দেশপ্রেম এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে: লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, দীঘিনালা:

লংগদু  উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতার স্থপতি  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) সকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে  স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা সংসদ, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন বেসরকারি দপ্তর এবং শ্রেণী পেশার লোকজন  পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পরে অনুষ্ঠিত শোকসভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.  মোসাদ্দেক মেহেদী ঈমাম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লংগদু জোনের জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী, পি এস সি। শোক সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন লংগদু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হোসেন, লংগদু থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোমিনুল ইসলাম এবং লংগদু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজিব ত্রিপুরা প্রমূখ।

শোকসভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন,  স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা আরো অনেক বেশি কঠিন। তাই আমাদের প্রত্যেককে দেশপ্রেমে এবং জাতির জনকের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে নিজ দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালনের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। যে কোন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে রুখে দাড়িয়ে সমন্নিতভাবে দেশকে সুখ, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতির দিকে নিয়ে যেতে হবে।

শোকসভার পর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি লংগদু জোনের জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী, পিএসসি

এদিকে শোক দিবস উপলক্ষ্যে লংগদু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের  শিক্ষার্থীদের মধ্যে  চিত্রাঙ্কণ, রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে লংগদু জোনের জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত থেকে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেন। পরে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ এবং জাতির পিতার জিবনী সম্পর্কিত বই বিতরণ করা হয়। এছাড়া বিদ্যালয়ের ৬০জন শিক্ষার্থীদের  কম্পিউটার প্রশিক্ষণের বই দেয়া হয়।




টানা বর্ষণে ডুবে গেছে লংগদু উপজেলার নিচু এলাকা, বাড়িঘর ছেড়েছে হাজারো মানুষ

নিজস্ব প্রতিনিধি: কয়েক দিনের টানা বর্ষণে ডুবে গেছে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলার নিচু এলাকা। ফলে কয়েক হাজার পরিবার বাড়িঘর ছেড়ে আশ্রয় নিয়েছে আশ্রয়কেন্দ্রে। টানা বর্ষণের পাশাপাশি ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে কাপ্তাই হ্রদের পানির অস্বভাবিক বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

লংগদু উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের নিচু এলাকাগুলো প্লাবিত হওয়ায় সেখানকার পরিবারগুলো নিকট আত্মীয়-স্বজনের উঁচু বাড়ীতে এবং বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসায় আশ্রয় নিয়েছে। অনেকে পানি বন্দি হয়ে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

উপজেলার হ্রদ বেষ্টিত কাট্টলী বাজারটি পানির ঢেউয়ের আঘাতে ভাঙ্গনের ঝুঁকিতে পড়েছে। ফোরেরমুখ, সাধুর টিলা, জারুলবাগান, রাঙ্গীপাড়া, বগাচতর, ভাসাইন্যাাদম, কালাপাকুজ্জা, গুলশাখালী, গাঁথাছড়া, মাইনীমুখসহ সাত ইউনিয়নে কম বেশি বন্যায় ভাসছে। ক্ষেত ফসলের ক্ষতি হয়েছে। মৎস্য বাঁধেরও ক্ষতি হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

 




সন্তু লারমা ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্তদের খোঁজ নিতে একবারের জন্যও যায়নি- দীপংকর তালুকদার


নিজস্ব প্রতিনিধি: রাঙ্গামাটিতে সন্তু লারমা ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্তদের খোঁজ নিতে একবারের জন্যও যায়নি, বরং তারা পাহাড়ে বিভেদ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, তারা চায় না আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসুক। তাই তারা অস্ত্রের মাধ্যমে এবং বিভেদ সৃষ্টি করে পার্বত্য জেলায় আওয়ামীলীগকে সম্পূর্ণ নিশ্চিহ্ন করতে চায়।

১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার (১১ আগষ্ট) লংগদুর গুলশাখালী উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

গুলশাখালী ইউনিয়নের সভাপতি আবু বক্কর ছিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শোক সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রুহুল আমিন, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম, লংগদু উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য জানে আলম, যুবলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ শহিদুল আলম স্বপন, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ জাহান, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য শাহনেওয়াজ সুমন, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক উদয় শংকর চাকমা প্রমুখ। সভা উপস্থাপনায় ছিলেন, শহিদুল ইসলাম কামাল।

আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, সাজেকে খাদ্যভাব দেখা দিলেও সরকারের পক্ষ থেকে কোন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেনি বলে বিভিন্ন জায়গায় সন্তু লারমা বক্তব্য প্রদান করে আসছে। কিন্তু সাজেকে খাদ্যভাব দেখা দেওয়ার সাথে সাথে সরকারের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ ও জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে প্রতিটি গ্রামে প্রচুর পরিমাণ খাদ্য শস্য বিতরণসহ তাদের নগদ আর্থিক প্রদান করেছে।

