মানিকছড়িতে পাঁচ বছরের শিশু ধর্ষণকারী আটক

মানিকছড়ি প্রতিনিধি:

মানিকছড়ির মুসলিমপাড়া এলাকায় গতকাল ২০ জানুয়ারি  রাত ৯টায় ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ করেন দুই সন্তানের জনক মো. মোস্তাফিজ (২৪) তাকে স্থানীয়রা ও পুলিশ আটক করেছে।

ঘটনার সূত্রে জানাযায়, পাশের ঘরে শিশুটি প্রাইভেট পড়ে বাড়িতে আসার পথে ধর্ষক শিশুটিকে লোভ দিখিয়ে পাশের শসানের নিরবস্থানে নিয়ে যায়। পরে জোর করে ধর্ষণ করে শিশুটির চিৎকার শুনে পাশের লোকজন তাকে আটক করে। পুলিশ ঘটনার স্থলে আসার আগে ধর্ষক কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে ধর্ষকের নিজ বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালিয় খাটের নিচ থেকে তাকে আটক করে।

মানিকছড়ি থানা অফিসার ইনর্চাজ(ওসি) আব্দুর রশিদ বলেন ধর্ষক অপরাধ  স্বীকার করেছে।

ওই শিশুটির মা বাদী হয়ে ধর্ষকের বিরুদ্ধে মানিকছড়ি থানায় নারী শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষণ মামলা রুজু করেন। মানিকছড়ি মামলা নং-০২,তারিখ-২১/০১/১৯ইং

রাঙামাটিতে অস্ত্রসহ জেএসএস’র বাঙালি চাঁদা কালেক্টর আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি:

রাঙামাটি শহরে যৌথবাহিনী  অভিযান চালিয়ে জেএসএস’র সক্রিয় চাঁদা কালেক্টর আফজাল হোসেন (৫২) নামের এক চাঁদাবাজকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে শহরের ক্ষেপ্পাপাড়া থেকে তাকে আটক করা হয়।

এসময় তাঁর কাছ থেকে একটি পিস্তল, ৩টি মোবাইল ফোন  এবং  নগদ ২হাজার ১২০টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

যৌথবাহিনী সূত্রে জানানো হয়, সোমবার দুপুরে যৌথবাহিনী শহরের আসামবস্তিস্থ ক্ষেপ্পাপাড়া নামক স্থানে আফজালকে ধরতে অভিযান পরিচালনা করে। আফজাল যৌথবাহিনীর অভিযান টের পেয়ে তার বাড়ির পাশে ঝোঁপে লাফ দেয়। যৌথবাহিনী ওই ঝোঁপ  থেকে তাকে হাতেনাতে আটক করতে সক্ষম হয়। এসময় তার কাছ থেকে একটি পিস্তল, ৩টি মোবাইল ফোন এবং  নগদ ২হাজার ১২০টাকা উদ্ধার করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে আরও জানানো হয়, আফজাল শহরের রিজার্ভবাজার, তবলছড়ি  এবং আসামবস্তি বাজার এলাকার স্থানীয় কাঠ, মাছ, বাঁশ ব্যবসায়ী, দোকানদার, সিএনজি এবং বিভিন্ন পণ্যবাহী গাড়ি থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি’র (পিসিজেএসএস)  হয়ে  চাঁদা আদায় করে আসছে বহুবছর ধরে।

আফজাল  ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে এসব চাঁদার টাকা সংগ্রহ করে জেএসএস’র চীফ কালেক্টর জ্ঞান শংকর চাকমার কাছে হস্তান্তর করে। আর আফজালের অবর্তমানে তার স্ত্রী খোদেজা বেগম এবং তার সহযোগী ওই এলাকার বাসিন্দা ডেস্কী মিয়া ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে থাকে।  আদায়ের সেসব চাঁদা থেকে আফজাল ৩০% করে কমিশন পেয়ে থাকে বলে যৌথবাহিনীর কাছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাঙামাটি কোতয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম জানান, আটক আফজালের বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে এবং চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে দু’টি মামলা দায়ের করা হবে।

নানিয়ারচরে ইউপিডিএফ’র কালেক্টর আটক

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি:

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা থেকে ইউপিডিএফ’র দু’কালেক্টরকে আটক করেছে যৌথবাহিনী।

