জেএসএসের কারণে পাহাড়ী ছাত্ররা ছাত্রলীগ করতে পারছে না- দীপংকর তালুকদার

12606762_978611458879143_1481615760_n

স্টাফ রিপোর্টার:

রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ টেন্ডারবাজি, দখলদারিত্ব করতে পারে না। ছাত্রলীগ মেধাবী ছাত্রদের সংগঠন। আমার রাজনীতিও ছাত্রলীগ দিয়ে শুরু হয়েছিল। এরপর আমি এমপি হয়েছি মন্ত্রী হয়েছি। আজকের ছাত্রলীগের মেধাবী নেতা কর্মীরাই ভবিষ্যতে দেশকে নেতৃত্ব দেবে।

শনিবার লংগদু উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ছাত্রলীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা যখন ছাত্রলীগ করতাম তখনও পার্বত্য অঞ্চলে জাতীয় রাজনীতির প্রভাব পড়েনি। পাহাড়ী শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ করার কারণে অনেক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। বর্তমানেও জেএসএসের কারণে পাহাড়ী ছাত্ররা ছাত্রলীগ করতে পারছে না। পাহাড়ীরা জাতীয় রাজনীতি করতে চাইলে তাদের হত্যা ও গুম করার হুমকি দেয়।

তিনি বলেন, নিজেদের টাকায় পদ্মাসেতু হবে এটা কোনদিন এদেশের মানুষ কল্পনাই করতে পারেনি। জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। অর্থনৈতিকভাবে বেশ এগিয়েছে বাংলাদেশ, এমনকি তথ্যপ্রযুক্তি, যোগাযোগসহ বিভিন্ন খাতে অগ্রগতি অর্জন করেছে দেশ।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ লংগদু উপজেলা শাখার সভাপতি জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মুছা মাতব্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক ক্যারল চাকমা, প্রচার সম্পাদক মমতাজ উদ্দীন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল বারেক সরকার, সাধারণ সম্পাদক জানে আলম।

ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হাসানের সঞ্চালনায় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক মীর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ঝান্টু, জেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নজরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. হানিফ রেজা, রাবেতা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ হৃদয়।

আলোচনা সভার পূর্বে সকাল দশটায় এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা উপজেলার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়। এপর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দীপংকর তালুকদার কেক কাটার মধ্যদিয়ে ৬৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। বিকেল পরিবেশিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।