর রহমান বলেন, তিনি এধরনের ঘটনা শুনেছেন এবং বাগান ব্যবস্থাপক গতকাল সোমবার একখানা সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

বাইশারীতে ২ দিনব্যাপী তাফসীরুল কোরআন মাহফিল সম্পন্ন

01

বাইশারী (নাইক্ষ্যংছড়ি) প্রতিনিধি:

পার্বত্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে ২ দিনব্যাপী তাফসীরুল কোরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত মঙ্গলবার ও বুধবার ইলমূল কোরআন সংস্থার উদ্যোগে বাইশারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই মহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

বান্দরবান রেষ্ট হাউস মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল গফুরের সভাপতিত্বে মহফিলে মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক।

মহফিলে বক্তারা বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, ইসলাম কোনদিন জঙ্গিবাদ, অস্ত্রবাজ ও খুন খারাবি সমর্থন করেন না। ইসলাম ধর্মে এ সবের কোন প্রকার স্থান নাই বলে উল্লেখ করে বক্তারা আরো বলেন, ইসলামই সর্ব প্রথম নারীদের অধিকার নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া কোরআন ও হাদিসের আলোকে দুনিয়া এবং আখেরাতের বিশাদ ব্যাখ্যা তুলে ধরেন হাজারো আগত ধর্ম প্রাণ মুসলমানদের মাঝে।

সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান ও হাফেজ মওলানা ইসমাঈলের পরিচালনায় মাহফিলের প্রথম দিনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেণ আল্লামা আখতার হোছাইন।

দ্বিতীয় দিবসে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন আল্লামা গাজী ইয়াকুব ওসমানী (ঢাকা)।
এছাড়া মাহফিলে দেশ বরেণ্য ওলামায়ে কেরামগণ উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. আলম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর, বাইশারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাস্টার কামাল হোছাইন প্রমূখ।

উল্লেখ্য বাইশারী ইলমূল কোরআন সংস্থার পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাফেজ মৌলানা ইসমাঈল ,সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাসুদ, কোষাধক্ষ মাওলানা সেলিমের উদ্যোগে বিগত দিনেও এলাকায় ছহি কোরআন প্রশিক্ষণ, রমজান ও কুরবানের মসল্লা মসায়েলসহ নানা কর্মসূচী পালন করে থাকেন।

বাইশারীতে দাখিল পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠিত

1

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী শাহ নুরুদ্দীন দাখিল মাদ্রসার ২০১৬ সালের দাখিল পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান বেলা ১১ টায় মাদরাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুর রশিদের সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদরাসার সুপার মাওলানা নুরুল হাকিম।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য ও লামা পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক, জেলা আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সদস্য মো. আলম কোম্পানী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর, সদস্য সচিব মংথোয়াইলা মার্মা, যুগ্ন সচিব মৌলানা আব্দুর রহিম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক উছাহ্লা চাক, সাবেক চেয়ারম্যান জালাল আহমদ, শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব মীম ছালেহ আহমদ, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আলহাজ্ব ইলিয়াছ সওদাগর, বাইশারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কামাল হোছাইন, যুবদল সভাপতি এস এম আক্তারুজ্জামান, সাংবাদিক আব্দুল হামিদ, বশিরুল আলম, প্রাক্তন মাদ্রাসা ছাত্র ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মুফিজুর রহমান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুরুল কবির রাশেদ প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য ও লামা পৌরসভা চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম বলেন, একমাত্র সুশিক্ষায় শিক্ষিত জাতিরাই দেশ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। শাহ্ নুরুদ্দীন দাখিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ভাল ফলাফল অর্জন করে আসছে। আগামীতেও দেশ ও জাতি গড়ার জন্য ভাল ফলাফল অর্জনসহ সকলকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ মাতৃকার কল্যানে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। অনুষ্ঠানে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে ও শিক্ষর্থীদের পক্ষ থেকে দাখিল বিদায়ী পরীক্ষার্থীদের বিদায়সহ পুরুস্কার প্রদান করেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের দাবিতে বাইশারীতে মানববন্ধন

dd

বাইশারী প্রতিনিধি:

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তির যথাযথ, দ্রুত ও পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন এবং সমতল অঞ্চলে আদিবাসীদের জন্য ভূমি কমিশনের দাবিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটি, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম (পার্বত্য চট্টগ্রাম শাখা) ও সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক এর উদ্যোগে তিন পার্বত্য জেলার ন্যায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতেও আদিবাসী জনগনের পক্ষ থেকে গণ-মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাইশারী স্কুল সড়কে সোমবার সকাল ১০.৩০ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে জেএসএস নেতৃবৃন্দ ছাড়াও পাহাড়ী-বাঙ্গালী শতাধিক লোক অংশগ্রহণ করেন। এ সময় তারা বিভিন্ন দাবিনামা সম্বলিত ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন শেষে এক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি বাইশারী বাজার প্রদিক্ষণ শেষে উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে গিয়ে শেষ হয়।

গণ-মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন জেএসএস বাইশারী সভাপতি নিউহ্লামং মার্মা, মুক্তিযোদ্ধা ধংছাই কারবারী, সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল হাকিম, মংথোয়াইহ্লা হেডম্যান, মংক্যাহ্লা কারবারী, মংছাঅং চাক, হ্লাথোয়াইঙ্গা চাক, ক্যাচিমং, মংথোয়াই চাক, মাষ্টার মংহ্লাচিং, উমু চাক, হ্লাথোয়াইছা কারবারী, অংছাচিং কারবারী, মংওয়াই মার্মাসহ শত শত পাহাড়ী-বাঙ্গালী লোকজন।

মানববন্ধনত্তোর আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরের ১৮ বছর পার হলেও চুক্তির মৌলিক বিষয় সমূহ অবাস্তবায়িত অবস্থায় রয়ে গেছে। তাই বক্তারা বাইশারীর মাটি থেকে সরকারের কাছে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা আরো বলেন, বর্তমানে বাইশারীতে প্রশাসনের ছত্রছায়ায় হাজার হাজার একর পাহাড়ী খাস ভূমি বহিরাগত ভূমিদস্যুরা দখল করে রেখেছে। সরকারের কাছে এসব পাহাড়ী খাস ভূমি বহিরাগতদের কাছ থেকে পূনরুদ্ধারের দাবি জানান।