বাঘাইছড়িতে তিন আগ্নেয়াস্ত্রসহ ইউপিডিএফের পরিচালক আটক

সাজেক প্রতিনিধি:

রাাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার বঙ্গলতলী ও রুপকারী শাখার ইউপিডিএফের পরিচালক এবং ইউপিডিএফ’র বিচার বিভাগীয় পরিচালক অটল চাকমা(৫৫) ও তার সহকারী শুদ্ধজয় চাকমা(৪২) কে আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

সোমবার ভোর পাঁচটার দিকে মধ্য বঙ্গলতলীর সতিরঞ্জন চাকমার বাড়ী থেকে তাদের আটক করা হয়।
এ সময় তাদের কাছ থেকে ২টি এলজি, ১টি দেশীয় বন্দুক, ১০ রাউন্ড কার্তুজ, ১৫টি চাঁদার রশিদ বই, ১ সেট সামরিক পোশাক, ৪টি মোবাইল, ১টি নোট বুক, ১টি রেডি সহ গুরুত্বপূর্ণ নথি উদ্ধার করা হয়।

নিরাপত্তা বাহিনী সুত্রে জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৪ইস্ট বেঙ্গল বাঘাইহাট সেনা জোন থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি টিম অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, আটক অটল চাকমা একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী। গত ৩ এপ্রিল একই এলাকা থেকে পরিচালক সুগত চাকমাকে আটকের পর ঐ দায়িত্বে আসে অটল চাকমা।

আর আসার পর থেকেই এলাকার ছোট বড় সকল ব্যবসায়ীর কাছ থেকে সে লাগামহীন চাঁদাবাজী করতে থাকে আর অস্ত্র দিয়ে প্রতিনিয়ত লোকজনের মাঝে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল তারা। তাদেরকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। এবং তাদের দেওয়া তথ্যমতে, এলাকায় অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী সুত্রটি।

আটক ইউপিডিএফ নেতা অটল চাকমা বাঘাইছড়ি উপজেলার কাট্রলী গ্রামের মৃত মনিন্দ্র চাকমার ছেলে এবং তার সহকারী শুদ্ধজয় চাকমা দীঘিনালা উপজেলার সংগলা গ্রামের চিত্তরঞ্জন চাকমার ছেলে বলে জানা যায়।

এবিষয়ে বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন বলেন, আটককৃতরা উপজেলার শীর্ষ চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধে এলাকায় ব্যাপক চাঁদাবাজীসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ইউপিডিএফ’র বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিচালক জুয়েল চাকমা বলেন, ইউপিডিএফ তো কোন নিষিদ্ধ দল নয়। গণতান্ত্রিক একটি দলের সদস্যদের অন্যায় ভাবে আটক করা ঠিক নয়। তাদেরকে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে আটক করা হয়েছে। আমার জানা মতে, তাদের কাছে আটকের সময় কিছুই ছিলনা। আটকের বিষয়ে ইউপিডিএফ’র পক্ষ থেকে এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি ।

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ ২ যুবক আটক

Bandarban pic-9.2

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ দু’জনকে আটক করেছ পুলিশ। মঙ্গলবার শহরের মধ্যম পাড়া এালাকা থেকে চুরি করে পালানোর সময় কালাঘাটা কারবারী পাড়া থেকে পুলু মং মারমা (১৯) ও মেহেদী হাসান (১৮) নামে দুই যুবককে আটক করে।

পুলিশ জানায়, আটক ব্যক্তিরা জেলার রাজবিলা ইউনিয়নের এক ব্যবসায়ীর মোটর সাইকেল চুরি করে পালাচ্ছিল। এ সময় পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মোটরসাইকেলসহ তাদের আটক করে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, পুলিশ অভিযান চালিয়ে মোটরসাইকেলসহ দুই যুবককে আটক করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নাইক্ষ্যংছড়িতে ৩১ বিজিবির অভিযানে মিয়ানমারের পণ্য আটক

