জেএসএসের এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করছে রাঙামাটির স্থানীয় প্রশাসন- ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় বর্ধিত সভায় অভিমত

দতকহজ

স্টাফ রিপোর্টার:

জেএসএসের এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করছে রাঙামাটির স্থানীয় প্রশাসন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় বর্ধিত সভায় জোরালে ভাষায় অভিযোগ করেন রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল জব্বার সুমন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস’র এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে কাজ করছে রাঙামাটির স্থানীয় প্রশাসন। এমনই মনে হচ্ছে আমাদের। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হওয়া ৬ষ্ঠ পর্যায়ের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যে ধরনের নূন্যতম সহযোগিতা আইনানুগ ভাবেও পাওয়ার কথা ছিলো সেই ধরনের সহযোগিতা প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা হয়নি বলে অভিযোগ করে ছাত্রলীগ সভাপতি জানান, আঞ্চলিকদলীয় সন্ত্রাসীদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের অসহযোগিতা করছে স্থানীয় প্রশাসন।

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে আয়োজিত দুইদিনব্যাপী কেন্দ্রীয় বর্ধিত সভায় অংশ নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করে নিজের বক্তব্যে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এই দাবি জানান।

সারাদেশের ১২০টি সাংগঠনিক ইউনিটের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক আয়োজিত উক্ত বর্ধিত সভায় ছাত্রলীগ সভাপতি সুজন আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতি জেএসএস, ইউপিডিএফ ও সংস্কারপন্থী এমএন লারমা গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হাতে থাকা অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধে বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিক সম্মেলন, মানববন্ধনসহ বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচীর মাধ্যমে দলীয় হাই কমান্ড ও সরকারের উচ্চ পর্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে পার্বত্য এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান পরিচালনার জন্য আমরা কর্মসূচী পালন করেছি। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের অসহযোগিতার কারনে তৃণমুল নেতাকর্মীরদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে না, বারবারই উপেক্ষিত থেকে যাচ্ছে।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমার উপস্থিতিতে রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন সিনেটের বক্তব্যে আরো বলেন, এখনই যদি আঞ্চলিক দলীয় সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা না হয়, তাহলে ভবিষ্যতে রাঙামাটি তথা পার্বত্য চট্টগ্রামে ছাত্রলীগসহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের কেউই সুষ্ঠুভাবে রাজনীতি করাতো দূরের কথা নিরাপদে চলাফেরাও করতে পারবে না।

রোববার সকাল ১০ থেকে শুরু হওয়া এই বর্ধিত সভার উদ্বোধন করেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমানে যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। দুইদিন ব্যাপী চলা এই বর্ধিত সভা আজ বিকেল পর্যন্ত চলবে বলে জানা গেছে।

কক্সবাজারে ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতা খুন

খুন

নিজস্ব প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের উখিয়ায় উপজেলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে মোহাম্মদ শাহিন (২১) নামে এক ছাত্রলীগ নেতা খুন হয়েছেন। নিহত শাহীন উখিয়া ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক এবং রাজাপালং ইউনিয়নের ফলিয়াপাড়ার মো. কালু হাজীর ছেলে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উখিয়া সদর স্টেশনের জামান হোটেলর সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান উখিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান।

নিহতের স্বজনদের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, উখিয়া হাইস্কুল মাঠে আয়োজিত শিল্প ও বাণিজ্য মেলায় লোকজনের ভীড়ে শাহীনের সঙ্গে এক যুবকের ধাক্কা লাগে। এনিয়ে সেখানে তাদের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয়। মেলা থেকে বাড়ি ফেরার পথে উখিয়া স্টেশনের জামান হোটেলের সামনে ২/৩ জন যুবক শাহীনকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান মুরাদ বলেন, গুরুতর আহত অবস্থায় শাহীনকে হাসপাতালে আনা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তার শরীরের পেটে ও পিটে তিনটি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন মিথুন বলেন, বাণিজ্য মেলায় লোকজনের ভীড়ে উখিয়ার সিকদার পাড়া এলাকার জাহাঙ্গীর (২২) ও সাগর (২০) নামের দুই যুবকের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতা শাহীনের ধাক্কা লাগে। এনিয়ে বাড়ী ফেরার পথে জাহাঙ্গীর ও সাগর সহ ২/৩ জন যুবক তাকে ছুরিকাঘাত করেছে।

নিহতের লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে দুপুরে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে জানিয়ে ওসি হাবিবুর বলেন, ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

জেএসএসের কারণে পাহাড়ী ছাত্ররা ছাত্রলীগ করতে পারছে না- দীপংকর তালুকদার

12606762_978611458879143_1481615760_n

স্টাফ রিপোর্টার:

রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ টেন্ডারবাজি, দখলদারিত্ব করতে পারে না। ছাত্রলীগ মেধাবী ছাত্রদের সংগঠন। আমার রাজনীতিও ছাত্রলীগ দিয়ে শুরু হয়েছিল। এরপর আমি এমপি হয়েছি মন্ত্রী হয়েছি। আজকের ছাত্রলীগের মেধাবী নেতা কর্মীরাই ভবিষ্যতে দেশকে নেতৃত্ব দেবে।