তিনি সন্তু লারমাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ১৩ জুন ভয়াবহ পাহাড় ধ্বসে কারণে ১২০ জন লোক মারা গেছে। শতশত পরিবার বাড়ি ঘর হারিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে। সেসময় একটি বারের জন্যও সন্তু লারমা ভূমি ধ্বস এলাকা ও আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা পরিবারের কোন খোঁজ খবর নিতে যায়নি। ক্ষতিগ্রস্থ কাউকে আর্থিক সাহায্যে ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণও করেনি। সরকারের পক্ষ থেকে আঞ্চলিক পরিষদকে আপদকালীন সময়ে বিতড়ণের জন্য যেসব খাদ্য শষ্য বরাদ্দ দেয়া হয় সেখান থেকে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে কোন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে দেখা যায়নি। তা হলে এইসব খাদ্য শষ্য কোন কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে।




অবশেষে নিখোঁজ শহিদুল’র লাশের খোঁজ মিলল

 

রাঙামাটি প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটির বরকল উপজেলায় নিখোঁজ নির্মাণ শ্রমিক শহিদুল ইসলামের অবশেষে লাশের খোঁজ মিলল। শনিবার সকালে ডুবুরিরা কাপ্তাই হ্রদ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

বরকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফজল আহমদ খান জানান, প্রায় ৩৫ ঘন্টা পর শনিবার সকাল ৮টায় ডুবুরির মাধ্যমে শহিদুল ইসলামের লাশটি পাওয়ার পর তার আত্মীয় স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। লাশটি তার গ্রামের বাড়ি লংগদু উপজেলার হাজাছড়াতে নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য ,গত বৃহষ্পতিবার রাতে বরকল উপজেলার ভুষণছড়া বাজার থেকে নৌকায় করে ৬জন নির্মাণ শ্রমিক কাজে যাওয়ার সময় হঠাৎ ঝড়ো বাতাসে নৌকা ডুবে গেলে বাকিরা সাঁতার কেটে পাড়ে উঠে আসলেও শহিদুল ইসলাম পানিতে তলিয়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়।




লংগদু উপজেলার কেন্দ্রীয় মাঠে ৪৬তম গ্রীষ্মকালীন আন্ত: স্কুল ফুটবল প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি::

অাজ ৩০ জুলাই ২০১৭ তারিখ বিকেল ১৫০০ ঘটিকায় লংগদু উপজেলার কেন্দ্রীয় মাঠে ”৪৬তম গ্রীষ্মকালীন আন্ত: স্কুল ফুটবল প্রতিযোগীতা” অনুষ্ঠিত হয়’। উক্ত খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লংগদু জোনের জোন কোমান্ডার লেঃ কর্নেল আঃ আলীম চৌধুরী, পি এস সি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন।

খেলায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে উগোলছড়ি মহাজন পাড়া উচ্চ বিদ্যালয় এবং রানার আপ হয় মাইনীমূখ মডেল হাই স্কুল। খেলা শেষে জোন কোমান্ডার উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলার গুরুত্ব তুলে ধরেন।

খেলা শেষে প্রধান অতিথি লঙদু জোনের পক্ষ হতে চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য একটি ২১ ইঞ্চি এল ই ডি রংগিন টেলিভশন এবং রানারআপ দলের জন্য একটি ১৯ ইঞ্চি এল ই ডি রংগিন টেলিভিশন ছাড়াও সকল অফিসিয়ালের জন্য বিশেষ উপহার এবং শ্রেষ্ঠ খেলোয়ারকে একটি ব্যাক প্যাক বিতরণ করেন।

শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় হওয়ার গৌরব অর্জন করেন উগোলছড়ি মহাজন পাড়া মডেল হাই স্কুলের মোঃ মামুন মিয়া।




লংগদুতে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি নির্মাণ করে দিচ্ছে সরকার

নিজস্ব প্রতিনিধি:

