লামা রূপসীপাড়ায় ৪ বারের নির্বাচিত মহিলা মেম্বারকে পিটিয়ে গুরুতর জখম

চকরিয়া প্রতিনিধি:

সরকারি দলের নাম ভাঙ্গিয়ে লামা রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের ৪ বারের নির্বাচিত ও দীর্ঘ ২৫ বছরের মহিলা মেম্বার (এমইউপি) রোকিয়া বারি (৫০) ও তার স্বামী সাবেক এমইউপি আবদুল বারি (৬০)কে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। আহত মহিলা মেম্বারকে উদ্ধার করে প্রথমে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চমেক হাসপাতালে রেফার করেন। প্রতিমধ্যে তাকে চকরিয়া ইউনিক হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।  গতকাল ১৫ ডিসেম্বর সকাল ৮টার দিকে উপজেলার রূপসীপাড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

চকরিয়া প্রেসক্লাবে কর্মরত সাংবাদিকদের কাছে আহত পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করে বলেন, একই এলাকার একটি সংঘবদ্ধ জবর দখলকারী সন্ত্রাসী চক্র দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে চলমান দায়িত্বসহ দীর্ঘ ২৫ বছরের এমইউপি রোকেয়া বেগমের জমি জবর দখলে নেওয়ার এবং তার একমাত্র সন্ত্রান মরজুরুল হাসান রফিক (২২)কে অপহরণ করে হত্যা করার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে।

এমনকি দখলবাজরা বিগত ১৮ বছর পূর্বে জনৈক সিরাজ আহমদকে ফরিদপুর জেলায় আত্মগোপনে রেখে মহিলা মেম্বার পক্ষকে অপহরণসহ বিভিন্ন মামলা দিয়ে হয়রাণী করে। পরে অপহরণ হয়নি মর্মে প্রশাসন ও স্থানীয়দের মাঝে বিষয়টি খোলাসা হয়।

সর্বশেষ ১৫ ডিসেম্বর সকাল ৮টার দিকে জমি জবর দখলে নিতে কথিত অপহৃত সিরাজের সন্ত্রাসী পুত্র রাসেল, তাদের পক্ষের আবুল বাসার, বাচ্চু, মহিলা লাঠিয়াল শাহনাজ পারভিন, লিজা বেগম, রুমা বেগমসহ ১৫/২০জনের বাহিনী অতর্কিতভাবে মহিলা মেম্বারের বাড়িতে ঢোকে হামলা ও লুটপাট চালায়। এক পর্যায়ে মহিলা মেম্বার রোকিয়া বারি ও তার স্বামী প্যারালাইসি রোগি আবদুল বারিকে পিটিয়ে জখম করে এবং সন্তানকে হত্যার জন্য খুঁজতে থাকে।

এসময় তার কাছ থেকে ব্যবহৃত ২ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা লুট করে সন্ত্রাসীরা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন ৬নং রূপসীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান চাচিং প্রেুা। এ বিষয়ে লামা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ার হোসেন কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মহিলা মেম্বারকে পিটিয়ে জখমের বিষয়টি শুনেছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।




লামায় পিকআপের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

বান্দরবানের লামা উপজেলায় বালু ভর্তি পিকআপের ধাক্কায় মোমেনা বেগম (৯০) নামের এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) লামা-আলীকদম সড়কের হরিণঝিরি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মোমেনা বেগম হরিণঝিরি গ্রামের বাসিন্দা মৃত আবদুল আজিজের স্ত্রী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সকালের একটি পিকআপ বালু বোঝাই করে আলীকদম সড়কের হরিণঝিরি এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পথচারী মোমেনাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মোমেনাকে মৃত ঘোষণা করেন।

লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।




লামায় মোটর সাইকেল সংঘর্ষে পৌর মেয়রসহ আহত-৩

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

লামায় মোটর সাইকেল সংঘর্ষে পৌর মেয়রসহ ৩জন গুরুতর আহত হয়েছে। সোমবার(২৭ নভেম্বর) দুপুরে পৌর কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতরা হল, লামা পৌরসভার মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম (৪০), মো. আরাফাত (২৪) ও মো. হাসান (২২)। গুরুতর আহত মো. আরাফাতের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, লামা বাজার থেকে মোটর সাইকেল যোগে কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন পৌর মেয়র। পৌর কার্যালয়ের কাছে এসে রাস্তা পারাপার করার সময় পিছন দিক থেকে দ্রুত গতিতে আসা আরেকটি মোটর সাইকেল ধাক্কা দেয়। সংঘর্ষে উভয় মোটর সাইকেলের ৩জন আরোহী আহত হন।

