মন্ত্রী তালিকায় নতুন মুখ

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গঠিত নতুন সরকারের মন্ত্রীরা শপথ নিচ্ছেন কাল। যারা মন্ত্রী হচ্ছেন ইতোমধ্যে তাদের তালিকা প্রকাশ করেছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম।

নানা উদ্বেগ উৎকণ্ঠার মধ্যদিয়ে ইতোমধ্যে ফোন পেয়েছেন মন্ত্রীরা। আবার পড়েছেন অনেক হেভিওয়েট মন্ত্রীরা। এবারের মন্ত্রিসভায় ৪৬ জন স্থান পেয়েছেন। এদের মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী ৩ জন। গতবারের মন্ত্রিসভায় না থাকলেও এবারের মন্ত্রিসভায় অনেকেই স্থান পেয়েছেন।

প্রথমবারের মতো মন্ত্রী হয়ে পূর্ণমন্ত্রী হলেন ১০ জন। তারা হলেন- শ ম রেজাউল করিম-গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী,  টিপু মুন্সী-বাণিজ্যমন্ত্রী, গোলাম দস্তগীর গাজী- বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী,  সাধন চন্দ্র মজুমদার- খাদ্যমন্ত্রী, নুরুল ইসলাম সুজন-রেলপথমন্ত্রী, এ বি তাজুল ইসলাম-এলজিআরডি, ড. এ কে আবদুল মোমেন- পররাষ্ট্রমন্ত্রী, নুরুল ইসলাম সুজন- রেলপথমন্ত্রী, নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন- শিল্পমন্ত্রী, মো. শাহাব উদ্দিন-পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী।

প্রথমবারের মতো ১৫ জন প্রতিমন্ত্রী হলেন- খালিদ মাহমুদ চৌধুরী- নৌপরিবহন, ডা. এনামুর রহমান- দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ, আশরাফ আলী খান খসরু- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, কামাল আহমেদ মজুমদার- শিল্প, ইমরান আহমদ- প্রবাসীকল্যাণ, স্বপন ভট্টাচার্য্য-এলজিআরডি,  শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ- ধর্মবিষয়ক, মো. মাহাবুব আলী- বেসামরিক বিমান ও পর্যটন, জাকির হোসেন-প্রাথমিক ও গণশিক্ষা, মো. মুরাদ হোসেন-স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ, ফরহাদ হোসেন-জনপ্রশাসন, জাহিদ আহসান রাসেল-যুব ও ক্রীড়া, কে এম খালিদ-সংস্কৃতিবিষয়ক, শরীফ আহমেদ-সমাজকল্যাণ,, জাহিদ ফারুক-পানিসম্পদ।

তিনজন প্রথম উপমন্ত্রী হলেন- বেগম হাবিবুন্নাহার-পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পবির্তন। এনামুল হক শামীম-পানিসম্পদ, ও ব্যারিস্টার মহিবুল আহমেদ চৌধুরী নওফেল- শিক্ষা।

এদের মধ্যে টেকনোক্র্যাট কোটায় মন্ত্রী হচ্ছেন তিনজন। তারা হলেন— স্থপতি ইয়াফেস ওসমান (বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি), মোস্তফা জব্বার (ডাক টেলি যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি) ও শেখ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ (ধর্ম)।

পানছড়িতে মাঠ দখলে নৌকা : এলাকা ছাড়া বিএনপি

সাজাহান কবির সাজু, প্রতিনিধি, পানছড়ি (খাগড়াছড়ি) :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ির মাঠ দখলে নিয়েছে নৌকার সমর্থকরা। নির্বাচনী প্রচারণার শেষ বেলাতে বৃহষ্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে হাজারো নেতা-কর্মী জড়ো হয়ে নৌকার সমর্থনে বিশাল মিছিল বের করে। মিছিলটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। আ’লীগের প্রবীন নেতা-কর্মীদের দাবী, এবারের মতো সু-সংগঠিত দল আগে আর কখনো চোখে পড়েনি। পুরুষ-মহিলাদের স্বত:ষ্ফুর্ত উপস্থিতি দলের নেতা-কর্মীরা আরো চাঙ্গা হয়েছে।

আ’লীগের মিছিল ও গণসংযোগে এসে নেতা-কর্মীদের সাথে নৌকার পক্ষে ভোট চাইলেন আ’লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির অন্যতম সদস্য ও সাবেক ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ভবেশ্বর রোয়াজা নিকি ও কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার একান্ত সহকারী খগেন ত্রিপুরা।

এদিকে প্রতিদিন বিভিন্ন দলের নেতা-কর্মীদের আ’লীগে যোগ দেয়া অব্যাহত রয়েছে। জাকের পার্টি নৌকা প্রতীকের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে ইতিমধ্যে কাজ করতে মাঠে নেমেছে। আ’লীগ সভাপতি মো: বাহার মিয়া, সম্পাদক জয়নাথ দেব, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আবু তাহের, যুবলীগ সম্পাদক মো: নাজির হোসেন, ছাত্রলীগ সভাপতি শ্রীকান্ত দেব মানিক, সম্পাদক জহিরুল আমিন রুবেল জানান, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে পানছড়ির নেতা-কর্মীরা অনেক সু-সংগঠিত।

এদিকে আ’লীগ দলীয় কার্যালয়ও ইসলামপুর যুবলীগ কার্যালয় ভাংচুরের ঘটনায় পর পর দুই মামলায় বিএনপির নেতাকর্মীরা এলাকা ছাড়া। ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ভূইয়ার পক্ষে গণসংযোগ, প্রচারণা বা কোন ধরণের মাইকিং এর মধ্যে শোনা যায়নি।

উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি মো: বেলাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মো: সিরাজুল ইসলাম জেল হাজতে থাকায় উপজেলা বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক যুবদলের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন জানান, বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলাগুলো আসলে সাজানো নাটক। আ’লীগ নিজেরাই এ ঘটনা ঘটিয়ে মামলা করে বিএনপিকে মাঠ ছাড়া করেছে। এ ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে সন্দেহে সহকারী রির্টানিং অফিসার বরাবরে বিএনপির পক্ষ থেকে একখানা অবগতিপত্রও দেয়া হয়েছে বলে জানান।