যুবলীগ নেতাকে হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে লংগদুতে ২১২টি পাহাড়ি পরিবারের বসতঘর ভষ্মিভূত করে দেয়ার ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি নির্মাণ করে দিচ্ছে সরকার। গত দুইমাস ধরে কার্যত গৃহহীন এ পরিবারগুলো বর্তমানে তিনটিলা বনবিহার, মানিকজোরছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও লংগদু সরকারি হাইস্কুল ও লংগদু বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীনিবাসে আশ্রয় নিয়ে আছেন। আর কেউ কেউ অস্থায়ী টংঘর নির্মাণ করে অবস্থান নিয়েছেন পুড়ে যাওয়া বসতভিটার পাশেই।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের পরিচালক ও যুগ্ম সচিব আবুল কালাম শামসুদ্দিন স্বাক্ষরিত এক পত্র লংগদু উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো হয়েছে, সেই পত্র সূত্রে জানা গেছে, ২১২টি পরিবারের জন্য ৩ কক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমিপাকা ঘর, ১টি রান্নাঘর ও ১টি শৌচাগার এবং ভষ্মিভূত ৮টি দোকানঘর পুনর্নিমাণের জন্য অর্থ বরাদ্দের অনুরোধ জানানোর প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় প্রাক্কলন প্রনয়ণের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্পকে নির্দেশনা দিয়েছে।

ওই পত্রে বলা হয়, আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের ২য় সংশোধিত ডিপিপি-তে পার্বত্য ৩ জেলায় উপজাতি জনগোষ্ঠির জন্য বিশেষ ডিজাইনের ঘর নির্মাণের সংস্থান রয়েছে।

পত্রে প্রতিটি ঘরের প্রাক্কলিত মূল্য আইটিভ্যাটসহ ৫ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করে চাহিদা অনুসারে আইটি ভ্যাট (১০%) বাদে ৪ লক্ষ ৭২ হাজার টাকার বসতগৃহ নির্মাণের প্রাক্কলন ও নক্সা জরুরিভাবে প্রেরণ করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অনুরোধ করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১ জুন রাঙামাটির লংগদু উপজেলার সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পেশায় মোটর সাইকেল চালক নুরুল ইসলাম নয়নকে হত্যা করে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। ওইদিন খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় নয়নের লাশ পাওয়া যায়। অভিযোগ করা হয়, পরদিন ২ জুন নয়নের লাশ লংগদুতে আনার পর একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল তার লাশসহ মিছিল সহকারে উপজেলা পরিষদ মাঠে জানাজার জন্য যাওয়ার পথে তিনটিলা,বাইট্টাপাড়া ও মানিকজোড় গ্রামের পাহাড়ীদের বসতবাড়িতে ব্যাপকভাবে অগ্নিসংযোগ করে। এসময় পাহাড়িদের অন্তত ২১২টি পরিবারের বসত, দোকানসহ ২২৬টি স্থাপনা পুড়ে যায়। ভষ্মীভূত হয় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সমন্বিত সমাজ উন্নয়ন প্রকল্পের একটি পাড়াকেন্দ্রও। এসময় পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রণে উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একাধিক প্রতিনিধিদল।




লংগদুতে তিন দিনব্যাপী ফলদ বৃক্ষরোপন মেলা উদ্বোধন

লংগদু প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী ফলদ বৃক্ষরোপন মেলা-১৭ উদ্বোধন করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে এ মেলার আয়োজন করা হয়। সোমবার, সকাল সাড়ে ১১টায়, লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে ফলদ বৃক্ষরোপন মেলার উদ্বোধন করেন।

মেলার উদ্বোধন পূর্ব উপজেলা পরিষদ প্রান্ত থেকে মেলার র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি প্রধান সড়ক ঘুরে এসে কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে মেলা প্রাঙ্গনে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা কিশোর কুমার মজুমদারের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. তোফাজ্জল হোসেন বলেন, পার্বত্যাঞ্চল হচ্ছে কৃষি নির্ভর। এখানে প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে খাদ্য স্বনির্ভর এলাকা গড়ে তোলা সম্ভব। কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ের লোকজন আরো বেশি করে সময় দেন তাহলে কৃষকরা উপকৃত হবেন। কৃষক যত বেশি উপকৃত হবে খাদ্য উৎপাদন তত বেশি বৃদ্ধি পাবে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রতন চৌধুরীর পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন ভূইয়া, রাঙ্গামাটি কৃষি তথ্য সার্ভিসের প্রতিনিধি জসিম উদ্দিন,  উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন।

শেষে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণের পক্ষ থেকে রাজস্ব আউস ধান প্রদর্শনী বিজ সংরক্ষণের জন্য কৃষকের মাঝে ড্রাম বিতরণ করা হয়।




লংগদুতে নয় দিনব্যাপী বিউটিফিকেশ প্রশিক্ষণ

 

 

লংগদু প্রতিনিধি:

লংগদুতে নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি করতে উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে শিক্ষিত বেকার মহিলাদের নয় দিনব্যাপী বিউটিফিকেশন প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