শনিবার লংগদু উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ছাত্রলীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা যখন ছাত্রলীগ করতাম তখনও পার্বত্য অঞ্চলে জাতীয় রাজনীতির প্রভাব পড়েনি। পাহাড়ী শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ করার কারণে অনেক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। বর্তমানেও জেএসএসের কারণে পাহাড়ী ছাত্ররা ছাত্রলীগ করতে পারছে না। পাহাড়ীরা জাতীয় রাজনীতি করতে চাইলে তাদের হত্যা ও গুম করার হুমকি দেয়।

তিনি বলেন, নিজেদের টাকায় পদ্মাসেতু হবে এটা কোনদিন এদেশের মানুষ কল্পনাই করতে পারেনি। জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। অর্থনৈতিকভাবে বেশ এগিয়েছে বাংলাদেশ, এমনকি তথ্যপ্রযুক্তি, যোগাযোগসহ বিভিন্ন খাতে অগ্রগতি অর্জন করেছে দেশ।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ লংগদু উপজেলা শাখার সভাপতি জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মুছা মাতব্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক ক্যারল চাকমা, প্রচার সম্পাদক মমতাজ উদ্দীন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল বারেক সরকার, সাধারণ সম্পাদক জানে আলম।

ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হাসানের সঞ্চালনায় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক মীর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ঝান্টু, জেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নজরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. হানিফ রেজা, রাবেতা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ হৃদয়।

আলোচনা সভার পূর্বে সকাল দশটায় এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা উপজেলার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়। এপর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দীপংকর তালুকদার কেক কাটার মধ্যদিয়ে ৬৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। বিকেল পরিবেশিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মাটিরাঙ্গায় ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা শ্রীঘরে

ra-pe.thumbnail

পার্বত্যনিউজ রিপোর্ট :

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় নারী নির্যাতনের অভিযোগে এক ছাত্রলীগ নেতা এখন শ্রীঘরে। নারী নির্যাতনের অভিযোগে আটক ছাত্রলীগ নেতাকে আজ সকালে খাগড়াছড়ি আদালতে পাঠালে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে শ্রীঘরে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 

গতকাল সোমবার বেলা ১১টার দিকে তাকে ভুইয়া পাড়াস্থ একটি পোল্ট্রি ফার্মের অফিস কক্ষ থেকে মাটিরাঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো: নয়ন (২৬) কে আটক করে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ। আটক ছাত্রলীগ নেতা মাটিরাঙ্গা পৌরসভার চক্রপাড়া এলাকার বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো: আবুল কালাম‘র ছেলে।

জানা গেছে, মাটিরাঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো: নয়ন দীর্ঘদিন ধরে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার নতুনপাড়া গ্রামের মো: আবদুল মান্নানের মেয়ে স্কুল ছাত্রী মুন্নী আকতার বুলবুলী (১৮) এর সাথে বিগত তিন বছর ধরে প্রেম করে আসছে। ঘটনার দিন গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে তাকে বিয়ের কথা বলে মোবাইল ফোন করে তাদের মালিকানাধীন পোল্ট্রি ফার্মে আসতে বলে। প্রেমিকের সরল প্রস্তাবে আশ্বস্ত হয়ে মুন্নী আকতার বুলবুলী পোল্ট্রি ফার্মে আসলে ছাত্রলীগ নেতা মো: নয়ন তাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাটিরাঙ্গা থানার সাব ইনসপেক্টর কাজী মো: নাজমুল হক ও কাজী মো: মাহফুজ হাসান সিদ্ধিকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগ নেতা মো: নয়নকে আটক করে। এসময় পুলিশ ছাত্রলীগ নেতার ধর্শনের শিকার মুন্নী আকতার বুলবুলীকে উদ্দার করে থানায় নিয়ে আসে।

বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় ভাবে মীমাংসার নিষ্পল চেষ্ঠা করেন বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। কিন্তু ধর্ষিত মুন্নী আকতার বুলবুলী ও তার পরিবার মীমাংসা প্রস্তাবে রাজি না হয়ে মুন্নী আকতার নিজে বাদী হয়ে সোমবার বিকালের দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন আইন-২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ০৭/৯(১) ধারা মতে ছাত্রলীগ নেতা মো: নয়নকে আসামী করে মাটিরাঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করে। মাটিরাঙ্গা থানার মামলা নং-০৬।

মাটিরাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: মাইন উদ্দিন খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আটক ছাত্রলীগ নেতা মো: নয়নকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বান্দরবানে এক নিরীহ ড্রাইভারের বসতঘরে ভাঙচুর চালিয়েছে ছাত্রলীগের কর্মীরা, আটক ১