Bgb-ovijan

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি ৩১ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর অভিযানে মিয়ানমারের পণ্য আটক হয়েছে। সোমবার সকালে বিজিবির নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নাইক্ষ্যংছড়ি সদরের জারুলিয়াছড়ি পুলিশ বক্স এলাকা থেকে এসব মালামাল আটক করা হয়। এ সময় অবৈধ মালামাল পরিবহণের দায়ে একটি সিএনজি অটোরিক্স জব্দ করে বিজিবি।

৩১ বিজিবি সূত্র জানিয়েছে, সোমবার সকালে চাকঢালা বাজার এলাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি সিএনজি অটোরিক্সাকে চ্যালেঞ্জ করে বিজিবি অপারেশন দল। এ সময় গাড়ির ভিতরে প্লাস্টিকের বস্তা ভর্তি ৭৮ কেজি বার্মিজ সেমাই, ৪০ প্যাকেট ক্যালসিয়াম আটক করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ২০ হাজার টাকা।

আটকৃত মিয়ানমারের এসব পণ্য কক্সবাজার শুল্ক অফিসে জমা করা হবে বলে জানান, অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া হাবিলদার মো. সাইদুর রহমান।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ৩১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল হাসান মুর্শেদ চৌধুরী।

নাইক্ষ্যংছড়িতে আবারো চোরাই কাঠ আটক

Capture

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়িতে আবারো চোরাই কাঠ আটক করেছে বিজিবি। গতকাল শুক্রবার দোছড়ি ইউনিয়নের পক্ষিঝিরি এলাকা থেকে এসব কাঠ আটক করা হয়েছে।

বিজিবি জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির নায়েব সুবেদার মো. শাহ আলম এর নেতৃত্বে পক্ষিঝিরি নামক এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় চোরাই কাঠ পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। তবে উক্ত স্থান থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় ১৮৯.০৫ ঘনফুট বিভিন্ন ধরণের কাঠ এবং ২৪০০ ঘনফুট জ্বালানী কাঠ জব্দ করা হয়। যার মূল্য ৬ লক্ষ ৪০ হাজার ১১৮ টাকা।

আটককৃত কাঠ মামলা নং ইউডিওআর-২৩ তারিখ ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ মোতাবেক তুলাতুলী বনবিট অফিসে জমা করা হয়েছে। অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ৩১ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল হাসান মোরশেদ চৌধুরী।

খাগড়াছড়িতে ফের ইয়াবাসহ পাহাড়ী যুবক আটক

ইয়াবা

সিনিয়র রিপোর্টার:

খাগড়াছড়িতে মরননেশা ইয়াবাসহ ফের এক পাহাড়ী যুবককে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় পুলিশ তার কাছ থেকে ৫৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের বাসটার্মিনাল সড়কস্থ খাগড়াছড়ি গেইট এলাকা হতে ইয়াবা ট্যাবলেটসহ তাকে আটক করা হয়।

আটক রোমেন্টু চাকমা (৩৫) খাগড়াছড়ি পৌরসভার ২নং পৌর ওয়ার্ডের কলেজ পাড়ার শান্তি দত্ত চাকমার পুত্র। সে দীর্ঘদিনে ধরেই খাগড়াছড়িতে মরণব্যাধী ইয়ারাসহ মাদক ব্যবসা করে আসছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. রইস উদ্দিনের নেতৃত্বে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৫৫পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ রোমেন্টু চাকমাকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশ।

ঘঁটনার সত্যতা নিশ্চিত করে খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শামসুদ্দিন ভূইয়া জানান, মাদকদ্র্রব্যসহ আটক রোমেন্টু চাকমার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

প্রসঙ্গত, এর আগেও গেল মাসের শেষ দিকে ইয়াবাসহ আটক করা হয় খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি টোকো চাকমার ভাই চিজিমনি চাকমা।

পেকুয়ায় ৩ দূর্ধর্ষ ডাকাত সর্দার আটক

pekuar dakatপেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় ৩ দূর্ধর্ষ ডাকাত সর্দারকে আটক করেছে পুলিশ। পৃথক পৃথক অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে থানার তথ্যে সূত্রে উল্লেখ করা হয়।

পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (প্রশাসন) জিয়া মো. মোস্তাফিজ ভুঁইয়া পার্বত্যনিউজকে জানিয়েছেন, পেকুয়ার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি শান্ত ও স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ এলাকার চিহ্নিত দাগী আসামিদের গ্রেপ্তারাভিযান জোরদার করেছে। এরই অংশ হিসেবে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত মঙ্গল ও বুধবার রাতে পেকুয়া থানা পুলিশ বিভিন্ন স্থানে পৃথক অভিযান চালিয়ে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের ভারুয়াখালী গ্রামের আবদুল জব্বারের পুত্র ডাকাত সর্দার হিসাবে পরিচিত একাধিক চাঞ্চল্যকর ঘটনায় আসামি বদিউল আলম প্রকাশ নুরুজ্জামান ওরফে লম্পট ডাকাত সর্দার বদাইয়েকে জনতার সহায়তায় গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় মামলা নং-০৭(৫)(১৪), মামলা নং-০৮(৭)১১য় সিএস ভুক্ত এজাহার নামীয় আসামি হিসাবে সংশ্লিষ্টতা থাকা ছাড়াও এলাকায় আইন-শৃংখলা পরিপন্থী নানা অপরাধ কর্মকান্ডে জড়িত ও নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

গ্রেপ্তারের দিন বদাইয়া ডাকাত তার নিজ এলাকার হাজ্বী বজরুছ মিয়ার পুত্র গোলাম রহমান বাড়ি ফিরার পথে অস্ত্রের মুখে তার গতিরোধ করে সর্বস্ব ছিনিয়ে নিয়ে প্রাণনাশ চেষ্টা চালায়। ঘটনার সংবাদ পেয়ে স্থানীয়রা বিক্ষুদ্ধ হয়ে সংঘবদ্ধ ভাবে ডাকাত সর্দার বদাইয়াকে ধাওয়া দেয়। খবর পেয়ে পেকুয়া থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে জনতার সহায়তায় তাকে গ্রেপ্তার করে। এঘটনায় ভুক্তভুগী গোলাম রহমান বাদী হয়ে অস্ত্রের মুখে পথরোধ করে ছিনতাই ও প্রাণনাশ চেষ্টার অভিযোগে পেকুয়া থানায় এজাহার দায়ের করলে পুলিশ ওইদিনই দ্রুত বিচার আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে পুলিশ। যার মামলা নং-১৬/২৮-০১-২০১৬।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ডাকাত সর্দার বদিউল আলম প্রকাশ নুরুজ্জামান দীর্ঘদিন ধরে তার নিজ পাড়া মহল্লাসহ আশপাশের এলাকায় নিরব ত্রাসের রাজত্ব কয়েম করে সাধারণ মানূষ থেকে শুরু করে সম্ভ্রান্ত পরিবারের লোকজনদের উপরও অত্যাচার জোর জুলুম চালিয়ে অতিষ্ট করে তুলে। সে নিজে ও তার বাহিনীর সদস্যরা প্রতিনিয়ত চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবজি, রাহাজানী, বন ও ভূমি দস্যূতা ছাড়াও এমন কোন অপরাধ কর্মকান্ড নেই যার সাথে এদের সংশ্লিষ্টতা ছিলনা। কিন্তু পুলিশের ধরা ছোঁয়ার বাইরে অবস্থান আত্মগোপন এবং স্থান বদলিয়ে এই ডাকাত সর্দার ও তার বাহিনীর লোকজন সশস্ত্রবস্থায় নিজপাড়া আশপাশের এলাকার ঘরে ঘরে হানা দিয়ে ডাকাতি, লুটসহ মা বোনদের চরম অমানবিক নির্যাতন শ্লীলতাহানিসহ গণধর্ষনের চাঞ্চল্যকর ঘটনা সংঘঠিত করতো। ভয়ে তার বিরুদ্ধে কেউ চোখ তুলে তাকানোতো দূরে থাক মুখ খুলার সাহসও দেখাতে পারতোনা।

এলাকাবাসী আরো জানায়, চাঞ্চল্যকর জারুলবুনিয়া ষ্টেশন গণডাকাতি, সাঁপেরগাড়ার আজিমার বাপের খোলায় সংঘঠিত জবাই করে যুবক মানিক হত্যাকান্ডসহ প্রায় সকল অপরাধ কার্যক্রমে তার ছিল প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সংশ্লিষ্টতা।