সোমবার (২১ জানুয়ারি)সন্ধ্যার দিকে উপজেলার ঘিলাছড়ি এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃত ব্যক্তিরা হলেন-রাঙামাটির লংগদু উপজেলার  মধ্য খারিকাটা গ্রামের অশ্বহামা চাকমার ছেলে বোধিস্বত্ত চাকমা ওরফে পিপলু (৩৮) এবং একই উপজেলার বড়াদম গ্রামের সুমতি রঞ্জন চাকমার ছেলে শুশান্ত চাকমা ওরফে অটল চাকমা (৪০)।

এসময় তাদের কাছ থেকে একটি মোটরসাইকেল, নগদ ২১হাজার ৭৭৩টাকা, চাঁদা আদায়ের রশিদ, মোবাইল ফোন ৪টি, জাতীয় পরিচয় পত্র ২টি, ব্লেড ৪টি, ঘড়ি ২টি, চশমা ২টি এবং ওই এলাকায় বিভিন্ন দোকান থেকে চাঁদা আদায়ের টোকেন উদ্ধার করা হয়।

যৌথবাহিনী সূত্রে জানানো হয়- আটককৃত ব্যক্তিরা চাঁদা আদায় করে ঘিলাছড়ি এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় তাদের গতিবিধি সন্দেহ হলে যৌথবাহিনী তাদের আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা ইউপিডিএফ মূল সংগঠনের সক্রিয় কর্মী এবং ওই এলাকায় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে বলে যৌথবাহিনী সূত্রে জানানো হয়।

নানিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন জানান- এ ব্যাপারে আমি এখনো অবগত হতে পারিনি। জানতে পারলে  ঘটনার সম্পর্কে  বিস্তারিত বলা যাবে।

খাগড়াছড়িতে মাদক ব্যবসায়ী আলীম ৩শ পিস ইয়াবাসহ আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়িতে  মাদক ব্যবসায়ী আব্দুল আলীম ৩শ পিস ইয়াবাসহ ডিবি পুলিশের হাতে আটক হয়েছে।

সোমবার(২১ জানয়ারি) দুপুর পৌনে ২টায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনীর সামনের রাস্তা থেকে তাকে আটক করা হয়। সে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের মহাজন পাড়ার বাসিন্দা মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে।

খাগড়াছড়ি ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর আব্দুল রাকীব জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাঁর নেতৃত্বে পরিদর্শক স্বপন কুমার, এসআই ইমাম, এ এসআই আহসান, এ এসআই আরাফাত ও এ এসআই তোরাবসহ ডিবি পুলিশের সদস্যরা আব্দুল আলীমকে আটক করে। পরে দেহ তল্লাসী করে ইয়াবা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

খাগড়াছড়ি ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর আব্দুল রাকীব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ইয়াবাগুলো জেলার পানছড়িতে সরবরাহের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এ ঘটনায় একটি মোটরসাইকেলও জব্দ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বে আব্দুল আলীমকে হেরোইন, ইয়াবা ও গাঁজাসহ বেশ কয়েকবার আটক করা হয়েছিল। কিন্তু জামিনে বের হয়ে আবার একই পেশায় জড়িয়ে পড়ে সে।

খাগড়াছড়িতে অস্ত্রসহ ইউপিডিএফ চাঁদাবাজ আটক

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

খাগড়াছড়ির সদর উপজেলার অমৃত কারবারী পাড়া এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে ইউপিডিএফ(মূল)এর এক সশস্ত্র চাঁদাবাজকে আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

বৃহস্পতিবার(১৭ জানুয়ারি) তাকে আটক করা হয়।

আটককৃত ব্যক্তির নাম কিরন চাকমা(৩৭)। সে বিলপাড়া ভাইবোনছড়া এলাকার শশি কান্তি চাকমার ছেলে বলে জানা গেছে।

নিরাপত্তাবাহিনী জানিয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়। আটকের সময় তাঁর কাছ থেকে ১টি এলজি, ১রাউন্ড এ্যামুনিশন,  আদায়কৃত চাঁদার নগদ ২হাজার টাকা ২টাকা, ১টি মোবাইল ফোন, ২টি চাঁদা আদায়ের রশিদ, ১টি নোটবুক ও জাতীয় পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধারকৃত মালামালসহ আটককৃত সন্ত্রাসীকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিরাপত্তাবাহিনীর জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আরাফাত হোসেন পিএসসি বলেন, জোনের আওতাধীন এলাকায় কোনো প্রকার অবৈধ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে ভবিষ্যতে আরও কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