Bandarban 7.1.2014
স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে আইয়ুব নামের এক নিরীহ ড্রাইভারের বসতবাড়ি ভাংচুর করেছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। জেলা শহরের রোয়াংছড়ি বাস ষ্টেশন সংলগ্ন এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় ড্রাইভার আইয়ুব ও তার শিশুকন্যা আঁখি আহত হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মঙ্গলবার পুলিশ রুবেল নামে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাতে জেলা ও কলেজ ছাত্রলীগের ২০/২৫ জনের দল লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে নন্নাই নামের এক ব্যক্তিকে খুঁজতে থাকে। দুবৃত্তরা নন্নাইয়কে খুঁজে না পেয়ে আইয়ুবের বসতবাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। বসতঘর ভাংচুরে বাধা দেওয়ায় তারা আইয়ুবের উপরেও হামলা চালায়। এসময় তার শিশু কন্যা আঁখিও আহত হয়।

এ ঘটনায় আজ পুলিশ অভিযান চালিয়ে রুবেল নামে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে আটক করেছে। তবে এ ঘটনার সাথে ছাত্রলীগ জড়িত নয় বলে দাবি করেছেন ছাত্রলীগের কলেজ শাখার আহবায়ক আহসানুল হক রুমু।  

সাম্প্রদায়ীকতার বিরুদ্ধে ঐক্যর জয় হয়েছে : বীর বাহাদুর

Bandarban mp pic-2 6.1.2014(1)

স্টাফ রিপোর্টার :
এ নির্বাচনে জয় আমার একার নয়, আওয়ামী লীগের জয়, বান্দরবানবাসীর জয়। সাম্প্রদায়ীকতার বিরুদ্ধে ঐক্যর জয়। সর্বস্তরের জনগণ আমাকে ভোট দিয়েছে বলে আমি নির্বাচিত হয়েছি। আমি জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলের কাছে কৃতজ্ঞ।

সোমবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে টানা পঞ্চমবারের মত বান্দরবান থেকে সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন। ১৯৪৮ সালে পাকিস্তানী শাসকদের বিরুদ্দে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আওয়ামীলীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। ছাত্রলীগ ’৫২ ভাষা আন্দেলন, ’৬৬ অসহযোগ আন্দোলন, ’৭১ স্বাধীনতা যুদ্ধে ও ’৯০ দশকে স্বৈরচার বিরোধী আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। তৎকালীন সময়ের আন্দোলনরত অনেক ছাত্রনেতা বর্তমান সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন।

বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রামেদুল ইসলাম রাশেদের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মাঝে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. ইসহাক, এ কে এম জাহাঙ্গীর, ইসলাম বেবী, সাধারণ সম্পাদক কাজি মজিবর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক লক্ষী পদ দাশ, চৌধুরী প্রকাশ বড়–য়া, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন চৌধুরী সঞ্জয় প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বীর বাহাদুর আরও বলেন, সাম্প্রদায়ীকতা রুখতে জেলার সাধারণ মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে জয়যুক্ত করেছেন। আমি জীবন দিয়ে হলেও জেলার সাম্প্রাদয়ীক সম্প্রীতি বজায় রাখব।

আলোচনা সভার আগে প্রধান অতিথি ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটেন।  

রামুতে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

ramu bsl pic SAM_0246

খালেদ হোসেন টাপু ,রামু : রামুতে ঝাঁক-জমকপূর্ণ পরিবেশে ছাত্রলীগের ৬৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার ৪ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১১টায় রামু কলেজ থেকে একটি র‌্যালি চৌমুহনীর বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।  

র‌্যালি শেষে ওসমান ভবনে কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ফয়সাল হক রাজীবের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক নুর আল হেলাল, রামু ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল কবির হেলাল, উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা সাহাব উদ্দিন, হোছাইন মাহমুদ রিফাত, মিঠূন চন্দ্র নাথ, কক্সবাজার পলিটেকনিক ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সালাউদ্দিন মাহমুদ, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ন-আহবায়ক সত্যজিত বড়–য়া, রাজারকুল ছাত্রলীগের সভাপতি মাসেকুর রহমান মাসেক, মিঠাছড়ি সভাপতি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ, গর্জনিয়া সভাপতি মিজানুর রহমান, খুনিয়া পালং ছাত্রলীগের সভাপতি দেলওয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইসমাইল, কচ্ছপিয়ার সাধারণ সম্পাদক লবা কর্মকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুল ইসলাম, সহ-সভাপতি সাহাব উদ্দিন, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক মো. রাসেল, মোর্শেদ, সদস্য মিশু বড়–য়া, মো. শাকিল, চৌচিং রাখাইন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, বাংলাদেশের সকল আন্দোলন সংগ্রামে ছাত্রলীগের ভূমিকা অপরিসীম। বক্তরা ছাত্রলীগের ইতিহাস ও আদর্শ অনুসরণ করে নতুন প্রজন্মকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে আগামীর পথে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।

আলোচনা সভা শেষে ছাত্রলীগের উপস্থিত নেতা কর্মীদের কেক কাটার মধ্যদিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ছাত্রলীগের ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সম্পন্ন করা হয়।