এ ঘটনায় পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম ও অপর মোটর সাইকেলের চালক মো. হাসান এবং তার সঙ্গী মো. আরাফাত আহত হন। গুরুতর আহত আরাফাতকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। মো. আরাফাত লামা পৌরসভার নয়া পাড়া এলাকার হোচন সওদাগরের ছেলে ও মো. হাসান একই এলাকার জাফর আলমের ছেলে।

লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. উইলিয়াম লুসাই জানান, মো. আরাফাতের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এছাড়া মেয়র জরিুল ইসলাম ও মো. হাসানের অবস্থা আশঙ্কা মুক্ত।




লামায় বন্য শূকরের আক্রমণে উপজাতি কৃষক আহত

লামা প্রতিনিধি:

লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের দুর্গম লেবুঝিরিতে বন্য শূকরের আক্রমণে এক উপজাতি কৃষক গুরুতর আহত হয়েছে।

রবিবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নিজ জমিতে চাষাবাদের কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে এই কৃষক বন্য শূকরের আক্রমণের শিকার হয়। আক্রমণের শিকার কৃষক বরেন্দ্র ত্রিপুরা (৩৮) ইউনিয়নের টিয়ার ঝিরি মার্মা পাড়ার শিগুয়ান ত্রিপুরার ছেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে লামা হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করেছেন।

কৃষকের স্ত্রীর উঞোয়াইচিং মার্মা জানান, বাড়ির পার্শ্ববর্তী লেবুঝিরি এলাকায় নিজের জমিতে চাষ করতে যায় তার স্বামী। জমির কাজ শেষ করতে সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলে এসময় পাশের পাহাড় থেকে একটি বন্য শূকর এসে আক্রমণ করে। বন্য শূকরটি আমার স্বামীর ডান হাতে অসংখ্য কামড় দেয় এবং প্রচণ্ড রক্তাক্ত করে। তার চিৎকারে অনেকক্ষণ পর আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে রাত ৭টার দিকে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

লামা হাসপাতালে জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত ডাক্তার সহকারী মেডিকেল অফিসার বিবি ফাতেমা বলেন, রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার শরীর থেকে প্রচুর রক্তখরন হয়েছে। রোগীকে রক্ত দিতে হবে। বন্য শূকরের কামড়ে তার ডান হাতটি প্রায় ছিঁড়ে গেছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।




লামায় অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নে অতিরিক্ত টোল আদায় ও নানা অভিযোগ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

সূত্র জানায়, বান্দরবান জেলা পরিষদের আওতাধীন ইজারাদার পণ্যের তালিকা ও নির্ধারিত টাকার পরিমানের সাইন বোর্ড প্রদর্শন পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নিয়ম বহির্ভূত ও রশিদ না দিয়ে অতিরিক্ত টোল টেক্স আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।

এর ফলে স্থানীয় কৃষকরা ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অপর দিকে কৃষকরা স্থানীয় বাজার গুলোতে পণ্য আনা কমিয়ে দিয়েছে। অতিরিক্ত টোল টেক্স নেয়ার কারণে ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে স্থানীয় কৃষক।

স্থানীয় পাইকারী ব্যবসায়ী মো. সেলিম জানান, ইজারাদার মো. দিলশান ও জামাল প্রভাবশালী হওয়ায় সরকারি নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে অতিরিক্ত টোল আদায় করে আসছে। ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদ করলে নানা হয়রানির শিকার হতে হয়।

এলাকার খুচরা ব্যবসায়ী হারুন জানান, টোল আদায়ের হিসাব বিবরণী সাইনবোর্ড প্রদর্শন না করে রশিদ না দিয়ে অতিরিক্ত টোল নেয়ার ফলে স্থানীয় পাহাড়ি-বাঙ্গালী কৃষকদের উপস্থিতি কমে গেছে এবং তাদের উৎপাদিত শস্য, সবজি, গাছ, বাঁশ, ফলমূল, গরু-ছাগল বাজারে আনা বন্ধ করে দিয়েছে।

এবিষয়ে ইজারাদার মো. দিলশান জানান, অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ মিথ্যা। ব্যবসায়ীদের কাছে যতটুকু মালামালের টোল নিচ্ছেন তার রশিদ দিচ্ছেন।

সরই ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরিদ-উল আলম জানিয়েছেন, টোল আদায়ের চার্ট না লাগিয়ে অতিরিক্ত টোল আদায়ের বিষয়টি শুনেছি। এটি জেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রানাধীন তাই আমরা বললেও ইজারাদার কর্ণপাত করবে না। তবে স্থানীয় কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আবছার বলেন, তালিকা অনুযায়ী টোল আদায় করতে পারবে ইজারাদার। এর বাইরে গেলে ইজারাদারের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।