গুইমারায় ইয়াবাসহ একজন আটক

 

গুইমারা প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া মোড় থেকে ইয়াবাসহ রামগড় উপজেলার মাহবুব নগর এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে জহিরুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার(১৬ জানুয়ারি)  রাত আটটার সময় গুইমারা থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ তাকে আটক করে।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিদ্যুৎ কুমার বড়ুয়া জানিয়েছেন, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(এ) ধারায় আটক জহিরুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পূর্বক তাকে খাগড়াছড়ি জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে ।

অস্ত্র ও গুলিসহ ইউপিডিএফ চাঁদাবাজ আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

মাটিরাঙ্গায় অস্ত্র ও গুলিসহ মধু রঞ্জন ত্রিপুরা নামে এক ইউপিডিএফ কর্মীকে আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

আটককৃত মধু রঞ্জন ত্রিপুরা ময়দাছড়ার লক্ষী রঞ্জন ত্রিপুরা ছেলে।

মঙ্গলবার(১৫ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাইল্যাছড়ি ১ নম্বর রাবার বাগান এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

এ সময় তাঁর কাছ থেকে থেকে একটি দেশি বন্দুক (এল জি), ২ রাউন্ড তাজা গুলি, ২ রাউন্ড খালি কার্তুজ, ২ টি বড় দা ও চাঁদা আদায়ের বই উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, চাঁদাবাজির উদ্দেশ্যে ইউপিডিএফ কর্মীরা বাইল্যাছড়ি ১ নম্বর রাবার বাগান এলাকায় বৈঠক করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাটিরাঙ্গা জোন একটি বিশেষ অভিযান চালায়। নিরাপত্তাবাহিনীর উপস্থিতি  টের পেয়ে অন্যরা পালিয়ে গেলেও মধু রঞ্জন ত্রিপুরাকে আটক করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

উদ্ধারকৃত মালামালসহ আটক চাঁদাবাজ মধু রঞ্জন ত্রিপুরাককে গুইমারা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে নিরাপত্তাবাহিনী সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এদিকে ওই যুবককে আটকের প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়েছে ইউপিডিএফ। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে যুবককে নিরীহ বলে দাবি করেছে সংগঠনটি। সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আটককৃত মধু রঞ্জন ত্রিপুরা ইউপিডিএফ এর সদস্য নয়। এবং আটককৃত যুবকের মুক্তি দাবি করেছে তারা।

কক্সবাজারে অপহরণকারী চক্রের দুই সদস্য আটক

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওয়ের গহীন জঙ্গলে অভিযান চালিয়ে রশিদনগরের উল্টাখালী এলাকার নজিবুল আলম (৩২) ও শাহাব উদ্দীন নামের অপহরকারী চক্রের দুই সদস্যকে আটক করেছে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ।

৯ ও ১১ জানুয়ারি পৃথক অভিযানে তাদের আটক করা হয় বলে জানা যায়। আটককৃত নজিবুল আলম উল্টাখালী মৃত মকতুল হোছনের ছেলে অপরজন শাহাব উদ্দীন লামা উপজেলার গুলিস্তান এলাকার শুনা মিয়ার ছেলে।

আটককৃতরা পাহাড়ি অপহরণ চক্রের সক্রিয় সদস্য বলে জানান সদর মডেল থানার ওসি তদন্ত মো: খায়রুজ্জামান।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নজিবুল আলমের নেতৃত্বে একদল অপহরণকারীচক্র রশিদনগর-ঈদগাঁও ইউনিয়নের মধ্যবর্তী পূর্বে ৪/৫ জন অপহরণকারী অবস্থান নিচ্ছিল। এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় কক্সবাজার সদর থানা ও ঈদগাঁও থানার একদল পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে গেলেও নজিবুল আলমকে হাতে নাতে আটক করতে সক্ষম হয়। পরে তাঁর স্বীকারোক্তি মোতাবেক অপর আসামি শাহাব উদ্দীনকে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই দেবাশীষ সরকারসহ সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে পার্বত্য লামা উপজেলার গুলিস্তানস্থ তার বাড়ি থেকে আটক করে।