থানায় যোগাযোগ করে তার বিষয়ে জানতে চাইলে, এসআই বিমল কান্তি দেব জানান, বদাইয়া ডাকাত দীর্ঘদিন যাবত পুলিশের চোখ ফাঁকি এলাকা ছাড়া বিভিন্ন অঞ্চলে চাঞ্চল্যকর অপরাধ কর্মকান্ডে মাধ্যমে জনজীবন অতিষ্ট করে তুললেও শেষ পর্যন্ত পেকুয়া থানার বর্তমান ওসির নেতৃত্বে তাকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হয় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদঅলতে তার রিমান্ড চাইবে পুলিশ।

এদিকে, পেকুয়া থানা পুলিশ পৃথক অন্য অভিযানে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের বারইয়াকাটা এলাকার রশিদ আহমদের পুত্র ডাকাইত নুরুল কবির ও একই গ্রামের পাহাড়িয়াখালী কাটামুরা এলাকার মো. ইদ্রিসের পুত্র দলিলুর রহমান প্রকাশ ধইল্যে ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এদের মধ্যে নুরুল কবির ডাকাতের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানার মামলা নং-০৮/১০-০১-১৩, অস্ত্র আইনে অভিযোগপত্র নং-২০/১১-০৩-১৪, মামলা নং-১০/১০-০১-১৩, অভিযোগপত্র নং-৮৬, মামলা নং-০৬/০৮-০৯-১০ ও জিআর মামলা নং-১০৬/১০ আর ধইল্যে ডাকাতের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানা মামলা নং-১৪/২৩-০১-১৪ সহ আরো একাধিক মামলা অভিযোগে সংশ্লিষ্টতার গুঞ্জন রয়েছে।

পুলিশ দীর্ঘদিন যাবত এদের হন্যে হয়ে খুঁজলেও অবশেষে তাদের গ্রেপ্তার করে। পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মো. মোস্তাফিজ ভুঁইয়া পেকুয়া থানা পুলিশের দূর্ধর্ষ ৩ডাকাত গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি শান্ত ও স্বাভাবিক রাখতে অপরাধীদের ছাড় দেবেনা পুলিশ।

বান্দরবানে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ ৩ ব্যবসায়ী আটক

Bandarban Tana pic-29.1

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবান পৌর এলাকার কাশেম পাড়ায় পৃথক অভিযান চালিয়ে ১২৫ পিস ইয়াবা টেবল্যাটসহ ২জন ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতরা হলেন, কক্সবাজারের মো. ছৈয়দ আলম, সমীর চন্দ্র দাশ ও মহেশখালীর দেলওয়ার হোসেন।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে শহরের কাসেম পাড়া এলাকায় অভিযান কালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ছৈয়দ আলম ও দেলয়ার নামে দুই যুবক দৌড় দিলে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে আটক করে। তাদের কাছ থেকে ১০৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

অন্যদিকে, ওই রাতেই শহরের বাজারের ১নং গলির কামাল হোটেলের সামনে থেকে ইয়াবা বিক্রি কালে ২০ পিস ইয়াবাসহ সমীর চন্দ্র দাশকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে বান্দরবান সদর থানার ওসি রফিক উল্লাাহ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে কাশেম পাড়া এলাকার রাস্তার মুখ থেকে দুজন এবং বাজার এলাকা থেকে একজনকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

খাগড়াছড়িতে দুইটি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি, সামরিক পোশাকসহ ইউপি সদস্য গ্রেফতার 

kkkkk copy

স্টাফ রিপোর্টার:

খাগড়াছড়িতে দুইটি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি, সামরিক পোশাক, বাইনোকুলার ও বিদেশী মুদ্রাসহ এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে যৌথবাহিনী।