সোমবার, উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরির মিলনায়তনে এ প্রশিক্ষণের আয়োজন  করা হয়।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তরুন চাকমার সভাপতিত্বে  উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুর জাহান বেগম প্রধান অতিথি হিসেবে এ প্রশিক্ষণ উদ্বোধন করেন।

এসময় তিনি বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি করতে হলে নারীদের বিউটিফিকেশন স্কিল ডেভেলপ করার প্রয়োজন আছে। প্রয়োজনে এবিষয়ে তাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কিরণ তালুকদার, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মাহাবুব ইলাহী, জাইকা প্রকল্পের উপজেলা কো-অডিনেটর টিনটু চাকমা। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সমন্বিত পাড়া উন্নয়ক কেন্দ্র সমন্বয়ক মৃনাল কান্তি।

প্রশিক্ষক হিসাবে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন, বিউটিশিয়ান পলি চাকমা। জাইকা প্রকল্প প্রশিক্ষণে আর্থিক সহযোগিতা করেন।




লংগদু’তে রাবেতা কলেজে ছাত্রলীগের ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান

লংগদু প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটির লংগদুতে রাবেতা মডেল কলেজে ছাত্র ছাত্রীদের খেলাধুলার জন্য লংগদু উপজেলা ছাত্র লীগের পক্ষ থেকে ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার, এ উপলক্ষ্যে রাবেতা মডেল কলেজ ক্যাম্পাসে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। রাবেতা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মো. জুয়েল এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ও মাইনীমুখ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. কামাল পাশা।

রাবেতা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আমীর হোসেন এর পরিচালনায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রাকিব হাসান, সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান রাজু, সহ সাধারণ সম্পাদক মো. হানিফ, বাবলা দাশ, সংগঠনিক সম্পাদক আল মাহমুদ, সদস্য মো. নুরুল ইসলাম, মো. জীবন।

বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকারের লড়াকু সৈনিক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি  দীপংকর তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক হাজ্বী মুছা মতাব্বর, রাঙ্গামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন এর নেতৃত্বে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তাদের এ নেতৃত্বকে আরো বেগবান ও শক্তিশালী করতে হলে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করে যেতে হবে।




লংগদুতে বন্যহাতির আক্রমনে এক ব্যক্তি নিহত

 

লংগদু  প্রতিনিধি:

লংগদু উপজেলার গুলশাখালী ইউনিয়নের রহমতপুর এলাকায় রাতের বেলায় বন্যহাতির আক্রমনে শামিম আলম (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। নিহতের বাড়িও একই এলাকায় এবং গুলশাখালী ইউপি সংরক্ষিত ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্যা নুর নাহার বেগমের স্বামী সে।

এলাকাবাসীরা জানায়, রোববার রাত আনুমানিক দশটার সময় শামিম আলম স্থানীয় চৌমুহনী বাজার থেকে হেটে রহমতপুর তার নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল। রহমতপুর ব্রিজের কাছে আসতেই হঠাৎ বন্যহাতির কবলে পড়ে যায় সে। এসময় হাতির এলোপাতাড়ি আক্রমণের ফলে তার সমস্ত শরীরে মারাত্বকভাবে আঘাত লাগে। ছুটে পালানোর শত চেষ্টারপরেও শেষ পর্যন্ত নিজেকে রক্ষা করতে পারেনি। তার চিৎকার, আহাজারী শুনতে পেয়ে তাকে হাতির কবল থেকে উদ্ধার করে এলাকাবাসীরা। শামিম আলমকে উদ্ধারের পরপরই স্থানীয় বেসরকারি রাবেতা হাসপাতালে নিয়ে যান গ্রামবাসীরা। পরের দিন (সোমবার) সকাল সাতটায় সেখানে তার মৃত্যু হয়।

গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবু নাছির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, প্রায় এই এলাকায় বন্যহাতি আক্রমন করে থাকে। এতে অনেক জান মালের ক্ষয়-ক্ষতি ঘটছে। বন্যহাতির সমস্যা এখানে একটি বড় সমস্যা।

লংগদু থানা সূত্র জানা গেছে, এব্যাপারে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

এলাকাবাসীরা জানায়, বন্যহাতির একটি দল অনেক দিন ধরে ওই এলাকায় ঘুরে ফিরে অবস্থান করছে। দিনের বেলায় জঙ্গলে লুকিয়ে থাকে রাতের বেলায় জান মালের ক্ষতি করে যাচ্ছে। হাতিগুলোকে লোকালয় থেকে সরানোর জন্য এলাকাবাসীরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।