সদর মডেল থানার ওসি তদন্ত মো: খায়রুজ্জামান জানান-আটককৃতরা অপহরণ বানিজ্যে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। তাছাড়া আরও বিভিন্ন তথ্য পাওয়া গেছে। তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চলছে।

বাঘাইছড়িতে তিন আগ্নেয়াস্ত্রসহ ইউপিডিএফের পরিচালক আটক

সাজেক প্রতিনিধি:

রাাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার বঙ্গলতলী ও রুপকারী শাখার ইউপিডিএফের পরিচালক এবং ইউপিডিএফ’র বিচার বিভাগীয় পরিচালক অটল চাকমা(৫৫) ও তার সহকারী শুদ্ধজয় চাকমা(৪২) কে আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

সোমবার ভোর পাঁচটার দিকে মধ্য বঙ্গলতলীর সতিরঞ্জন চাকমার বাড়ী থেকে তাদের আটক করা হয়।
এ সময় তাদের কাছ থেকে ২টি এলজি, ১টি দেশীয় বন্দুক, ১০ রাউন্ড কার্তুজ, ১৫টি চাঁদার রশিদ বই, ১ সেট সামরিক পোশাক, ৪টি মোবাইল, ১টি নোট বুক, ১টি রেডি সহ গুরুত্বপূর্ণ নথি উদ্ধার করা হয়।

নিরাপত্তা বাহিনী সুত্রে জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৪ইস্ট বেঙ্গল বাঘাইহাট সেনা জোন থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি টিম অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, আটক অটল চাকমা একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী। গত ৩ এপ্রিল একই এলাকা থেকে পরিচালক সুগত চাকমাকে আটকের পর ঐ দায়িত্বে আসে অটল চাকমা।

আর আসার পর থেকেই এলাকার ছোট বড় সকল ব্যবসায়ীর কাছ থেকে সে লাগামহীন চাঁদাবাজী করতে থাকে আর অস্ত্র দিয়ে প্রতিনিয়ত লোকজনের মাঝে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল তারা। তাদেরকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। এবং তাদের দেওয়া তথ্যমতে, এলাকায় অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী সুত্রটি।

আটক ইউপিডিএফ নেতা অটল চাকমা বাঘাইছড়ি উপজেলার কাট্রলী গ্রামের মৃত মনিন্দ্র চাকমার ছেলে এবং তার সহকারী শুদ্ধজয় চাকমা দীঘিনালা উপজেলার সংগলা গ্রামের চিত্তরঞ্জন চাকমার ছেলে বলে জানা যায়।

এবিষয়ে বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন বলেন, আটককৃতরা উপজেলার শীর্ষ চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধে এলাকায় ব্যাপক চাঁদাবাজীসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ইউপিডিএফ’র বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিচালক জুয়েল চাকমা বলেন, ইউপিডিএফ তো কোন নিষিদ্ধ দল নয়। গণতান্ত্রিক একটি দলের সদস্যদের অন্যায় ভাবে আটক করা ঠিক নয়। তাদেরকে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে আটক করা হয়েছে। আমার জানা মতে, তাদের কাছে আটকের সময় কিছুই ছিলনা। আটকের বিষয়ে ইউপিডিএফ’র পক্ষ থেকে এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি ।

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ ২ যুবক আটক

Bandarban pic-9.2

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবানে চোরাই মোটরসাইকেলসহ দু’জনকে আটক করেছ পুলিশ। মঙ্গলবার শহরের মধ্যম পাড়া এালাকা থেকে চুরি করে পালানোর সময় কালাঘাটা কারবারী পাড়া থেকে পুলু মং মারমা (১৯) ও মেহেদী হাসান (১৮) নামে দুই যুবককে আটক করে।

পুলিশ জানায়, আটক ব্যক্তিরা জেলার রাজবিলা ইউনিয়নের এক ব্যবসায়ীর মোটর সাইকেল চুরি করে পালাচ্ছিল। এ সময় পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মোটরসাইকেলসহ তাদের আটক করে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, পুলিশ অভিযান চালিয়ে মোটরসাইকেলসহ দুই যুবককে আটক করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।