খাগড়াছড়িতে দুইটি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি, সামরিক পোশাকসহ ইউপি সদস্য গ্রেফতার 

kkkkk copy

স্টাফ রিপোর্টার:

খাগড়াছড়িতে দুইটি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি, সামরিক পোশাক, বাইনোকুলার ও বিদেশী মুদ্রাসহ এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে যৌথবাহিনী।

বৃহস্পতিবার রাত ২ টার দিকে সদর উপজেলার দেবতাপুকুরের নিকটবর্তী থলিপাড়া থেকে কালিবন্ধু ত্রিপুরা(৫৬) নামের এই ইউপি সদস্যের বাড়ি তল্লাসী করে এসকল অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জামাদি পাওয়া যায়। এসময় যৌথবাহিনী পুত্রসহ তাকে গ্রেফতার করে।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যৌথবাহিনীর একটি দল খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ১ নং ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার কালিবন্ধু ত্রিপুরার থলিপাড়ার বাসভবন তল্লাশী করার উদ্দেশ্যে ঘেরাও করে যৌথ বাহিনী। এসময় তাদেরকে আটক করে বাড়ির বাইরে নিয়ে এসে অস্ত্রের কথা জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা অস্বীকার করে। পরে যৌথবাহিনী তাদের বাড়ি তল্লাশী করলে বাড়ির বিভিন্ন স্থান থেকে দুইটি এলজি, ৩ রাউন্ড এলজি’র গুলি, একটি বাইনোকুলার, প্রতিবেশী একটি দেশের সেনাবাহিনীর সামরিক পোশাক,  ২১০ রুপী বিদেশী মুদ্রা আটক করা হয়।

kmjg copy

এসময় কালিবন্ধু ত্রিপুরা ও তার ছেলে যতীন ত্রিপুরা(৩০)কে আটক করে যৌথবাহিনী। গ্রেফতারকৃত কালিবন্ধু ত্রিপুরা জেএসএস সংস্কার দলের সাথে জড়িত ও এলাকায় চাঁদাবাজ হিসাবে চিহ্নিত বলে যৌথবাহিনী সূত্র দাবী করেছে।

শুক্রবার আটককৃতদের খাগড়াছড়ি সদর থানায় হস্তান্তর করা হযেছে বলে জানা গেছে।

কাভার্ড ভ্যান থামিয়ে ছিনতাইকালে দুই উপজাতীয় পুলিশ সদস্যকে জনতা কর্তৃক গণধোলাই

ছিনতাই

আব্দুল হামিদ, বাইশারী প্রতিনিধি:

বাইশারী-ঈদগড় সড়কে রাবার ভর্তি কাভার্ড ভ্যান থামিয়ে ছিনতাইকালে দুই পুলিশ সদস্যকে জনতা কর্তৃক গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২৮ জানুয়ারী রাত আনুমানিক ৮টা ৩০মিনিটের সময় রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নের করলিয়ামুরা রাস্তার মাথা নামক স্থানে।

স্থানীয় লোকজন জানান,বাইশারী থেকে সন্ধা ৭টার দিকে রাবার ভর্তি একটি কাভার্ড ভ্যান সড়ক দিয়ে যাওয়ার পথে ঈদগড় পুলিশ ক্যাম্পের দুই সদস্য নায়েক শান্তি লাল চাকমা ও অপরজন কনেষ্টবল অনুপম চাকমা যার নং (১০৪), লাঠি হাতে কাভার্ড ভ্যান নাম্বার চট্র মেট্রো-ড-১৬৯১ থামিয়ে ছিনতাই ও ড্রাইভারকে মারধর করার সময় শোরগোল চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে উদ্ধারের সময় তারা জনতাকে উল্টো লাঠি দিয়ে আঘাত করলে জনতা কর্তৃক গণধোলাই দিয়ে আটক করে।

কাভার্ড ভ্যান ড্রাইভার মো:রফিক জানান, সড়ক দিয়ে যাওয়ার পথে হঠাৎ মটর সাইকেল নিয়ে দুই ব্যক্তি তার গাড়ির গতিরোধ করে একজন গাড়ির ভিতরে উঠে আমাকে নিচে নামিয়ে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেওয়ার পর মারধর শুরু করে।

ঐসময় পার্শ¦বর্তী এলাকার লোকজন বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আনিছুর রহমানকে খবর দিলে দ্রুত সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করে এবং তাদের হাতে থাকা লাঠি ও কোমরে থাকা ৪ লিটার বাংলা চোলাই মদ জব্দ করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা উভয়ে নিজেকে পুলিশ সদস্য বলে পরিচয় দেয়।

ঐমুহুর্তে ঘটনাটি ঈদগড় পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ আবুল হাসেমকে মোবাইল ফোনে জানালে তাদেরকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়।

এবিষয়ে ঈদগড় পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ আবুল হাসেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট পুলিশ আইনে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো বলেন,উক্ত দুই পুলিশ সদস্য অনুমতিবিহীন উক্ত স্থানে গিয়ে এঘটনা ঘটিয়েছে।

এবিষয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের আনিছুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাদের তিনি ঘটনাস্থল থেকে লাঠি ও মদের বোতলসহ উদ্ধার করে।

এবিষয়ে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মজিদের নিকট মুটোফোনে জানতে চাইলে তিনি ঘটনাটি শুনেছেন বলে নিশ্চিত করেন এবং সরেজমিনে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন।

বিষয়টি মুঠোফোনে চট্রগ্রাম রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্স কমান্ন্টডেন্ট এর নিকট জানতে চাইলে তিনি আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।