লামায় আবারো মোটর সাইকেল চালক খুন

লামা প্রতিনিধি:

বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নে সাজ্জাদ হোসেন (১৫) নামে এক মোটর সাইকেল চালককে হত্যা করা হয়েছে।

শনিবার(১১ নভেম্বর) বিকাল ৪টায় লামা সুয়ালক সড়কের টংগবতী এলাকার পূর্ণ চেয়ারম্যান পাড়ার দক্ষিণে একটি বাগানে মৃত লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। মৃত মোটরসাইকেল চালক উপজেলার সরই ইউনিয়নের আব্দুল সালাম মেম্বার পাড়ার আলী আহম্মদের ছেলে।

জানা গেছে, গত শুক্রবার(১০ নভেম্বর) বিকেলে দুইজন উপজাতি যাত্রী সরই হতে টংগবতী ভাড়া নিয়ে যাওয়ার পর নিখোঁজ হয়ে যায় সাজ্জাদ। ভাড়ায় যাওয়ার পর থেকে সে আর ফিরে আসেনি।

সরই ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদ উল-আলম লাশ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ পাওয়ার স্থানটি বান্দরবান উপজেলায় হওয়ায় আমরা বান্দরবান সদর থানার পুলিশকে অবহিত করেছি। এখন নিহতের লাশের পাশে তার স্বজনরা রয়েছে।

লামা থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার জানান, গতকাল থেকে নিখোঁজ সাজ্জাদকে খুজঁছে লামা থানার পুলিশ। অবশেষে আজ তার লাশের সন্ধান পাওয়া গেছে। বান্দরবান সদর থানার অফিসার ইনচার্জ রফিক উল্লাহ জানান, পুলিশ লাশটি উদ্ধারে ঘটনাস্থলে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ মে ২০১৭ শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় নিখোঁজের ১দিন পরে লামা সুয়ালক সড়কের গজালিয়া ইউনিয়নের ডিসি রোড এলাকার ডা. হালিমের রাবার বাগান থেকে মো. কামাল উদ্দিন (৪০) নামে আরেক মোটর সাইকেল চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে সরই ইউনিয়নের হিমছড়ি এলাকার মৃত অজু মিয়ার ছেলে। তিন উপজাতি যাত্রী সেজে তাকে হত্যা করেছিল।




ছাত্রলীগ করতে হলে ভাল ছাত্র হতে হবে

লামা প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেছেন, ছাত্রলীগ করতে হলে ভালো ছাত্র হতে হবে। আমাদের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা গড়া ছাত্রলীগের স্বপ্ন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

শনিবার ছাত্রলীগের লামা উপজেলা  ও শহর শাখার সম্মেলন উপলক্ষ্যে আয়োজিত বিশাল ছাত্র গণজামায়াতে তিনি প্রধান বক্তার বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আগামী ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আগামী ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী ও ২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উৎসব পালন আমাদের লক্ষ্য। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে লামা উপজেলা পরিষদ চত্বরে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত ছাত্র গণজামায়াতে প্রধান অতিথি ছিলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ক্য শৈ হ্লা মার্মা। উদ্বোধন করেন, ছাত্রলীগের বান্দরবান জেলার সভাপতি কাউছার সোহাগ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বান্দরবান সদর পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় উপ-গ্রন্থনা প্রকাশনা সম্পাদক সাগর হোসেন সোহাগ, স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক জয়নাল আবেদীন।

বক্তব্য রাখেন, বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লক্ষী পদ দাশ, লামা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইসমাইল, লামা পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম, বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জনি সুশীল, ছাত্রলীগ কেন্দ্র্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য উচিং হাই রবিন বাহাদুর, সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মংচাইনু মার্মা।




লামায় বিষপানে বৃদ্ধার আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

বান্দরবানের লামা উপজেলায় রাংক্যনু ত্রিপুরা (৫৫) নামের এক বৃদ্ধা বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। রবিবার(৫নভেম্বর) উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের আকিরাম ত্রিপুরা পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। রাংক্যনু ত্রিপুরা আকিরাম ত্রিপুরা পাড়ার বাসিন্দা মৃত ধুংকি ত্রিপুরার ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, স্ত্রীসহ পাঁচ ছেলে মেয়ে নিয়ে রাংক্যনু ত্রিপুরার সংসার। অভাব অনটনের কারণে স্ত্রীর সঙ্গে রাংক্যনু ত্রিপুরার প্রায়ই মনমালিন্য হত। ধারনা করা হচ্ছে এর জের ধরে রবিবার সকালে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে বিষপান করেন রাংক্যনু ত্রিপুরা।

পরে স্বজনেরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথেই মারা যান রাংক্যনু ত্রিপুরা।