বৃহস্পতিবার রাত ২ টার দিকে সদর উপজেলার দেবতাপুকুরের নিকটবর্তী থলিপাড়া থেকে কালিবন্ধু ত্রিপুরা(৫৬) নামের এই ইউপি সদস্যের বাড়ি তল্লাসী করে এসকল অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জামাদি পাওয়া যায়। এসময় যৌথবাহিনী পুত্রসহ তাকে গ্রেফতার করে।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যৌথবাহিনীর একটি দল খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ১ নং ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার কালিবন্ধু ত্রিপুরার থলিপাড়ার বাসভবন তল্লাশী করার উদ্দেশ্যে ঘেরাও করে যৌথ বাহিনী। এসময় তাদেরকে আটক করে বাড়ির বাইরে নিয়ে এসে অস্ত্রের কথা জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা অস্বীকার করে। পরে যৌথবাহিনী তাদের বাড়ি তল্লাশী করলে বাড়ির বিভিন্ন স্থান থেকে দুইটি এলজি, ৩ রাউন্ড এলজি’র গুলি, একটি বাইনোকুলার, প্রতিবেশী একটি দেশের সেনাবাহিনীর সামরিক পোশাক,  ২১০ রুপী বিদেশী মুদ্রা আটক করা হয়।

kmjg copy

এসময় কালিবন্ধু ত্রিপুরা ও তার ছেলে যতীন ত্রিপুরা(৩০)কে আটক করে যৌথবাহিনী। গ্রেফতারকৃত কালিবন্ধু ত্রিপুরা জেএসএস সংস্কার দলের সাথে জড়িত ও এলাকায় চাঁদাবাজ হিসাবে চিহ্নিত বলে যৌথবাহিনী সূত্র দাবী করেছে।

শুক্রবার আটককৃতদের খাগড়াছড়ি সদর থানায় হস্তান্তর করা হযেছে বলে জানা গেছে।

নাইক্ষ্যংছড়িতে চোলাই মদসহ নারী আটক

আটক

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে পাচারের সময় চোলাই মদসহ এক নারী পাচারকারীকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় নাইক্ষ্যংছড়ি-রামু সড়কের জারুলিয়াছড়ি চেকপোষ্ট এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশ সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাইক্ষ্যংছড়ি ক্ষুদ্র ও নৃ-গোষ্ঠী পল্লীতে উৎপাদিত চোলাই মদসহ রাশেদ বেগম (৪৫) কে পুলিশ আটক করে। সে রামু উপজেলার তেচ্ছিপুল এলাকার জামাল উদ্দিনের স্ত্রী।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক রাশেদা বেগম দীর্ঘদিন যাবত চোলাই মদ পাচারের সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। আটকৃত ওই মাদকপাচারকারীর বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট মাদকপাচার আইনে মামলা রুজু করে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়।

আটক অভিযানে নেতৃত্ব দেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার এএসআই এমদাদ ও নায়েক মাইকেল বড়ুয়া।

কক্সবাজারে যুবককে হত্যা আটক- ৩

হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধি:

কক্সবাজার সদর উপজেলার পোকখালী ইউনিয়নে মোহাম্মদ ফারুক (৩৫) নামে এক রিক্সা চালকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার গভীর রাতে পোকখালী হাইস্কুল সংলগ্ন এলাকায় রিক্সা ছিনতাই কালে এই ঘটনা ঘটে। নিহত রিক্সা চালক পশ্চিম পোকখালী এলাকার মৃত ওবাইদুল হকের পুত্র।

ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই মিনহাজ মাহমুদ জানান, রাত ১২ টার দিকে ৩ যুবক ইসলামাপুর এলাকায় একটি রিক্সা বিক্রি করতে গেলে স্থানীয়রা সন্দেহ করে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।

জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ওই ৩ যুবক জানায়, পোকখালী হাইস্কুলের সামনে ফারুক নামের এক রিক্সা চালকের গতিরোধ ছুরিকাঘাত করে হত্যার পর রিক্সা ছিনিয়ে নেয়। পুলিশ তাদের দেয়া তথ্য মতে স্কুলের উত্তর পাশের একটি ডোবা থেকে ফারুকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে নিহতের চাচাতো ভাই সাদ্দাম এসে নিহতের পরিচয় শনাক্ত করেন।

মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। তবে আটক ৩ জনের নাম পরিচয় জানা যায়নি।