লামা থানা ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, রাংক্যনু ত্রিপুরার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান সদর মর্গে পাঠানো হয়েছে।




আলীকদম ইউপি কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের কার্যাদেশ প্রদানের ৮ মাসেও শুরু হয়নি

লামা প্রতিনিধি

বান্দরবান পার্বত্য জেলার আলীকদম ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ কাজ কার্যাদেশ প্রদানের আট মাসেও শুরু হয়নি। অপরদিকে চৈক্ষ্যং ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ কাজে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

এলজিইডির আলীকদম উপজেলা প্রকৌশলী হেলালুর রহমান জানিয়েছেন, ভূমির জটিলতার কারণে আলীকদম ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করা যাচ্ছে না। কার্যাদেশ মোতাবেক আগামী ১১ নভেম্বর ভবন নির্মাণ কাজ সমাপ্তের সর্বশেষ তারিখ।

এলজিইডি সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রতিটি ৭৪ লক্ষ টাকা চুক্তি মূল্যে মেসার্স নজরুল কন্সট্রাকশন নামক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে আলীকদম ও চৈক্ষ্যং ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নির্মাণ কাজের কার্যাদেশ প্রদান করে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও বান্দরবান আসনের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর ঊশৈসিং এমপি উভয় ইউপি ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। কার্যাদেশ প্রদান ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের ৮ মাস অতিবাহিত হলেও আলীকদম ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়নি।

কার্যাদেশ মোতাবেক আগামী ১১ নভেম্বর ভবন নির্মাণ কাজ সমাপ্তের সর্বশেষ তারিখ। বর্তমানে আলীকদম সদরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জায়গায় অবস্থিত ঝুঁকিপূর্ণ পরিত্যক্ত ভবনে ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক কার্যক্রম চলছে। আলীকদম ইউপি চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন জানান, মাটি কেটে ভূমিকে সমতল করে দিলে নির্মাণ কাজ শুরু করা যাবে।

অপরদিকে চৈক্ষ্যং ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নির্মাণ কাজে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় জনসাধারণ। এলজিইডির ল্যাবরেটরি টেস্টে পরীক্ষিত ও অনুমোদিত নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার না করে খুবই নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে। ল্যাবরেটরি টেস্টে পাঠানো ও ব্যবহৃত নির্মাণ সামগ্রী একই মানের নয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

বেইজ ঢালায়সহ ভবনের অন্যান্য নির্মাণ কাজের গুণগত মান খুবই খারাপ বলে অভিযোগকারীগণ জানান। সম্পাদিত কাজের গুণগত মান নিশ্চিতের জন্য উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি তুলেছেন স্থানীয় সচেতন মহল। চৈক্ষ্যং ইউপি ভবন নির্মাণ কাজের অগ্রগতি কাগজে কলমে ৮০% দেখানো হয়েছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষে মো. আব্দুর শুক্কুর জানান, নিন্মমানের কাজ ও নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ সঠিক নয়। কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপসহকারী প্রকৌশলী চাহ্লাউ চাক জানান, মান বজায় রাখার জন্য আমরা চেষ্টা করেছি।

এলজিইডির বান্দরবান জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমা সাংবাদিকদের জানান, কাজের গুণগত মান দেখা ও তদারকির দায়িত্ব স্থানীয় প্রশাসনের। তথাপি গুণগত মান বজায় রাখার বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের বলা হবে।




লামায় চোলাই মদসহ ২ নারী আটক

লামা প্রতিনিধি:

লামায় দেশীয় তৈরি ২৪ লিটার চোলাই মদসহ দুই নারীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৩ নভেম্বর)বিকালে লামা-চকরিয়া সড়কের লাইনঝিরি মোড় নামক স্থান থেকে মনোয়ারা বেগম (৪০) ও লায়লা বেগম আয়েশা (৪৫) কে আটক করা হয়। আটককৃত দুইজন পাশ্ববর্তী চকরিয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড সিকদার পাড়ার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, লামা-চকরিয়া সড়কের লাইনঝিরি মোড়স্থ বাস কাউন্টারের সামনে থেকে সন্দেহভাজন এ দুই নারীকে পুলিশ আটক করে। পরে তাদের দেহ তল্লাশী করে পলিথিনে মোড়ানো ৩ লিটার করে ৮টি চোলাই মদের প্যাকেট উদ্ধার করা হয়। এদের নামে লামা থানায় পূর্বেও ৩টি করে মাদক পাচারের মামলা রয়েছে।

লামা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান, আটককৃত নারীগণ মাদক পাচারকারী দলের সদস্য। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে লামা হতে চকরিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চোলাই মদ পাচার করে আসছে। তাদের নামে মাদক আইনে আরেকটি মামলা রুজু করা হয়েছে।